অস্ত্রের মুখে পুলিশের হাতে ধর্ষণের শিকার ছাত্রী

  • ২৭-জানুয়ারী-২০১৯ ০২:৩৩ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

অস্ত্রের মুখে এবার বাড়ি থেকে ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। একপর্যায়ে ওই ছাত্রী অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় ছুটিতে আসা পুলিশের এক কনস্টেবলসহ দুই বখাটেরা।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের ছাতিয়ান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ভিকটিম ছাত্রী ও তার পরিবারের বরাত দিয়ে রূপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক লিটন মিয়া জানান, শুক্রবার বিকালে তারাবো হাটিপাড়া এলাকার শিক্ষার্থী তার মায়ের সঙ্গে ওয়াজ শুনতে নানা ওহাব মিয়ার রূপগঞ্জের বাড়িতে আসেন। রাতে বাড়ির লোকজন পার্শ্ববর্তী ছাতিয়ান বেপারী পাড়া মসজিদের বাৎসরিক ওয়াজ মাহফিলে ওয়াজ শুনতে যান।

এ সুযোগে একই এলাকার লতিফ মিয়ার ছেলে ও পুলিশ লাইনে কর্মরত কনস্টেবল মৃদুল মিয়া (২৩), সোলেয়মানের ছেলে নিজাম মিয়া (২৪), সিয়াম হোসেন (২২) ওই শিক্ষার্থীকে ঘর থেকে অস্ত্রের মুখে তুলে নির্জন স্থানে নিয়ে যান। এসময় তাকে তারা পালাক্রমে ধর্ষণ করেন।

এসআই আরো জানান, ওয়াজ শেষ করে ঘরে ফিরে মেয়েকে না পেয়ে পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। পরে অজ্ঞান অবস্থায় শিক্ষার্থীকে বাড়ির পাশ থেকে উদ্ধার করা হয়।

এদিকে, ধর্ষণের খবর ছড়িয়ে পড়লে রাতেই এলাকাবাসী ওই কনস্টেবলসহ দুজনকে আটক করতে ধাওয়া করে। এলাকাবাসীর উপস্থিতি টের পেয়ে তারা পালিয়ে যায়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

শিক্ষার্থীর মা আকলিমা বেগম বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এটা ন্যক্কারজনক ঘটনা। অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

/কে 

Ads
Ads