হাসপাতালে খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ, অনুমতি পাননি নেতারা

  • ৫-Jun-২০১৯ ০৬:১২ অপরাহ্ন
Ads

 

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন পরিবারের সদস্য ও স্বজনেরা। আগেই পরিবারের সাত সদস্য তাঁর সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পেয়েছেন। তবে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দলের নেতাদের দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে স্বজনেরা আজ বেলা একটার দিকে হাসপাতালে যান। বেলা দেড়টার দিকে কেবিন ব্লকের ৬২১ নম্বর কক্ষে প্রবেশ করেন। সেখানে তাঁরা প্রায় দেড় ঘণ্টা ছিলেন। বিএনপির চেয়ারপারসনের জন্য বাসা থেকে রান্না করা খাবারও তাঁরা নিয়ে যান।

পরিবারের সদস্যদের মধ্যে আছেন, খালেদা জিয়ার বোন সেলিনা ইসলাম ও তাঁর স্বামী রফিকুল ইসলাম, ভাই সাঈদ ইস্কান্দরের স্ত্রী, তারেক রহমানের স্ত্রী জোবাইদা রহমানের বড় বোন, খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর শাশুড়ি, ভাই শামীম ইস্কান্দরের ছেলে অভিক ইস্কান্দর।

এদিকে বিএনপির নেতারা অভিযোগ করেছেন, কারাবন্দী খালেদা জিয়ার সঙ্গে দলীয় নেতা-কর্মীদের দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সকালে সাংবাদিকদের বলেন, দলের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে খালেদা জিয়ার সাক্ষাতের অনুমতি না দেওয়া জেল কোডের লঙ্ঘন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গনমাধমকে বলেন, খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের মধ্যে সাত জন যাবেন হাসপাতালে তাকে দেখতে। আমরা আবেদন করেছিলাম, অনুমতি দেয়নি। পরিবারের সাত জনকে দিয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন, আইন যেটা আছে, জেল কোডে যেটা লেখা আছে, ঈদের উৎসবের দিনে আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব, স্বজন যারা আছেন, তাদের দেখা করতে দিতে হবে। সেখানে অবশ্যই কর্তৃপক্ষ বিধি লঙ্ঘন করেছেন। তারা একেবারে লিমিটেড করে দিয়েছেন, পরিবারের সাত জন ছাড়া কেউ দেখা করতে পারবেন না।

উল্লেখ, গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সাজা দিয়েছিলেন আদালত। পরে গত ৩০ অক্টোবর হাইকোর্ট এ মামলায় সাজা বৃদ্ধি করে ১০ বছর করেন।

অপরদিকে গত বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

দুই মামলায় সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া পুরান ঢাকার পুরান কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থান করছিলেন। এর মধ্যে গত ১ এপ্রিল তাঁকে চিকিৎসার জন্য রাজধানীর শাহবাগের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে অবস্থান করছেন।

Ads
Ads