টুইটারের কাছে যে দুই অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়েছে সরকার!

  • ২-Nov-২০১৯ ০১:০৬ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::  

চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে দুটি অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে টুইটার কর্তৃপক্ষের কাছে তথ্য চেয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু টুইটার কর্তৃপক্ষ কোনো তথ্য সরবরাহ করেনি।

প্রতিষ্ঠানটির এক ট্রান্সপারেন্সি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুন মাসের মধ্যে দুটি অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত তথ্য জানতে চেয়ে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়।

টুইটার তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইটে এ ট্রান্সপারেন্সি প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেছে। মূলত ছয় মাস পর পর এ ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ করে থাকে টুইটার। যেখানে কোনো দেশের সরকারের পক্ষ থেকে তাদের কাছে কত তথ্য জানতে চাওয়া হয় এবং টুইটার কত শতাংশ অনুরোধ রেখেছে সে সম্পর্কে জানানো হয়।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, এ বছরের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত টুইটারের কাছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে মোট ৭ হাজার ৩০০ অনুরোধ গেছে। যার মধ্যে নির্দিষ্ট হিসেবে ১২ হাজার ৫১৯ অ্যাকাউন্টের তথ্য জানতে চেয়েছে টুইটারের কাছে। এর মধ্যে ৪৮ শতাংশ অ্যাকাউন্টের তথ্য সরবরাহ করেছে টুইটার।

এছাড়াও টুইটার কর্তৃপক্ষ লিগ্যাল ডিমান্ড হিসেবে ১৭ হাজার ৫১০টি অনুরোধ পায়। সেসব অনুরোধে মোট ৫০ হাজার ৭৫৭টি অ্যাকাউন্ট সরিয়ে নেওয়ার অনুরোধ পায় টুইটার। তারপর সবকিছু বিচার বিশ্লেষণ করে টুইটার ৩৫৪টি অ্যাকাউন্ট এবং ২ হাজার ১০৩টি টুইট সরিয়ে নেয়।

এর আগে গত বছরের প্রথম ছয় মাসে বাংলাদেশ একটি অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়েছিল। তখনও সরকারকে কোনো তথ্য সরবরাহ করেনি টুইটার। ২০১৬ সালের জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ সরকারের চাওয়া ৪টি অ্যাকাউন্টের ১০০ শতাংশ তথ্য সরবরাহ করেছিল টুইটার। এছাড়া ২০১৫ সালের জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ থেকে ২৫টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়ে ১০টি অনুরোধ পেয়েছিল টুইটার, যার ৬০ শতাংশ তথ্য সরবরাহ করেছিল।

Ads
Ads