সংলাপ নিয়ে ওবায়দুল কাদের ও এইচ টি ইমামের ভিন্ন কথা

  • ১৫-জানুয়ারী-২০১৯ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

রাজনৈতিক দলগুলোকে আবারও গণভবনে ডাকার খবর নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ধূম্রজাল কাটছেই না।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম আজ মঙ্গলবার ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানো শেষে বলেছেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারও একটি সংলাপ করবেন।’

এইচ টি ইমামের বক্তব্যের কিছু পরে ধানমন্ডি ২৭ নম্বর সড়কের একটি কমিউনিটি সেন্টারে মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের এক বর্ধিত সভায় দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গত শনিবার আওয়ামী লীগের যৌথ সভায় তিনি সংলাপ শব্দটিই ‘উচ্চারণ’ করেননি। ওই বক্তব্যের অডিও-ভিডিও ক্লিপ তাঁর কাছে আছে দাবি করে তিনি বলেন, সংলাপের বিষয়টি সাংবাদিকদের ‘মনগড়া খবর’।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানোর পর এইচটি ইমাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী তো সবার। তাঁকে সবাই অবশ্যই মেনে নেবে এবং সহযোগিতা করবে, করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তিনি আবার একটি সংলাপ করবেন। আগের সংলাপে যাঁরা অংশগ্রহণ করেছিলেন, তাঁদের তিনি আমন্ত্রণ জানাবেন। কিন্তু নির্বাচন নিয়ে আলোচনাসংক্রান্ত যে কথাটি বলা হচ্ছে, তা অত্যন্ত অবাস্তব এবং হাস্যকর।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এইচ টি ইমাম আরও বলেন, ‘নতুন নির্বাচন বাস্তবে সম্ভব নয়। এখন বাস্তবতা মেনে নিয়ে সবাই সহায়তা করেন। আমাদের দিক থেকে আমরা পাঁচজন উপদেষ্টা, সরকারের মন্ত্রিপরিষদে যাঁরা আছেন সবাই সবার সহায়তা চাই। প্রধানমন্ত্রী বললে আমরা অন্যদের সঙ্গে কথাও বলব। আপনারা আসুন, বাংলাদেশ তো সবার, দেশকে গড়ে তুলি।’

মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় ওবায়দুল কাদের প্রশ্ন তোলেন, সংলাপ শব্দটি এল কোথা থেকে? তিনি বলেন, ‘সংলাপ নিয়ে আমরা তো কিছু বলিনি। কেউ যদি মনগড়া খবর পরিবেশন করেন, তাহলে তো কিছু করার নেই। আমি যে বক্তব্য রেখেছি, তার অডিও-ভিডিও ক্লিপ রয়েছে, সেখানে সংলাপের কোনো বিষয় নেই।’

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আগে ঐক্যফ্রন্ট, যুক্তফ্রন্ট, বিএনপি, বাম গণতান্ত্রিক জোট, ইসলামি জোট সব মিলিয়ে মোট ৭৫টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ করেছিলেন। সেই দলগুলোর নেতৃবৃন্দকে প্রধানমন্ত্রী আবারও গণভবনে আমন্ত্রণ জানাতে চান শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কোনো প্রয়োজন নেই। এখানে সংলাপ নিয়ে ধূম্রজাল কোথা থেকে এল? আমি তো সংলাপ শব্দটি উচ্চারণ করিনি। বলা হয়েছে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী আমন্ত্রণ জানাবেন, শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। একটু আপ্যায়নের ব্যবস্থাও থাকবে। এই ছিল আমাদের কথা। এখানে ধূম্রজাল কেন হবে, সংলাপ কেন হবে?’

সংলাপের বিষয়ে মন্ত্রী কাদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী একবারও সংলাপের কথা বলেননি। আমি বলেছি, তিনি (প্রধানমন্ত্রী) আমন্ত্রণ জানাবেন। আমি তো সংলাপের কথা বলিনি। কাজেই এ শব্দটি কোথা থেকে এল, আমি জানি না।’

 

Ads
Ads