জাতিসংঘে তুমুল বাকযুদ্ধে জড়ালেন ট্রাম্প-রুহানি

  • ২৬-Sep-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: সীমানা পেরিয়ে ডেস্ক ::

ইরানের উদ্দেশে ট্রাম্প বলেন, দেশটির জনগণ তাদের নেতাদের ওপর ক্ষুব্ধ। কারণ তারা কোষাগার থেকে কোটি কোটি ডলার আত্মসাৎ করছে এবং জনগণের ধর্মীয় অঙ্গীকার লুট করছে। আর এসব অর্থ দিয়ে প্রক্সি যুদ্ধ পরিচালনা করছে। এটি ভালো নয়।

এসময় নভেম্বরের ৫ তারিখের মধ্যে ইরানের শক্তিখাতে দ্বিতীয়বারের মতো নিষেধাজ্ঞার হুমকি দিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘ইরান খুব বাজে আচরণ করেছে। আমরা ইরানের সঙ্গে খুব ভালো একটি সম্পর্ক গড়ার অপেক্ষায় আছি। কিন্তু সেটি এখন হবে না।’

ট্রাম্পের পরে বক্তৃতা করতে এসে ইরানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেন দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘তেহরানের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের একক নিষেধাজ্ঞা আরোপ অর্থনৈতিক সন্ত্রাসের একটি ধরন।’ ইরানের সঙ্গে ছয় জাতিগোষ্ঠীর পরমাণু সমঝোতা চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বের হয়ে যাওয়া এবং তেহরানকে নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের মনোভাবের তীব্র সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রকে এর জন্য চড়া মাশুল দিতে হবে।’

এদিকে, দুই প্রেসিডেন্টের এই বাকযুদ্ধের পর ইরানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বার্তা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন। তিনি বলেন, ইরান যদি যুক্তরাষ্ট্র ও তাদের নাগরিক এবং যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অংশীদার কোনো রাষ্ট্রের ক্ষতি করে তাহলে তার চরম মূল্য দিতে হবে।

কয়েক দশকের বৈরিতার ধারাবাহিকতায় ইরান এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে গত মে থেকেই উত্তেজনা বাড়ছে। ওই সময় ট্রাম্প ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ২০১৫ সালে করা ইরানের পরমাণু চুক্তি থেকে সরে আসেন এবং তেহরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেন।

দুই দেশের প্রেসিডেন্টের বাকযুদ্ধ দেখতে এখানে ক্লিক করুন

Ads
Ads