সাকিবের সঙ্গে এ কেমন প্রতারণা ভারত আর্মির!

  • ৬-Dec-২০১৯ ০৮:৪৮ অপরাহ্ন
Ads

:: স্পোর্টস ডেস্ক ::

ভারতীয় ক্রিকেট সমর্থকদের সবথেকে বড় গ্রুপ ‘ভারত আর্মি’। প্রতি বছর বিশ্বের সেরা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারকে 'প্লেয়ার অব দ্য ইয়ার' পুরস্কার দিয়ে থাকে গ্রুপটি। বরাবরের মতো এবারও সেই পুরস্কারটি দিয়েছে তারা। সেটি নিয়ে সমালোচিতও হতে হচ্ছে ভারত আর্মিকে।

২০১৯ সালে ভারত আর্মির বর্ষসেরা ক্রিকেটারের তালিকায় মনোনীত হয়েছিলেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান, অস্ট্রেলিয়ার স্টিভেন স্মিথ, ইংল্যান্ডের বেন স্টোকস আর নিউজিল্যান্ডের কেন উইলিয়ামসন। বর্ষসেরা হওয়ার দৌড়ে স্বভাবতই এগিয়ে ছিলেন সাকিব। কেননা ২০১৯ সালটা ব্যাটে বলে স্বপ্নের মতো কেটেছে বাংলাদেশি অলরাউন্ডারের। বিশেষ করে ওয়ানডে বিশ্বকাপে তো সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন। ক্রিকেটের বৈশ্বিক টুর্নামেন্টে ৮ ম্যাচ খেলে ২ সেঞ্চুরি ও ৫ হাফসেঞ্চুরিতে সর্বমোট ৬০৬ রান করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। বল হাতেও কম যাননি। নেন ১১ উইকেট।

এমন একটি স্বপ্নময় বছর কাটানো সাকিব বছরের শেষ সময়ে এসে শুনেন দুঃসংবাদ। জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করার অপরাধে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে দুই বছরের জন্য (এক বছর স্থগিত) নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি। তারপরও বছরজুড়ে ঈর্ষণীয় পারফরম্যান্সের সুবাদে ভারত আর্মির আন্তর্জাতিক বর্ষসেরা পুরুষ খেলোয়াড় ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন পান তিনি।

এর মধ্যে আবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে পোলেরও (ভোট) আয়োজন করে ভারত আর্মি। দর্শকরা সেখানে ভোট দিয়েছেন। আর সেই ভোটের ৮২ শতাংশই পড়েছে সাকিবের নামে। কেন উইলিয়ামসন ৬ এবং স্টিভ স্মিথ পান ৪ ভাগ ভোট।

তারপরও সাকিবকে নয়, বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে স্টোকসকে। স্বাভাবিকভাবেই সমালোচিত হচ্ছে ভারত আর্মি। সাকিবের ভক্তরা তাকে ভোট দিয়ে এতোদূর এগিয়ে নিলেও তাদের হতাশই করেছে ভারত আর্মি।

ভারত আর্মির এমন সিদ্ধান্তে বেজায় চটেছেন ক্রিকেটভক্তরা। অনেকে এটাকে ইতিহাসের জঘন্যতম প্রতারণা হিসেবে অভিহিত করছেন। ক্ষুব্ধ সমর্থকরা রীতিমতো তোপ দাগছেন গোষ্ঠীটির ওপর। তাদের প্রশ্ন, ভারত আর্মিই যদি সেরা খেলোয়াড় নির্বাচন করবে, তা হলে পোলের নামে এই তামাশা করার কী দরকার ছিল?

Ads
Ads