ভোরের পাতা সম্পাদকের জন্মদিন আজ

  • ২০-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

এই জনম তব তরে কাঁদিব

‘বাঙালির জীবনে আগস্ট মাস শোকের মাস। ১৫ আগস্ট সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত, জেনারেল জিয়াসহ কতিপয় দেশদ্রোহী সেনাবাহিনীর সদস্যের যোগসাজশে হত্যা করা হয়। যে মানুষটি বুকে লালন করতেন বাঙালির অস্তিত্ব। স্বপ্ন দেখতেন নিজস্ব ভূখণ্ডের। বাঙালি জনগোষ্ঠীর অর্থনৈতিক মুক্তি। সহস্র বছর পর তার নেতৃত্বে স্বাধীনতা প্রাপ্তির তিন বছরের মধ্যেই বাংলার মাটিতেই সপরিবারে নিহত হতে হয়েছে। যা শুধু আমি নই, সমগ্র বাঙালির জন্য একটি কলঙ্কজনক অধ্যায়। তাছাড়া ওই ঘাতকচক্র ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা করে আধুনিক বাংলাদেশের নির্মাতা বঙ্গবন্ধুকন্যা, বাংলাদেশের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়।

নেতাকর্মীরা মানবঢাল তৈরি করে তার জীবন রক্ষা হলেও প্রাণ হারায় বঙ্গবন্ধুর লড়াকু সৈনিক আইভি রহমানসহ আরও ২৪ জন মুজিব-সেনা। আহত হন আরও ৫০ জন নিরপরাধ কর্মী। তাই এই আগস্ট মাসে আমার জন্ম হলেও এ জনমের প্রতি আমার কোনো মোহ নেই। যে মাতৃগর্ভ থেকে এই জমিনের পতিত শিশুটি কী করে সেই মহান মানুষটির কথা বিস্মৃতি হয়। যে মানুষটিকে ঘিরে গড়ে উঠেছে হাজার বর্ষের বাঙালির স্বপ্নসাধ। আমিও সেই স¦প্নভুক মানুষ। জন্মের পর থেকে আমিও ক্রন্দন করছি পিতা। কাঁদো বাঙালি কাঁদো। জন্মদিন নয়, এই জনম তব তরে কাঁদিব।’

পাঠকনন্দিত দৈনিক ভোরের পাতা, পিপলস টাইম এবং পাক্ষিক অর্থপাতার সম্পাদক ও প্রকাশক ড. কাজী এরতেজা হাসানের জন্মদিন আজ। ভোরের পাতা পরিবার ১২টা ১ মিনিটে কেক এবং ফুল নিয়ে তার জন্মদিন পালনের উদ্যোগ নিলে জলভরা চোখে এ জন্মদিন পালনে অপারগতা প্রকাশ করে ড. কাজী এরতেজা হাসান উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। তিনি আরও বলেন, ‘পিতা হারানো সন্তানের জন্ম শোকার্ত আগস্ট মাসে আমি ব্যথিত, বেদনার্ত। তাই আগস্ট মাসে আমার জন্মদিনের কোনো অনুষ্ঠান হতে পারে না। বাবা আমাকে জন্ম দিয়েছেন। আমি তার প্রতি কৃতজ্ঞ। কিন্তু যে মানুষটি দিয়েছেন আমার জন্য একখণ্ড জমিন, ৫৬ হাজার বর্গমাইলের সবুজাভ ভূমি, যার আলো-বাতাসে বেড়ে ওঠা এই আমি। সেই বঙ্গবন্ধুর মহাপ্রয়াণ মাসে বেদনার্ত হৃদয়ে আমার পক্ষে জন্মদিন পালন করা সহজ নয়। যারা করেন তারা দেশ ও মাটির প্রতি দায়বদ্ধ নয়।’ সত্য ও সুন্দরের রাখাল রাজার প্রয়াণে ব্যথিত ড. কাজী এরতেজা হাসান এর কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন, ‘আগস্ট মাসে আমার জন্মদিন হলেও এই মাসটি অত্যন্ত শোকের ও বেদনার। আগস্ট মাসের এই মর্মান্তিক শোকার্ত স্মৃতিকে ধারণ করে এবং নিহতদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনপূর্বক ড. কাজী এরতেজা হাসান আজ তার জন্মদিন পালন করতে রাজি হননি।

আমাদের জাতীয় জীবনে আগস্ট মাস অত্যন্ত বেদনাবিধুর, শোকাবহ ও মানবিক বিপর্যয়ের নজির হয়ে আছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের জন্য এ মাসটি শুধু যে কষ্টকে বহন করে তা নয়, মহাকালের হিসাব-নিকাশে কালিমালিপ্ত একটি অধ্যায়েরও সূচনা করেছে। বাংলার আকাশ-বাতাসে যে শোকার্ত মাতম কাল থেকে কালান্তরে আমাদের করেছে অপরাধী, সেই মহাকালের ধারক আমরা। জাতির পিতার হত্যাসহ এমন নির্মম সব ঘটনাবহুল স্মৃতি এই আগস্ট মাসকে ঘিরে জড়িয়ে আছে, তা কি বিস্মৃতির অতলে হারিয়ে যাওয়ার মতো? কখনই নয়। আমরা বাঙালি জাতি তা কি ভুলতে পারি? এ প্রশ্নগুলো আমাদের প্রতিনিয়ত তাড়া করে। জোট সরকারের আমলে মৌলবাদ উত্থানের মধ্য দিয়ে ১৭ আগস্ট সারাদেশে যে ভয়াবহ সিরিজ বোমা হামলা চালানো হয়, সে ঘটনা মনে এলেই আমাদের গা শিউরে ওঠে। প্রশ্ন জাগে, আমরা কি আফগানিস্তানে বাস করছি? না, ঠিক তা নয়। তা হতে দেননি আমাদের গণতন্ত্রের মানসকন্যা শেখ হাসিনা। আশা করি কোনোদিন তিনি তা হতেও দেবেন না। ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বাংলাদেশের মেহনতি মানুষের কণ্ঠস্বর, এ দেশকে মধ্যম আয়ের স্থপতি, ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা ও নন্দিত নেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে যে ঘৃণ্য তা-ব চালানো হয়েছিলÑ এ দেশের মানুষ তার সম্যক ধারণা রাখে। দুবছর আগে গুলশান হলি আর্টিজান ও শোলাকিয়ায় ঘটে যাওয়া বেদনাময় ঘটনা কি জাতি ভুলতে পারবে? বাংলাদেশের অগণিত মানুষ যে কষ্টকে লালন করে বাংলাদেশের ইতিহাসের এই ক্রান্তিকালের সেই দুর্বিষহ ক্ষণে তার জন্মদিন পালন না করায় আমরা তার প্রতি সশ্রদ্ধ সম্মান জানাই। তিনি যে ঔদার্যের পরিচয় দিলেন, আমরা আশা করি তা বাংলাদেশের মানুষের কাছে একটি উজ্জ্বল মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে। আগস্ট মাস জাতীয় শোকের মাস। এই মাসে আমাদের হারাতে হয়েছে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ কীর্তিমান বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ঘটেছে পৃথিবীর ভয়াবহতম হত্যাযজ্ঞ যা মানব ইতিহাসের নিকৃষ্টতম উদাহরণ। বাঙালি জাতির জন্য আগস্ট অভিশপ্ত মাস। জাতির সমগ্র ক্রন্দন এক হয়ে পদ্মা-মেঘনা-যমুনার জলে বহমান। তাই এই দিনে উৎসব নয়, শোকার্ত কান্না।

কীর্তিমান এই কলমসৈনিক দৈনিক ভোরের পাতা সম্পাদক ড. কাজী এরতেজা হাসান আজকের এই দিনে সাতক্ষীরার সুলতানপুরের কাজীপাড়ায় স্বনামধন্য কাজী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা কাজী আবদুল মান্নান ও মা মিসেস আজিজা মান্নান। তরুণ বয়সেই দেশ ও মানুষের কল্যাণে তিনি দৈনিক ভোরের পাতা, দ্য ডেইলি পিপলস টাইম, পাক্ষিক অর্থপাতা ও ট্রাভেলস অটোমোবাইল অ্যান্ড হাউজিং, জেড এন্টারটেইনমেন্ট লি. (প্রস্তাবিত টিভি চ্যানেল), বাংলা রেডিও লি. নিয়ে গড়ে তোলেন ভোরের পাতা গ্রুপ অব কোম্পানিজ। তিনি একাধারে বাংলাদেশ মানবাধিকার উন্নয়ন কমিশন, সাতক্ষীরা পাওয়ার প্লান্ট, সেল করপোরেশন বাংলাদেশ, পেট্রোন লিমিটেড (আমেরিকা-বাংলাদেশ জয়েন্ট ভেঞ্চার), মারবেলা গ্রিন সিটি লিমিটেড (স্পেন-বাংলাদেশ জয়েন্ট ভেঞ্চার), পদ্মা গ্লোবাল বিজনেস সেন্টার (স্পেন-বাংলাদেশ জয়েন্ট ভেঞ্চার), রূপান্তর ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড, নিয়ামুল মাওয়া হাউজিং প্রা. লিমিটেড, কার্নিভাল মোশন পিকচার, কোরাম ফিন্যান্স সার্ভিস প্রা. লিমিটেড, দ্য ল’ইয়ারস অ্যান্ড জুরিস্ট, ক্রিয়েটিভ আই লিমিটেড, জেড ই এস ট্রেডিং কোম্পানি প্রা. লিমিটেড, জেড ই এস অটো হাউজ প্রা. লিমিটেড, জেড ই এস ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস প্রা. লিমিটেড, জেড ই এস কনস্ট্রাকশন প্রা. লিমিটেড প্রেসিডেন্ট, জেড ই এস ওভারসিজ প্রা. লিমিটেড ইরান-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি, ব্যাংক ক্রেডিট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ, ফরেন ইনভেস্টর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের চেয়ারপারসন, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশ সংবাদপত্র পরিষদ, সিঙ্গাপুর-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি, বাংলাদেশ কনক্রিট প্রডাক্টস অ্যান্ড ব্লক ম্যানুফেকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে যুক্ত, ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি, ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক, নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ট্রাস্টের সম্মানিত সদস্য। এছাড়া স্বনামধন্য জেড ই এস ট্রেডিং কোম্পানির মাধ্যমে ইউরোপসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমদানি-রফতানি ব্যবসা করে খ্যাতি অর্জন করেছেন।

গত বছরের ১৪ মে বিপুল ভোটে ব্যবসায়ী ব্যক্তিত্ব হিসেবে এফবিসিসিআইর পরিচালক নির্বাচিত হন। মেধা ও সৃজনশীল সম্পাদনায় ইতোমধ্যেই তার সম্পাদিত কাগজগুলো পাঠকপ্রিয়তা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। জনপ্রিয় দৈনিক ভোরের পাতা ও পিপলস টাইমকে ছড়িয়ে দিয়েছেন এ দেশটির ৫৬ হাজার বর্গমাইলের প্রতিটি জেলা, উপজেলা ও গ্রাম পর্যায়ে। নিপীড়িত-নির্যাতিত গণমানুষের জন্য তিনি একজন সাহসী কলমসেনা। তার এই জন্মদিনে দৈনিক ভোরের পাতা পরিবারের পক্ষ থেকে আমরা জানাই প্রাণঢালা শুভেচ্ছা। আমরা তার দীর্ঘায়ু কামনা করি। পাশাপাশি পরম করুণাময়ের কাছে প্রার্থনা করি, অতীতের মতো তিনি যেন আগামীতেও গণমানুষের পক্ষে থাকতে পারেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি এক সন্তানের জনক। তার সন্তান কাজী জারজিস বিন এরতেজা পবিত্র কোরআন হেফজসহ কানাডিয়ান ইন্টারন্যাশনালে পড়ছেন। নির্ভীক সাংবাদিক-মানবাধিকারকর্মী ড. কাজী এরতেজা হাসান সংবাদপত্র শিল্প, মুক্ত সাংবাদিকতা ও মানবাধিকার উন্নয়নে অবদানের জন্য বঙ্গবন্ধু স্মৃতিপদক, শেখ রাসেল সম্মাননা, মহাত্মা গান্ধী অ্যাওয়ার্ড, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি সম্মাননা, অতীশ দীপঙ্কর স্বর্ণপদক, মাদার তেরেসা স্বর্ণপদক, নেলসন ম্যান্ডেলা পুরস্কার, মওলানা ভাসানী স্মৃতিপদকসহ অসংখ্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

গুণী এ মানুষের জন্মদিনে ভোরের পাতা পরিবার তার সুস্থ, সুদীর্ঘ, বর্ণাঢ্য ও কর্মময় জীবন কামনা করছে।

Ads
Ads