টাঙ্গাইলে গৃহবধুকে হত্যার পর মাটি চাপা

  • ২৯-Oct-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: আব্দুস সাত্তার, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ::

টাঙ্গাইলের বাসাইলে ঝর্ণা রাণী দাস (৪৫) নামে এক সংখ্যা লঘু গৃহবধুকে হত্যার পর মাটিতে পুতে রাখে দুর্বৃত্তরা।
সোমবার সকালে বাসাইল পৌর এলাকার রায়বাড়ির প্রতিবেশীর ঘরের মাটি খনন করে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।এ
ঘটনায় ঘরের মালিক সাহাদত হোসেনের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম ও উজ্জল বেপারীকে আটক করেছে পুলিশ। 
নিহত ঝর্ণা দাস বাসাইল পৌরসভার রায়বাড়ীর সুনিল দাসের স্ত্রী। 

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাসাইল পৌর এলাকার রায়বাড়ির সাহাদত হোসেনের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম একই এলাকার ঝর্ণা দাসের কাছ থেকে ২৬ শত টাকা ধার নেয়। দীর্ঘদিন ধরে মনোয়ারা টাকাগুলো না দিয়ে বিভিন্ন তালবাহানা করে। পরে রোববার সকালে ঝর্ণা দাস মনোয়ারা বেগমের বাড়িতে টাকা চাইতে গেলে তাকে হত্যা করে ঘরের ভেতর মাটিতে পুঁতে রাখে মনোয়ারা বেগম। পরে ঝর্ণা দাসকে তার পরিবার বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ঘটনাটি বাসাইল থানা পুলিশকে অবহিত করে। একপর্যায় মনোয়ারা বেগমের স্বামী সাহাদত হোসেন স্থানীয় লোকদের সঙ্গে নিয়ে রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই লাশটি উদ্ধার ও স্ত্রী মনোয়ারা বেগমকে পুলিশে সোপর্দ করে। 

এ বিষয়ে বাসাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনিচুর রহমান বলেন, ‘মরদেহটি অভিযুক্তের ঘরের ভেতর থেকে মাটি খনন করে উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। এঘটনায় অভিযুক্ত মনোয়ারা বেগমকে আটক করা হয়েছে। পরে তার দেওয়া তথ্য মতে একই এলাকার মজিবর বেপারীর ছেলে উজ্জল বেপারীকে আটক করা হয়েছে। 

এদিকে অভিযুক্তদের ফাঁসির দাবিতে সোমবার সকালে সংখ্যালঘুরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ত্রিমোড় নামকস্থানে সমাবেশ করে।

Ads
Ads