পঞ্চম দিনেও শ্রমিক বিক্ষোভ: মজুরি পর্যালোচনা কমিটির সভা বিকালে

  • ১০-জানুয়ারী-২০১৯ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

নতুন মজুরি কাঠামোর বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন দাবিতে পঞ্চম দিনের মতো সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন পোশাক শ্রমিকরা।

আশুলিয়ায় পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের ব্যাপক ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুলিশ ও শ্রমিকসহ আহত হয়েছেন অন্তত ৩০ জন।

বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি)  সকাল সাড়ে ৮টার দিকে টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের আশুলিয়ার বেরন এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এদিকে বিক্ষোভের মধ্যে আজ বিকাল ৩টায় মজুরি পর্যালোচনা নিয়ে গঠিত কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে।

বুধবার রাতে রাজধানীর মানিক মিয়া অ্যাভিনিউয়ের ন্যাম ভবনে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান বলেন, মজুরি নিয়ে উদ্ভুত সমস্যার দ্রুত সমাধান করা হবে। মজুরি কাঠামোতে কোনো অসামঞ্জস্যতা থাকলে তা দূর করা হবে।

বেতন পরিশোধ ও মজুরি বাড়ানোর দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভের মধ্যে আজ বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় মজুরি পর্যালোচনা নিয়ে গঠিত কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে। শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান বলেন, মজুরি নিয়ে উদ্ভুত সমস্যার দ্রুত সমাধান করা হবে। মজুরি কাঠামোতে কোনো অসামঞ্জস্যতা থাকলে তা দূর করা হবে।

শ্রমিকদের অভিযোগ, তাদের জন্য সরকার ঘোষিত নতুন বেতন কাঠামো নির্ধারণ করলেও মালিকপক্ষ তা দিচ্ছে না। এদিকে, মালিকপক্ষের কাছ থেকে বার বার আশ্বাস সত্ত্বেও বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছেন তারা।

শেওড়াপাড়ায় আলফা নিটিং ওয়্যার-এর অপারেটর সজীব আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, সরকার আমাদের জন্য যে বেতন নির্ধারিত করেছে তা মালিকেরা আমাদের দেয় না। গত মাসের বেতন ৭ তারিখ দেওয়ার কথা ছিলো। এখনও দেয়নি। 

আমেনা খাতুন নামে জে কে ফ্যাশনের আরেক কর্মী বলেন, আমাদের ন্যূনতম মজুরি ১২ হাজার টাকা দেওয়ার কথা। কিন্তু দেওয়া হচ্ছে ৯ হাজার ৭০০ টাকা। বেসিক বেতন ৭০০০ টাকা দেওয়ার কথা, সেটিও দিচ্ছে ৫ হাজার ৭০০ টাকা। এভাবে সব বিষয়েই আমাদের বঞ্চিত করা হচ্ছে।

কয়েকটি গার্মেন্টসের কর্মীদের মালিকপক্ষ আটকে রেখেছে এমন অভিযোগ করেছেন বিক্ষোভরত কর্মীরা। আটকে থাকা কর্মীদের বের করে আনতে গার্মেন্টসগুলোর প্রধান ফটক ভাঙচুর করেছেন তারা। 

 

/কে 

Ads
Ads