যে কারণে ওবায়দুল কাদেরের পদত্যাগ চায় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ

  • ৪-Jul-২০১৯ ০৩:১৩ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

যুদ্ধাপরাধী ও জামায়াত পরিবারের সন্তানেরা আওয়ামী লীগের যোগ দিতে পারবে বলে বক্তব্য দেওয়ায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’ নামের একটি সংগঠন। অন্যথায় তার পদত্যাগের দাবিতে কঠোর কর্মসূচি দেওয়ার কথা বলেছে সংগঠনটি।

বৃহস্পতিবার (০৪ জুলাই) সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এ দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মুখপাত্র ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আ.ক.ম জামাল উদ্দিন বলেন, আমি বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী আওয়ামী লীগের হাজারো নেতাকর্মীকে ওবায়দুল কাদেরের দেওয়া বক্তব্যের প্রতিবাদ জানানোর আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, জাতি আশা করে তিনি (ওবায়দুল কাদের) আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী বক্তব্য প্রত্যাহার করবেন এবং আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও দেশবাসীর কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইবেন।

যদি তিনি তা না করেন, তাহলে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ তার পদত্যাগের দাবিতে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যকে অসাধু, অসংলগ্ন ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী আখ্যা দিয়ে সংগঠনটির পক্ষ থেকে প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। আগামী ৬ জুলাই শাহবাগ জাদুঘরের সামনে মানববন্ধন পালন করবেন তারা। কর্মসূচি শেষে ওবায়দুল কাদেরের কুশপুত্তলিকা দাহ করার ঘোষণাও দেন তারা।

উল্লেখ্য, গত ৩০ জুন আওয়ামী লীগের পার্টি অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধী ও জামায়াত পরিবারের সন্তানরাও আওয়ামী লীগ যোগ দিতে পারবে। আওয়ামী লীগের সদস্য হওয়ার ক্ষেত্রে রাজনৈতিক ভূমিকা প্রাধান্য পাবে। কোন পরিবারের সন্তান সেটা বিবেচ্য বিষয় নয়, হোক সে জামায়াত কিংবা যুদ্ধাপরাধী পরিবারের সন্তান।’ এমন ইস্যুতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনা তৈরি হয়। তবে এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী, স্বাধীনতার চেতনাবিরোধী অথবা সাম্প্রদায়িক মনোভাব সম্পন্ন কাউকে দলের সদস্য করা হবে না। এক্ষেত্রে যুদ্ধাপরাধী ও তাদের সন্তানদের বেলায়ও আওয়ামী লীগের অবস্থান একই। আওয়ামী লীগের এ বিষয়ে একটা নীতিমালা আছে, দলের চেতনা আছে। এই চেতনার সঙ্গে কোনও আপস নয়।’

Ads
Ads