'শ্রীলঙ্কার মতো বাংলাদেশেও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ঘটানোর অনেক চেষ্টা চলছে'

  • ২৫-Apr-২০১৯ ০১:১৭ অপরাহ্ন
Ads

ফাইল ছবি

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

শ্রীলঙ্কায় সন্ত্রাসীদের ভয়াবহ বোমা হামলার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশেও এ ঘটনা ঘটানোর অনেক চেষ্টা চলছে। তবে আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করে যাচ্ছে। আমি দেশবাসীকে আহ্বান জানাব, এ ধরনের সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের সঙ্গে যারা সম্পৃক্ত থাকবে, কে কোথায় জঙ্গিবাদী-সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত, সেটা শুধু গোয়েন্দা সংস্থাই না, আমাদের দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে এবং খুঁজে বের করতে হবে। এবং সঙ্গে সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে জানাতে হবে। কারণ, আমরা দেশে শান্তি চাই। কারণ, শান্তি দিতে পারে উন্নতি। শান্তিপূর্ণ হলেই দেশ এগিয়ে যাবে।

বুধবার (২৫ এপ্রিল) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে বিরতিহীন আন্তঃনগর ট্রেন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আট বছরের একটা ছেলে জায়ান চৌধুরী, তাকে আমরা হারিয়েছি। আমাদের পরিবারে ১৫ আগস্ট, শুধু আমাদের বাড়িতেই না, আমাদের বাড়িতে আমি আর রেহেনা বাইরে ছিলাম বলে বেঁচে গিয়েছিলাম। কিন্তু আমাদের পরিবারের আর একজনও বাঁচতে পারেনি। সবাইকে হত্যা করেছে। আমার মেজ ফুফুর বাড়িতে যখন আক্রমণ করে তখন তাঁর ছেলে, ছেলেবউকে হত্যা করে (শেখ ফজলুল হক মনি ও আরজু মনি)। আর জায়ান হচ্ছে শেখ ফজলুল হক মনির ছোট ভাই শেখ ফজলুল হক সেলিমের মেয়ের প্রথম সন্তান। তাকেও এইভাবে আজকে জীবন দিতে হলো। আমরা চাই না এই ধরনের কোনো শিশুর মৃত্যু হোক।

আজকে জঙ্গিবাদ শুধু বাংলাদেশ না, সারাবিশ্বব্যাপী একটা সমস্যা উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, মাত্র কয়েক দিন আগে ২১ এপ্রিল শ্রীলঙ্কায় যে ঘটনা ঘটল তাতে আমরা বাংলাদেশের কয়েকজনকে হারিয়েছি। সবচেয়ে দুর্ভাগ্য হলো, সেখানে অনেকগুলো শিশু মারা যায়, সেখানে আমাদেরও বাংলাদেশের শিশু জায়ানকে আমাদের হারাতে হয়েছে, এই জঙ্গি সন্ত্রাসের কারণেই।

প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন করেন, আমি জানি না এ ধরনের হত্যাকাণ্ড যারা চালায় তাদের কী লাভ হয়?’ তিনি আরো বলেন, ‘মানুষের ঘৃণা ছাড়া, অভিশাপ ছাড়া আর কিছু তারা পায় না।

মানুষকে সচেতন করতে জুমার খুতবায় সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরুদ্ধে বয়ান দিতে ইমামদের প্রতি আহ্বান জানান সরকারপ্রধান।

Ads
Ads