মাশরাফিকে দেশের সবচেয়ে বড় সম্পদ বললেন প্রধানমন্ত্রী

  • ৪-Oct-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ওয়ানডের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে দেশের বড় সম্পদ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কতটা ক্রীড়াপাগল সেটা নতুন করে বলাইবাহুল্য। দেশের মাঠে খেলা হলে প্রধানমন্ত্রীর মাঠে উপস্থিত যাওয়াই সেটা প্রমাণ করে। নিয়মিত ক্রীড়াবিদদের খোঁজ-খবর রাখা থেকে শুরু করে ক্রীড়া উন্নয়নে সর্বোচ্চ অবদান প্রধানমন্ত্রীর। কয়েকদিন আগেও ইনজুরিতে এশিয়া কাপ শেষ করে দেশে ফিরে আসা তামিম ইকবালের খোঁজ নেন তিনি সরাসরি ফোন করে। প্রয়োজনে বিদেশে গিয়ে হলেও চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি। সেই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী এবার অধিনায়ক মাশরাফিকে উল্লেখ করলেন দেশের সবচেয়ে বড় সম্পদ হিসেবে।

বৃহস্পতিবার (০৪ অক্টোবর) সকালে গণভবন থেকে উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন করেন। এসময় তিনি ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে নড়াইলের লোহাগড়ার সাধারণ মানুষের সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে এ কথা বলেন।

এ সময় নড়াইলের মানুষের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নড়াইল আমার নিজের জায়গা। আমি সেখানে বহুবার গেছি। আর আপনাদের তো সবচেয়ে বড় সম্পদ রয়ে গেছে। আমরা ক্রিকেটে কত ভালো করছি, মাশরাফি সেখানে নড়াইলের। সবচেয়ে বড় সম্পদই তো আপনাদের মাশরাফি। জাতীয় ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফির জন্য আপনারা দোয়া করবেন। সে যেন বিশ্বের কাছে দেশের ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল করে তুলতে পারে।

নড়াইলবাসীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি আরও বলেন, এবার আমি অন্যদের সঙ্গে কথা বলবো। বহুলোক অনেক সময় ধরে অপেক্ষা করছে। আরও কয়েকটা জেলার মানুষের সঙ্গে আমাকে কথা বলতে হবে। আপনারা ভালো থাকুন। আর আপনাদের নড়াইল তো আমার নিজের জায়গা।

এর আগে জাতীয় উন্নয়ন মেলাসহ দেশের সব জেলা-উপজেলায় আয়োজিত উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন ঘোষণা করেন তিনি।

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী বরগুনার তালতলী উপজেলা, বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলা ও রংপুরের পীরগঞ্জ উপেজলায় সংযুক্ত হয়ে স্থানীয় জনগণের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

তিনি বলেন, কোনো মানুষকে যেন কারও কাছে হাত পেতে বা ভিক্ষা করে চলতে না হয়। সবাই যেন নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে, সেটিই আমাদের দায়িত্ব। সেটিই আমরা করে যাচ্ছি এবং আমরা তা করে যাব। দেশকে সেভাবে গড়ব।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, শুধু বর্তমানে যারা আছেন তারাই নন, আমাদের তরুণ প্রজন্ম বা আগামী প্রজন্ম যাতে উন্নত জীবন পায়, সেই পরিবেশ তৈরির লক্ষ্যেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি। বাংলাদেশ স্বাধীন দেশ। অন্যের মুখাপেক্ষী হয়ে থাকবে না, ভিক্ষা করে চলবে না। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের বাণিজ্য মেলা প্রাঙ্গণসহ সারা দেশে একযোগে শুরু হয় উন্নয়ন মেলা।

গণভবন প্রান্তে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতেই উন্নয়ন মেলার থিম সং প্রদর্শন করা হয়। এ ছাড়া সরকারের গৃহীত উন্নয়ন পদক্ষেপের একটি ভিডিওচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

‘উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় অদম্য বাংলাদেশ’-এ প্রতিপাদ্য নিয়ে এবারের উন্নয়ন মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিদিন সন্ধ্যায় মেলা প্রাঙ্গণে বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

/ই

 

Ads
Ads