খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে যা জানালেন বিএসএমএমইউ পরিচালক

  • ৮-Nov-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

চিকিৎসা শেষে মেডিকেল বোর্ডের মাধ্যমে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ছাড়পত্র দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (০৮ নভেম্বর) খালেদা জিয়াকে হাসপাতাল থেকে পুনরায় কারাগারে নেয়ার পর সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা জানান।

বিএসএমএমইউ পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, মেডিকেল বোর্ডের মাধ্যমে চিকিৎসা শেষে খালেদা জিয়াকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। তাঁর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। বর্তমানে পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্ট ভালো।

তিনি বলেন, তার (খালেদা জিয়া) চিকিৎসার জন্য এখানে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছিল। তার যেসব রোগ রয়েছে সে অনুসারে মেডিকেল বোর্ড চিকিৎসা দিয়েছে। আমরা আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি তাকে সুস্থ করে তোলার। তিনি রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিসে ভুগছেন। এক্ষেত্রে আমরা বলতে পারি রোগটি নিয়ন্ত্রণে আছে অথবা নাই। নিরাময় হয়ে গেছে এমন বলা যাবে না। এখনো না, আর যত শারীরিক রোগ রয়েছে সবগুলো নিয়ন্ত্রণে আছে।

খালেদা জিয়াকে কারাগারে নিতে গাড়িতে ওঠানোর সময় হুইল চেয়ারে করে  নেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় তিনি হাঁটতে পারবেন কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে হাসপাতাল পরিচালক বলেন, আমরা যে রূপ চিকিৎসা দিয়েছি সে অনুসারে আমরা আশা করছি তিনি হাঁটাচলা করতে পারবেন। আর তার রোগগুলো নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য চিকিৎসকদের পরামর্শগুলো মেনে চলতে হবে। এক্ষেত্রে কিছু চিকিৎসা পদ্ধতি যেমন ফিজিওথেরাপি চালু থাকবে। 

কারা কর্তৃপক্ষ যদি চায় তাহলে বিএসএমএমইউ’র পক্ষ থেকে কারাগারে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে জানিয়ে আব্দুল্লাহ আল হারুন বলেন, এখানে তার যেসব টেস্ট করানো হয়েছে সেগুলোতে অস্বভাবিক কোন কিছু পাওয়া যায়নি। শুধুমাত্র এমআরআইতে বয়সজনিত কিছু সমস্যা লক্ষ্য করা গেছে। এছাড়া বয়সজনিত কারণে হাড়ক্ষয়ের সমস্যা রয়েছে।

এর আগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরোনো কারাগারে ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা ২৩ মিনিটে তাকে হাসপাতালের ৬১২ নম্বর কক্ষ থেকে বের করা হয়। পরে একটি কালো এসইউভিতে করে কারাগারের নেওয়া হয়। এসময় কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। পুলিশসহ আইনশৃংখলা বাহিনী ছিল তৎপর।

 

/কে 

Ads
Ads