ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে সামীম আফজালের বিদায়

  • ৩০-Dec-২০১৯ ০৮:০১ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

অবশেষে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) মহাপরিচালক (ডিজি) পদ থেকে বিদায় নিচ্ছেন সামীম মোহাম্মদ আফজাল। তার স্থলে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মু. আ. হামিদ জমাদ্দারকে।

সোমবার (৩০ডিসেম্বর) এক অফিস আদেশে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ পরিবর্তন আনে। দীর্ঘ ১১ বছর পর ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ডিজি পদে পরিবর্তন আনা হলো।

আদেশে বলা হয়, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজালের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের মেয়াদ ৩০ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে শেষ হবে। ইসলামিক ফান্ডেশনের কার্যাবলী সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের লক্ষ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সংস্থা) জনাব মু. আ. হামিদ জমাদ্দারকে নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত হিসেবে আর্থিক ক্ষমতাসহ মহাপরিচালক, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রদান করা হলো।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক যোগদান না করা পর্যন্ত তিনি এ পদে বহাল থাকবেন এবং বিধি মোতাবেক দায়িত্ব ভাতা প্রাপ্য হবেন।

সাবেক বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা সামীম মোহাম্মদ আফজাল বিগত ১১ বছর ধরে ইসলামিক ফাউন্ডেশন মহাপরিচালক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। চাকরির বয়স শেষে ২ দফায় তিনি চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পান তিনি। তার বিরুদ্ধে ব্যাপক দুনীতি, স্বজনপ্রীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে। এ নিয়ে কয়েকমাস আগে তার সঙ্গে কাজ না করার ঘোষণা দেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

অভিযোগ উঠেছে, সামীম আফজালের ঢাকার মোহাম্মদপুরের জহুরী মহল্লা, বসিলা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে নামে-বেনামে প্রচুর সম্পত্তি রয়েছে। তার বিরুদ্ধে ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমিতে প্রশিক্ষণরত ইমামদের সামনে ব্যালি নৃত্য ও কাঙ্গালিনী সুফিয়ার গান আয়োজনসহ বিভিন্ন অনৈসলামিক কার্যকলাপেরও অভিযোগ রয়েছে।

দোকান বড় করতে আট মাস আগে এক রাতে বায়তুল মোকাররম মসজিদের নিচতলার একটি পিলার ভেঙে ফেলা হয়। এতে জাতীয় মসজিদের মূল ভবন ঝুঁকিতে পড়ে বলে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) একাধিক তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়। কিন্তু এ জন্য দায়ী দোকানমালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। উল্টো একটি তদন্ত কমিটির প্রধান মসজিদ ও মার্কেট বিভাগের পরিচালককে বরখাস্ত করে বিতর্কে পড়েন সামীম আফজাল।

২০০৯ সালের জানুয়ারিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক হিসেবে নিয়োগ পান সামীম মোহাম্মদ আফজাল। গত ১০ জুন ক্ষমতার অপব্যবহার ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে ইফা ডিজিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় ধর্ম মন্ত্রণালয়। তার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিলের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে কেন অবহিত করা হবে না- তা ৭ কার্যদিবসের মধ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয়কে লিখিতভাবে জানাতে বলা হয়।

সম্প্রতি বাংলাদেশে মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ের অধীন সিভিল অডিট অধিদপ্তরের এক বিশেষ নিরীক্ষা প্রতিবেদনে তার বিরুদ্ধে ৯শ’ কোটি টাকা অনিয়মের অভিযোগ উঠে এসেছে।

Ads
Ads