ঢাকা মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের শীর্ষপদের দৌঁড়ে এগিয়ে ক্লিন ইমেজের আনিসুর রহমান আনিস 

  • ২-Nov-২০১৯ ০৮:১৪ অপরাহ্ন
Ads

:: সিনিয়র প্রতিবেদক ::

আনিসুর রহমান রহমান সরকার, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-৯ আসনে প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছিলেন বেশ জোরেশোরেই। দলীয় মনোনয়ন না পেলেও দলের প্রার্থীকে জেতাতেই কাজ করেছেন নিরলসভাবে। এরপর তিনি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরও নির্বাচিত হয়েছেন জণগণের পাশে থেকেই। এখনো তাদের জন্যই নিরলসভাবে দিবারাত্রি ছুটে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের যেকোনো নেতাকর্মীদের বিপদের সময়। আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ঢাকা মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলনে শীর্ষ পদে অনেকে দাবিদার থাকলেও তাদের সবার থেকে অনেকটাই ক্লিন ইমেজ নিয়ে এগিয়ে রয়েছেন আনিসুর রহমান সরকার (আনিস)। 

ইতিমধ্যেই ডিএসসিসি'র ২ নং ওয়ার্ডকে মাদকমুক্ত, চাঁদাবাজ ও টেন্ডারবাজি মুক্ত করতে একাই লড়াই করে যাচ্ছেন। এমনকি সাম্প্রতিক সময়ে চলমান ক্যাসিনো ও দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে অনেক কাউন্সিলরের নাম উঠে আসলেও সেখানে আনিসুর রহমান আনিসের বিরুদ্ধে কোনো মহল থেকেই কোনো ধরণের অভিযোগ উঠেনি। গোড়ান, মাদারটেক ও বনশ্রী এলাকার বিশাল এলাকাজুড়ে জলাবদ্ধতা থেকে শুরু করে রাস্তাঘাটের উন্নয়নে ভূয়সী প্রশংসীয় কাজ করে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জন করা আনিস এবার স্বেচ্ছাসেবক লীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের শীর্ষ পদে লড়াই করতে যাচ্ছেন। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অত্যন্ত পরিচ্ছন্ন মানসিকতা নিয়ে নেতাকর্মী থেকে শুরু করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের প্রায় সব ধরণের মানুষের সঙ্গেই সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলেছেন দীর্ঘদিন ধরে। ওয়ান ইলেভের দুঃসময়ে মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে শেখ হাসিনার মুক্তি আন্দোলন থেকে শুরু করে রাজপথে সব সময়ই সক্রিয় ছিলেন আনিসুর রহমান। এমনকি ২০০৬ সালের ২৮ অক্টোবর বিএনপি জামায়াতের তাণ্ডবের মুখে যে লগি বৈঠা আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। এমনকি ওই ঘটনায় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ যাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছিল, সেই মামলার তিন নম্বর আসামিও করা হয়েছিল আনিসুর রহমান সরকার আনিসকে। 


উল্লেখ্য, মো. আনিসুর রহমান সরকার ১৯৯৪ সালে স্কুল জীবনেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে রাজনীতির সাথে যুক্ত হন। তখনকার সময়েই সাবেক ২৫ নং ও বর্তমান ডিএসসিসি ২নং ওয়াডের্র শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদ থেকে রাজনীতির পথচলা শুরু। তৎকালীন মেয়র মো. হানিফের নির্বাচনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করার পাশাপাশি ১৯৯৬ সালে আবুজর গিফার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতি শুরু। পরবর্তীতে ১৯৯৭ সালে গোড়ান আদর্শ স্কুল ইউনিট ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন।

১৯৯৯ সালে ডিএসসিসি ২নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালনের পর ২০০২ সালে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং পরবর্তীতে ২০১০ সালে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন।

উল্লেখ্য, আগামী ১১ নভেম্বর রাজধানীর কাকরাইলের ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইইবি) মিলনায়তনে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এবারের সম্মেলনে শীর্ষ পদে ক্লিন ইমেজের তরুণ, মেধাবি, পরিশ্রমী ও ত্যাগী নেতাদেরই মূল্যায়ণ করা হবে বলে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ঘোষণা দিয়েছেন।

Ads
Ads