বিপিএল খেলোয়াড় তৈরির জায়গা নয়: সাকিব

  • ১৯-Oct-২০১৯ ০৭:৫৩ অপরাহ্ন
Ads

:: স্পোর্টস ডেস্ক ::

২৫ তারিখ থেকে শুরু হবে ভারত সফরের ক্যাম্প। ৩ নভেম্বর দিল্লিতে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট সিরিজ শেষে আগামি ২৭ নভেম্বর দেশে ফিরেই বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা অংশ নিবে ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’ এ। বিপিএলের এবারের আসর শুরু আগামি ৬ ডিসেম্বর।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) একটি নতুন নিয়ম করেছে যে, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) প্রতি ইনিংসে লেগস্পিনার দিয়ে অন্তত চার ওভার বল করাতে হবে। বিসিবির নতুন এই নিয়মের সম্পূর্ণ বিপরীত অবস্থানে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তিনি বলেছেন, টি-টোয়েন্টি লিগ দিয়ে খেলোয়াড় তৈরির প্রত্যাশা করা যায় না।

সম্প্রতি লেগস্পিনের প্রতি খুব গুরুত্ব দিচ্ছে বিসিবি। জাতীয় লিগের চলতি আসরের প্রথম দুই রাউন্ডে একাদশে একজনও লেগস্পিনার না রাখায় ঢাকা বিভাগ ও রংপুর বিভাগ দলের কোচকে বরখাস্ত করে বাংলাদেশের ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থাটি।

লেগস্পিন ইস্যু নিয়ে সাকিব আল হাসান বলেছেন, ‘আমি মনে করি, আত্মবিশ্বাসী ও ধারাবাহিক হতে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে একজন লেগস্পিনার অনেক ওভার বল করা উচিৎ। বিপিএল হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের একটি প্রতিযোগিতা। এখানে এমন একটি পরিবেশ থাকে যেন, আপনি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছেন। আপনি আন্তর্জাতিক পর্যায়ের ক্রিকেটারদের সঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করেন। এটা খেলোয়াড় তৈরির জায়গা নয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘অনেক বছর ধরে সিনিয়র টিমের জন্য আমরা লেগস্পিনার নির্বাচন করি না। কিন্তু হঠাৎ করে আমরা পরিকল্পনা করলাম যে, বিপিএলে সাতজন লেগস্পিনার অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। সিদ্ধান্তটি বিস্ময়কর মনে হয়েছে। একটি সিদ্ধান্ত। তারপরও আমি বলব, বোর্ড ভালো মনে করেছে বলেই সিদ্ধান্তটি নিয়েছে।’

জানা গেছে, বিপিএলে একাদশে লেগস্পিনার ও ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার গতির বোলার অন্তর্ভুক্তির সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট থেকে এসেছে। সিদ্ধান্তটি ঘোষণার সময় বিসিবি পরিচালক মাহবুবুল আনাম বলেছিলেন, ‘এই বিপিএলের মাধ্যমে বিসিবি চায়, টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা উন্নতি করুক। সুতরাং, আমরা নিশ্চিত করতে চাই যে, আমাদের ব্যাটসম্যান ও বোলাররা যেন যথেষ্ট সুযোগ পায়।’

Ads
Ads