সাবেক এমপি রানার বিরুদ্ধে থানায় ডায়েরি করলেন তরুণ আ'লীগ নেতা রনি

  • ২৭-Sep-২০১৯ ০৫:১৪ অপরাহ্ন
Ads

ভোরের পাতা ডেস্ক

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ- কমিটির সদস্য মেহেদি হাসান রনির নামে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদের বিরুদ্ধে রাজধানীর পল্টন মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন তিনি।

গত ২৪ সেপ্টেম্বর 'সংবাদ প্রতিদিন' নামক অনলাইন নিউজ পোর্টালে "কুড়েঘর হতে কোটিপতি ছাত্রলীগ নেতা মেহেদি হাসান রনি" এই শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। যার প্রতিবাদে তিনি গতকাল (২৬ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পল্টন মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। যার নম্বর-১৭২৫। জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন, সংবাদ প্রতিদিনের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এস, এম রহমতুল্লাহ, নির্বাহী সম্পাদক এইচ কে শরীফ সালেহীন, বার্তা সম্পাদক অনিমেষ দাশ এবং ক্রাইম রিপোর্টার টাঙাইলের মাধ্যমে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। যার উদেশ্য তাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করা। উক্ত সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর শামীম আল মামুন নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করা হয়। মূলত আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হত্যা মামলার আসামী আমানুর রহমান খান রানা, মুক্তি ও শামীম আল মামুন একত্রে ষড়যন্ত্র করে ওই মিথ্যা সংবাদটি প্রকাশে ভূমিকা রেখেছে। যারা 'সংবাদ প্রতিদিন' পোর্টালের দায়িত্বে রয়েছে এবং যারা উদ্দেশ্য প্রণোদিত সংবাদটি ফেসবুকে ভাইরাল করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য তিনি এই সাধারণ ডায়েরি করেছেন। 

এ বিষয়ে মেহেদি হাসান রনি বলেন, আমি দীর্ঘদিন রাজনীতি করি। আমাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য সংবাদটি প্রকাশ করা হয়েছে। আমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আর্দশ ধারণ করে রাজনীতি করি। আমার বিরুদ্ধে যে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে তা তদন্ত করে দেখা হোক। তদন্তে যদি আমি দোষী প্রমানিত হই, তবে দেশে আইন রয়েছে। আইনে আমার যে সাজা হয় আমি মাথা পেতে নিব। কিন্তু টাঙাইলের অঘোষিত যে গডফাদাররা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করে নিজেদের অপরাধ ঢাকার চেষ্টা করছে তারা কোনদিন পার পাবে না। সারাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে যে কঠোর পদক্ষেপ শুরু হয়েছে তা থেকে বাঁচতেই ওরা অন্যের নামে মিথ্যা সংবাদ ছড়াচ্ছে। ওইসব দুূর্নীতিবাজদের শাস্তি হবেই। আর 'সংবাদ প্রতিদিন' নামক নিউজ পোর্টালটি কোনরকম যাচাই-বাছাই না করে আমার বিরুদ্ধে যে মিথ্যা বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করেছে তার জন্য আমি নিউজ পোর্টালের প্রকাশক, সম্পাদক ও রিপোর্টারের শাস্তি দাবি করছি। 

তিনি আরো বলেন, এই মিথ্যা সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় আমি সামাজিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি এর জন্য আমি মানহানি এবং তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে মামলা করবো। 

এ বিষয়ে কথা বলতে আমানুর রহমান খান রানাকে ফোন করা হলে তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি। 

উল্লেখ্য,  সংবাদ প্রতিদিনে গত ২৪ সেপ্টেম্বর সংবাদটি প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই মেহেদি হাসান রনি এটাকে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ বলে দাবি করে আসছে। এমনকি অনেকে এই সংবাদটিকে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও তাকে সামাজিকভাবে ছোট করার জন্য সংবাদটি প্রকাশ হয়েছে উল্লেখ করে এর প্রতিবাদে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়েছে। 

Ads
Ads