যানজটের শীর্ষে ঢাকা: এই অর্জন গর্বের নয়, নৈরাশ্যের

  • ২০-ফেব্রুয়ারী-২০১৯ ১০:১৮ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ড. কাজী এরতেজা হাসান ::

বর্তমান সরকারের মেয়াদে অনেক খবরই আছে যা শুনলে আমাদের গর্বে বুক ফুলে যায়। কিন্তু কথায় বলে না যে, ‘চাঁদেরও কলঙ্ক আছে’। বাংলাদেশের ক্ষেত্রেও তেমনি। এমন অনেক সংবাদ আছে যা শুনলে আমাদের মন ছোটো হয়ে যায়। নৈরাশ্য ভর করে জীবনের ওপর। রাজধানী ঢাকা এখন বিশ্বের অন্যতম মেগাসিটিই শুধু নয়, বিশে^র একনম্বর যানজটের নগরী হিসেবেও খ্যাতি কুড়িয়ে ফেলেছে। এক সময় ঢাকাকে বলা হতো মসজিদের নগরী। কালের পরিসরে ঢাকায় মসজিদের সংখ্যা বেড়েছে জনসংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে। কিন্তু যানজটের বিস্তৃতি এমনভাবে ঘটেছে যে মানুষ এখন ঢাকাকে আর মসজিদের নগরী বলছে না। তার বদলে যানজটের নগরী বলছে। অথচ এই যানজট নিরসনে কী না করা হয়েছে। রাজধানীতে একের পর এক ফ্লাইওভার থেকে শুরু করে শেষমেশ ইউলুপও তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু তাতেও তেমন কোনো অগ্রগতি হয়নি। 

আর তাই এবার বহুজাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘নামবিও’র প্রকাশিত ওয়ার্ল্ড ট্রাফিক ইনডেক্স-২০১৯ এ আমাদের রাজধানী ঢাকাকে দেখানো হয়েছে বিশ্বের এক নম্বর যানজটের নগরী। শুধু তাই নয়, সময়ের অপচয় ও ট্রাফিক অদক্ষতা সূচকেও এক নম্বরে রয়েছে ঢাকা। গত শনিবার নামবিওর বিশ্ব যানজটে ওয়েবসাইটে বলা হয়, যানজটের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ভারতের কলকাতা। আর তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে নয়াদিল্লি। চতুর্থ স্থানে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবি। পঞ্চমে আছে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তা, ষষ্ঠ শ্রীলঙ্কার কলম্বো, সাতে আছে মুম্বাই শহর। ফিলিপাইনের ম্যানিলা আছে অষ্টমে। আর ৯ নম্বরে আছে আরব আমিরাতের সারজাহ এবং ১০ম অবস্থানে ইরানের তেহরান। অর্থাৎ বিশে^র প্রধান ১০ প্রধান যানজনের নগরী এই ভারত উপমহাদেশেরই ৪টি নগরী। 

আর তাতে ঢাকা দুনিয়ার সবচেয়ে যানজট আক্রান্ত নগরী এ পরিচিতিটি কোনোভাবেই গর্বের নয়, বরং তীব্র হতাশার। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি, বাঙালি জাতি রাষ্ট্রের রাজধানী ঢাকার পাশাপাশি বাঙালি অধ্যুষিত ভারতের পশ্চিম বাংলা রাজ্যের রাজধানী কলকাতার অবস্থান যানজটের দিক থেকে বিশ্বে দ্বিতীয়। যানজটের কারণে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা বিদেশিদের কাছে অপছন্দের নগরী হিসেবে পরিচিত হয়ে উঠছে। পর্যটশরদেরও আকৃষ্ট করতে পারছে না আর বাংলাদেশ। বাংলাদেশে বিনিয়োগের অনুকূল পরিবেশ থাকা সত্ত্বেও বিদেশিরা যেসব কারণে অনীহা দেখান তার অন্যতম কারণ রাজধানী ঢাকার যানজট। যানজটের অভিশাপে প্রতিবছর রাজধানীবাসীর যে কর্মঘণ্টা কেড়ে নিচ্ছে তাতে করে নগরবাসীকে চরম হিমশিম খেতে হয়।  যেকারণে রাজধানীর মানুষ মানসিক অসুস্থতায়ও আক্রান্ত হয়ে পড়ে। যার সংখ্যা পৌনে দুই কোটি মানুষ। অর্থাৎ বড় মাপে দেশের কয়েক কোটি মানুষ। কারণ রাজধানীতে বিভিন্ন কাজে এসে তারা যানজটের কবলে পড়ে এই চরম ভোগান্তির শিকারে পরিণত হন। 

এখন দেশের বৃহত্তর স্বার্থেই রাজধানীর যানজটে লাগাম পরাতে হবে। শুধু নিত্যনতুন ফ্লাইওভার নির্মাণই নয়, যত্রতত্র পার্কিং ও ফুটপাথ দখল মুক্ত করতে হবে। ট্রাফিকদের ব্যবস্থাপনার নৈরাজ্য দূর করতে হবে। রাজধানীর মানুষই বোঝেন, প্রতিদিন তারা সড়কপথে কী ভোগান্তিতে পড়েন। ট্রাফিকের মধ্যে কোনো সমন্বয় নেই। আবার এই ট্রাফিক ভিআইপি সড়ক আর নন ভিআইপি সড়কের নামে কী যে নৈরাজন্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে অযথা যানজট লায়িয়ে তারও কোনো সীমাপরিসীমা নেই। এখন দেশের উন্নয়নে গতি বাড়াতেই এর সুরাহা ভিন্ন আর কোনো পথ নেই বলে মনে করি আমরা।  

Ads
Ads