প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • ৪-Sep-২০১৯ ০৭:৫৭ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ঢাকা সফররত ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভাদ জারিফ। এই সময় মুসলিম উম্মার ঐক্যের উপর গুরুত্ব দেন শেখ হাসিনা।

বুধবার (০৪ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয় বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম।

আলোচনায় শেখ হাসিনা বলেন, মুসলিম উম্মাহর ঐক্য দরকার। মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে বিভেদ-সংঘাত চলছে, এ সুযোগে থার্ড কান্ট্রি বা থার্ড পার্টি (তৃতীয় পক্ষ) লাভবান হচ্ছে। মুসলমানরা নিজেদের মধ্য রক্ত ঝরাচ্ছে আর অন্যরা এ থেকে সুবিধা ভোগ করছে।

“আমরা মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে ঐক্য চাই। যদি মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে মতপার্থক্য থেকেও থাকে, সেগুলো দ্বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমে  সমাধান সম্ভব। এজন্য রক্তক্ষরণের দরকার নেই।”

ভাত্রৃঘাতী সংঘাত নিরসনে ওআইসিকে  ভূমিকা রাখতে হবে বলেও শেখ হাসিনা মন্তব্য করেন বলে ইহসানুল করিম জানান।

ইরানের সঙ্গে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক সাংস্কৃতিক সম্পর্কের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ ও ইরানের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নিয়েও ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সন্তোষ জানান।

দুই দেশের মধ্যকার সুসম্পর্কের কথা তুলে ধরে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইরান-বাংলাদেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক সম্পর্কের দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। দু’দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি।

সাক্ষাতে ইরানের ওপর আমেরিকার অবরোধ আরোপের পর দেশটির বর্তমান অবস্থার কথা প্রধানমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ।

ইরান সৌদি আরবসহ সব দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক চায় জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা ঐক্য চাই। সৌদি আরবসহ সব প্রতিবেশীর সঙ্গে ভালো সম্পর্ক চাই। কোনো বৈরিতা চাই না।

মুসলিম দেশগুলোকে অস্ত্রের পেছনে অর্থ খরচ না করে তা জনকল্যাণে ব্যয় করার আহ্বান জানিয়ে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা অস্ত্রের জন্য টাকা খরচ করতে চাই না। এ টাকা দিয়ে জনকল্যাণ করতে চাই।

ওআইসিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূমিকার প্রশংসা করেন ইরানি মন্ত্রী।

এই সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো.নজিবুর রহমান, বাংলাদেশে ইরানের রাষ্ট্রদূত রাজা নাফার উপস্থিত ছিলেন। 

 

/কে 

Ads
Ads