বাবাকে বাঁচানো মেয়ের অনন্য গল্প!

  • ১৯-Apr-২০১৯ ১১:২৪ অপরাহ্ন
Ads

:: সীমানা পেরিয়ে ডেস্ক ::

রাখি দত্ত। ১৯ বছরের এক তরুণী। সম্পূর্ণ জীবন সামনে পড়ে আছে তার। কিন্তু বাবাকে বাঁচাতে নিজের লিভারের ৬৫ শতাংশ ট্রান্সপ্লান্ট করেছেন তিনি। এর জন্য সারাটা জীবন তাকে যন্ত্রণায় কাটাতে হবে। কিন্তু বাবাকে বাঁচিয়ে রাখতে তার কাছে এগুলো কিছুই না। যা হয় হোক, বাবা তো বাঁচবে।


 ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, রাখির বাবার বয়স ৬৫ বছর। কিছুদিন ধরেই পেটে ব্যথা হতো, কিছু খেতে পারতেন না। হাসপাতালে ভর্তির পর জানা গেল তিনি লিভারের কঠিন রোগে আক্রান্ত। সুস্থ করার জন্য লিভার ট্রান্সপ্লান্ট করতে হবে! কিন্তু কে দেবে লিভার? এগিয়ে এলেন একমাত্র মেয়ে রাখী দত্ত। বললেন, বাবার জন্য তিনি নিজের লিভারের অংশবিশেষ দান করতে প্রস্তুত! অবশেষে সেই সাহসী মেয়ের কারণেই নতুন জীবন পেলেন বাবা!

বাবার এমন কঠিন রোগ হয়েছে শুনে প্রথমে ভেঙে পড়েছিলেন রাখী। তারপর ঠাণ্ডা মাথায় পুরো ব্যাপারটা ভেবে দেখেন। তার জীবনে বাবার প্রয়োজন আছে। বাবাকে অনেক ভালোবাসেন রাখী। তাই সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করেননি। নিজের জীবনের ঝুঁকি আছে জেনেও বাবার জীবন বাঁচাতে নিজের লিভারের ৬৫% দান করতে এক কথায় রাজী হয়ে যান।

এরপর শুরু হয় জটিল এক অস্ত্রোপচারের আয়োজন। হায়দরাবাদের এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব গ্যাস্ট্রোএন্টারোলোজি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় রাখীর বাবাকে। কলকাতা থেকে দুজন লিভার ট্রান্সপ্লান্ট বিশেষজ্ঞ সেখানে উপস্থিত হয়ে এই জটিল অস্ত্রোপচার সফলভাবে সম্পন্ন করেন। সুস্থ হয়ে ওঠেন রাখীর বাবা। পেটে অপারেশনের গভীর চিহ্নসহ বাবা-মেয়ের ছবি এখন সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল।

Ads
Ads