আজ ভালুকা মুক্ত দিবস

  • ৮-Dec-২০১৯ ১২:২১ অপরাহ্ন
Ads

:: মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ::

আজ ৮ ডিসেম্বর, ময়মনসিংহের ভালুকা মুক্ত দিবস। মুুক্তিযুদ্ধের সাব-সেক্টর কমান্ডার মেজর আফসার বাহিনীর কাছে ভালুকা ক্যাম্পে পাক হানাদার বাহিনী আতœসমর্পনের মধ্যদিয়ে এ দিনে মুক্ত হয় ভালুকা। পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে জাতিকে মুক্ত করতে ময়মনসিংহ দক্ষিন ও ঢাকা উত্তর নিয়ে এফজে-১১নং সাব-সেক্টর গড়ে তোলেন বৃটিশ ভারতের অবসরপ্রাপ্ত সুবেদার মেজর আফসার উদ্দিন আহম্মেদ।

শুরুতে ১টি মাত্র রাইফেল ও ৮ জন সদস্য নিয়ে উপজেলার মল্লিকবাড়ী গ্রামে গোপনে এ বাহিনী গঠিত হলেও একের পর এক সফল অভিযানে অল্প সময়ের মধ্যে সাড়ে ৪ হাজার মুক্তিযোদ্ধার বিশাল বাহিনীতে পরিণত হয়। ভারতের মেঘালয় থেকে প্রশিক্ষন ও গোলাবারুদ সংগ্রহ করে আফসার বাহিনী অপ্রতিরোদ্ধ গতিতে পাক হানাদারদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলে। এ বাহিনীর মুক্তিযোদ্ধারা ভালুকার ঐতিহাসিক ভাওয়ালিয়াবাজু নামক স্থানে শিমুলিয়া নদীর পাড়ে পাক বাহিনীকে পরাস্ত করতে দীর্ঘ ৪৮ ঘন্টা একটানা যুদ্ধ করে। এ সময় মল্লিকবাড়ী গ্রামের আব্দুল মান্নান নামে ৮ম শ্রেনীর এক ছাত্র শহীদ হন। ভালুকার মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে তিনিই প্রথম শহীদ মুক্তিযোদ্ধা।

দু’দিনের বিরতিহীন যুদ্ধে শতাধিক পাক সেনার মৃত্যু ঘটে। এ সফল অভিযান তৎকালীন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র ছাড়াও অল-ইন্ডিয়া রেডিও এবং বিবিসি সহ আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার হয়। দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামে আফসার বাহিনীর ৪৭ জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন।  ভালুকা মুক্ত দিবস পালনের লক্ষে স্থানীয় প্রশাসন ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ দিনব্যাপী নানা কর্মসূচী গ্রহন করেছে।
 

Ads
Ads