খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি পিছিয়ে বৃহস্পতিবার

  • ২৫-Nov-২০১৯ ১২:৩১ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি ফের পিছিয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার নতুন শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছে আপিল বিভাগ।

সোমবার (২৫ নভেম্বর) প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চের কার্যতালিকায় খালেদা জিয়ার আবেদনটি থাকলেও তা পেছানো হয়। আপিল বিভাগ বলেছে, এই আবেদনটি পুরো বেঞ্চ শুনবেন।

এর আগে ১৭ নভেম্বর চেম্বার বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান এই আবেদনটি শুনানির জন্য আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। ১৪ নভেম্বর আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় জামিন চেয়ে আপিল আবেদন করা হয়। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত বছরের ২৯ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে সাত বছর কারাদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত। এরপর এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন খালেদা জিয়া। একই সঙ্গে জামিনের আবেদন করা হয়। হাইকোর্ট গত ৩১ জুলাই জামিনের আবেদন সরাসরি খারিজ করে দেন।

এই খারিজের রায়ের বিরুদ্ধে গত ১৪ নভেম্বর আপিল করেন খালেদা জিয়া। এ আবেদনে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালত গত ১৭ নভেম্বর এক আদেশে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে ২৫ নভেম্বর শুনানির দিন ধার্য করেন। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল তৈরি করা আপিল বিভাগের কার্যতালিকায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন ২৮ নম্বরে রাখা হয়েছে। গত ৩০ এপ্রিল জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাত বছরের দণ্ডের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে অর্থদণ্ড স্থগিত এবং সম্পত্তি জব্দ করার ওপর স্থিতাবস্থা দিয়ে দুই মাসের মধ্যে ওই মামলার নথি তলব করে।

২০ জুন বিচারিক আদালত থেকে মামলার নথি হাইকোর্টে পাঠানো হয়। ৩১ জুলাই বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এসএম কুদ্দুস জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ তার জামিন আবেদন খারিজ করে দেন। ১১ সেপ্টেম্বর আবার জামিন আবেদন ফেরত দেন বিচারপতি ফরিদ আহমেদ ও বিচারপতি এএসএম আবদুল মোবিনের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

বিএনপি চেয়ারপারসন ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে রয়েছেন। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছর কারাদণ্ড পেয়ে কারাগারে যান সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। পরে আপিলের পর হাইকোর্টে তা বেড়ে ১০ বছর হয়।

Ads
Ads