আরও বিনিয়োগ করুন, মার্কিন ব্যবসায়ীদের আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী

  • ২৭-Sep-২০১৯ ০৫:৩৮ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

বাংলাদেশের উদার বিনিয়োগ নীতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মার্কিন ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়ানোর জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় দুপুরে লোটে নিউইর্য়ক প্যালেসে যুক্তরাষ্ট্রের চেম্বার অব কমার্স আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে উদার বিনিয়োগ নীতি বাংলাদেশের উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্পর্ক প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আমাদের দ্বিতীয় বৃহত্তম বাণিজ্য ও বৃহত্তম বিনিয়োগ অংশীদার তা দেখে আমি খুশি। লাভ ও সমৃদ্ধির অংশীদারিত্বের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশের সঙ্গে থাকতে পারেন।

আইনের মাধ্যমে বৈদেশিক বিনিয়োগের সুরক্ষা, কর অবকাশ সুবিধা, মূলধন, যন্ত্রপাতি আমদানিতে শুল্ক ছাড়, লভ্যাংশ ও পুঁজির সহজ প্রত্যাবাসনসহ বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সরকারে দেওয়া বিভিন্ন সুবিধার কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

বিদেশি বিনিয়োগের সুবিধার জন্য বাংলাদেশে ওয়ান স্টপ সার্ভিস সুবিধাসহ ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা, হাইটেকপার্ক গড়ে তোলার কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশে স্থিতিশীল অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং গতবছর জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ অর্জনের কথা তুলে ধরেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে তার নেতৃত্বাধীন সরকার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ বাড়ছে। যা দেশটির প্রতি বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আস্থার প্রতিফলন।

বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগ বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পাঁচ বছরে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলার অতিক্রম করেছে, যদিও যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক ও প্রযুক্তি সক্ষমতার তুলনায় এ বিনিয়োগ অনেক কম।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম সবজি উৎপাদনকারী, চতুর্থ বৃহত্তম চাল উৎপাদনকারী এবং পঞ্চম বৃহত্তম অভ্যন্তরীণ মাছ উৎপাদনকারী দেশ এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম তৈরি পোশাক রপ্তানিকারক দেশও বাংলাদেশ।

ওষুধ, সিরামিকস, জাহাজ নির্মাণ, চামড়া এবং তথ্য-প্রযুক্তির মত সম্ভাবনাময় খাতগুলোর কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশে সম্পর্ক প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ২০০৯ সালে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই দু'দেশের সম্পর্কের বিকাশ ঘটেছে এবং বর্তমানে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সবচেয়ে ভালো সম্পর্ক বিরাজ করছে।

বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়ালে গতবছরে দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ নয় বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হওয়ার কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান প্রমুখ।

এর আগে সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে লোটে প্যালেস নিউইয়র্কে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের কো-চেয়ার বিল গেটস, আইসিসি প্রসিকিউটর ফাতো বেনসুদা, জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপো গ্রানডি, ইউনেস্কোর সাবেক মহাপরিচালক ইরিনা বোকোভা।

Ads
Ads