পদ্মা সেতুর নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • ১৪-Oct-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

দেশের মানুষের স্বপ্নের পদ্মা সেতুর নামফলক ও রেল প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (১৪ অক্টোবর) বেলা সোয়া ১১টার দিকে পদ্মাসেতুর নামফলকসহ কয়েকটি নতুন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন তিনি। পরে তিনি মোনাজাতে অংশ নেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, নৌমন্ত্রী শাজাহান খান, সেনাবাহিনী প্রধানসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এখন প্রধানমন্ত্রী মাওয়া অংশে পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি এবং এন-৮ মহাসড়কের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করবেন। এরপর পদ্মাসেতুর মাওয়া টোলপ্লাজা সংলগ্ন গোলচত্বরে সুধী সমাবেশে যোগ দেবেন।

মাওয়া প্রান্তের কর্মসূচি শেষে প্রধানমন্ত্রী পদ্মাসেতুর শরীয়তপুর জেলার জাজিরা প্রান্তে যাবেন। সেপ্রান্ত থেকেও তিনি পদ্মাসেতু রেলসংযোগ প্রকল্পের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন (জাজিরা প্রান্ত) এবং পদ্মাসেতুর নামফলক উম্মোচন (জাজিরা প্রান্ত) করবেন।

বিকালে প্রধানমন্ত্রী মাদারীপুরের শিবচর কাঁঠালবাড়ীর ইলিয়াছ আহমেদ চৌধুরী ফেরিঘাটে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় যোগ দেবেন। জনসভা শেষে বিকালেই প্রধানমন্ত্রীর ঢাকায় ফেরার কথা রয়েছে।

পদ্মা সেতুর অগ্রগতি পরিদর্শন ও এসব প্রকল্পের উদ্বোধন করতে সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে পদ্মাসেতুর মাওয়া প্রান্তে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। এরপর তিনি এসব প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।

প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে পুরো ঘাট এলাকায়। পথে পথে ব্যানার, তোরণ, ফেস্টুন, পোস্টারে ঘিরে ফেলা হয়েছে। শিবচর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনগুলো জনসভাকে সফল করতে নিয়েছে নানান পদক্ষেপ। অপরদিকে প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে ২০০১ সালের ১২ জুলাই মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের কুমারভোগ এলাকায় পদ্মা সেতু নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, পদ্মা সেতুর প্রায় ৬০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে।

/ই

Ads
Ads