বুধবার ২৯ জুন ২০২২ ১৪ আষাঢ় ১৪২৯

শিরোনাম: করোনা বাড়ছে, মাস্ক পরা বাধ্যতামূলকসহ জরুরি ৬ নির্দেশনা    পাতাল রেল নির্মাণে জাপানের সঙ্গে ১১ হাজার ৪০০ কোটি টাকার ঋণচুক্তি    ডলারের দাম বাড়লো    পদ্মা সেতুতে দ্বিতীয় দিন টোল আদায় প্রায় ২ কোটি টাকা    স্বেচ্ছাসেবক লীগের ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের সব কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা    দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার বাড়াতে হবে: কাদের    বেড়েছে মৃত্যু, শনাক্ত ২০৮৭   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগাবে জাগরণ টিভি
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন, ২০২২, ২:৫৩ এএম | অনলাইন সংস্করণ

ইন্টারনেট  প্রটোকল টেলিভিশন ‘জাগরণ টিভি’ বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাগাবে। চেতনার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আলোকিত বাংলাদেশ গড়ার কাজ করবে। মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সোনার বাংলা বিনির্মাণে এই টিভি কাজ করবে।
 
মঙ্গলবার (২১ জুন) সন্ধ্যায় রাজধানীর বাংলামোটররস্থ পদ্মা লাইফ টাওয়ারে জাগরণ টিভির ১ম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত আনন্দ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে  এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন বক্তারা।
 
সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় নৃত্য পরিবেশনার মধ্য দিয়ে আনন্দ আয়োজন শুরু হয়। এছাড়া অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে ছিল গান, কবিতা, মূকাভিনয়সহ বর্নিল পরিবেশনা।
 
আনন্দ অনুষ্ঠানটি তিনটি পর্বে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জাগরণ টিভির প্রধান সম্পাদক এফ এম শাহীন, মাসুম হায়দার বশার ও পলি পারভিন।
 
আনন্দ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য ড. মুহাম্মদ সামাদ। তিনি বলেন, আমাদের সন্তানেরা অল্প বয়সে যেভাবে সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন-সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলো, এর ফসল আজকের জাগরণ টিভি ও বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের সরকার। আজকেই আমাদের দেশে দুটি পক্ষ। একটি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ, আরেকটি মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী পক্ষ। একটি বঙ্গবন্ধুর পক্ষ, আরেকটি তাঁর বিরোধী পক্ষ। একটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ, আরেকটি তাঁর বিরোধী পক্ষ। জাগরণ টিভি মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে তুলে ধরছে।
 
তিনি বলেন, জাগরণ আইপি টিভি ও বিবার্তা২৪ডটনেট, এই দুটি গণমাধ্যম আমাদের তরুণ সমাজ ও একদল মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের লেখক, বক্তা, জ্ঞানী, প্রজ্ঞাবানদের যেকোনো সমাবেশ-আন্দোলন-সংগ্রামে হাজির করাতে পারে।   আমি মনে করি, এই কাজ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এটা অনেক বড় কাজ। এজন্য আমি তাদের অভিনন্দিত করি।
 
বিশিষ্ট এই শিক্ষাবিদ বলেন, জাগরণ টিভির মাত্র একবছর পার হলো। এই অল্প সময়ে তেমন কিছু করার সময় না থাকলেও জাগরণ টিভি নানা কিছু করে দেখিয়েছে। এই অল্প সময়ের মধ্যে তারা 'মাইক' নামে একটি চলচ্চিত্রও নির্মাণ করেছে। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে ঘিরে এটা অনেক বড় কাজ। জাগরণ টিভির যাত্রা শুভ হোক, সাফল্যমণ্ডিত হোক। আর এ সাফল্য মানুষের মাঝে ছড়িয়ে পড়ুক।
 
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়, কিশোরগঞ্জের উপাচার্য অধ্যাপক ড. জেড এম পারভেজ সাজ্জাদ বলেন, জাগরণ টিভি মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করছে। সমাজের বিভিন্নমুখী সমস্যাকে তুলে ধরছে। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে, জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত এই টিভিকে সোচ্চার ভূমিকা দেখা যাচ্ছে।
 
তিনি বলেন, এই টিভি শিক্ষামূলক ও বিশ্লেষণমূলক যুগোপযোগী আলোচনা প্রচার করছে। এর মাধ্যমে তরুণ প্রজন্ম উপকৃত হচ্ছেন। আমি আশা করছি, এই টিভি গুজব ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার ভূমিকার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখে সত্য প্রকাশ করবে। সর্বোপরি, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সোনার বাংলা বিনির্মাণে এই টিভি কাজ করবে, সেই প্রত্যাশা রইলো।
 
জাতিসত্তার কবি ও বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক নূরুল হুদা বলেন, জাগরণ টিভি তার নামের ন্যায় জেগে থাকুক। সমাজের অসঙ্গতি তুলে ধরে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনার মাধ্যমে অনেক দূর এগিয়ে যাবে জাগরণ টিভি, সেই প্রত্যাশা রইলো।
 
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. হুমায়ূন কবির বলেন, জাগরণ টিভি মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের চেতনার প্রত্যয় নিয়ে গড়ে উঠেছে। এ টিভির সাথে জড়িত বাণী ইয়াসমিন হাসি ও এফ এম শাহীন হৃদয়ে ধারণ করে বাংলাদেশকে। আরেকটা বিষয়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির স্রষ্টা। এটা মীমাংসিত বিষয়। আর এই মীমাংসিত বিষয়সহ আরো অন্যান্য মীমাংসিত বিষয়ে যারা বিতর্ক সৃষ্টি করতে চায়, সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করতে চায় তাদের বিরুদ্ধে জাগরণ টিভি সোচ্চার ছিল। আমি আশা করছি, তারা সামনেও এভাবেই সোচ্ছার থাকবে।
 
আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন বলেন, জাগরণ টিভি বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাগাবে। চেতনার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আলোকিত বাংলাদেশ গড়ার কাজ করবে।  এসময় তিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে জাগরণ টিভি আরো সামনে এগিয়ে যাবে বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাডভোকেট সানজিদা খানম বলেন, জাগরণ টিভি সমাজের জন্য কাজ করার ধারা অব্যাহত রাখবে। দেশের অন্যান্য গণমাধ্যমের চেয়ে জাগরণ ব্যতিক্রম। যেকোনো সৃষ্টির পেছনে চেতনা কাজ করে। বাংলাদেশ, মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার চেতনাকে ধারণ করে জাগরণ টিভি এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদের লড়াই সামনে এগিয়ে যাওয়ার লড়াই। জাগরণ টিভি অনেকদূর যাবে।
 
বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, দক্ষ পরিচালনায় জাগরণ টিভি মানুষের মন জয় করবে। এবং তারা প্রতিটি সত্য ঘটনা তুলে ধরবে।  
 
গণফোরাম একাংশের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী বলেন, এই মুহূর্তে হঠাৎ সিলেটে পানি উঠে তলিয়ে গেছে। অন্যদিকে  উত্তরবঙ্গে লাখ লাখ মানুষ বন্যা কবলিত। এই বন্যা কবলিতদের প্রধানমন্ত্রী দেখতে গিয়েছেন আজ। এর মধ্যেও জীবন থেমে নাই। জীবন থেমে থাকবে না।
চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শাহজাদা মহিউদ্দিন বলেন, সত্য-মিথ্যার মাঝামাঝি দাঁড়িয়ে থাকা নিরপেক্ষতা নয়। স্বাধীনতা আমাদের সত্যের মাপকাঠি। স্বাধীনতার চেতনার পক্ষে যারা থাকবে তারাই সত্য আর যারা বিপক্ষে তারা ভ্রান্ত। এসময়  জাগরণ টিভি সামনের দিনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দিবে এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।
পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক ইঞ্জি. মোহাম্মদ হোসাইন বলেন, জাগরণ টিভি আগামীতে তাদের সাহসী চেতনার প্রতিফলন ঘটাবে। এক বছরে জাগরণ টিভির ১০ বছরের ম্যাচিউর হয়েছে। জাগরণ টিভি এক বছরই তাদের জায়গা তৈরি করে নিয়েছে।  
 
আওয়ামী যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল বলেন, দেশের তরুণ প্রজন্ম এখন কাগজ পড়ে না। দিনদিন টিভির চাহিদাও কমে যাচ্ছে। অনলাইন টেলিভিশন সেই জায়গা দখল করে নিচ্ছে। আর এসবের মধ্যে জাগরণ টিভি সৃষ্টিশীল প্রতিভা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে।
 
আওয়ামী যুব মহিলা লীগের সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট কুহেলী কুদ্দুস মুক্তি বলেন, জাগরণ টিভি মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের একটি টিভি। এই টিভি বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে কথা বলে আসছে। আমি আশা করছি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে এই টিভি উত্তরোত্তর এগিয়ে যাবে, সেই প্রত্যাশা রইলো।
 
কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতাধীন ৬৪টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের প্রকল্প পরিচালক সুব্রত পাল বলেন, জাগরণ আইপি টিভি দেশের কথা, মাটি ও মানুষের কথা বলে। বস্তুনিষ্ঠ ও সময়োপযোগী কাজ করছে এই টিভি। এভাবেই দেশের ও জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করে এগিয়ে যাক জাগরণ টিভি।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্ডিওলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. জাহানারা আরজু বলেন, জাগরণ আইপি টিভি স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিকে উজ্জীবিত করছে। আমি আশা করছি, তারা এভাবেই স্বাধীনতা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের চেতনা ধারণ করে আমাদের ভালো ভালো কাজ উপহার দিবে।
 
বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর (অব.) মফিজুল হক সরকার বলেন, জাগরণ আইপি টিভি মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে বাঙালিকে জাগরণ রাখবে।
 
অনুষ্ঠানে জাগরণ আইপি টিভির প্রধান সম্পাদক এফ এম শাহীন বলেন, বাংলা ভাষাভাষী মানুষের কাছে বাঙালি সংস্কৃতি, বাংলাদেশের ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দেয়ার জন্য জাগরণ টিভি যাত্রালগ্ন থেকে কাজ করছে। আর এভাবে আমরা বাঙালি সংস্কৃতি ও জাগরণের পথে থাকতে চাই। এধারা অব্যাহত রাখতে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন।
 
তিনি বলেন, আমাদের একটি পক্ষ আছে, সেটি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ, স্বাধীনতার পক্ষ, বঙ্গবন্ধুর পক্ষ, বাংলাদেশের পক্ষ। আর এই পক্ষ নিয়ে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। এসময় জাগরণ টিভিকে আইপি টেলিভিশন হিসেবে নিবন্ধিত করায় সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।
 
আনন্দ আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর ড. মামুন আল মাহতাব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নিজামুল হক ভূইয়া, রায়হান স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রিন্সিপাল রহিমা আফরোজ মিলি।  
 
আরো উপস্থিত ছিলেন পাঁচবিবি পৌরসভার সাবেক মেয়র হাবিবুর রহমান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক কেন্দ্রীয় উপ-কামিটির সদস্য লায়ন মো. কেফায়েত উল্লাহ।
ছাত্রদলের সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল।
 
অন্যান্য রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে ছিলেন ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (বাংলাদেশ ন্যাপ) মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মিতা রহমান, এনপিপির যুগ্ম মহাসচিব ফরিদ উদ্দিন, এনডিপির মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন  ঈসা ও জাসদের দপ্তর সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন।
 
গণমাধ্যম কর্মীদের মধ্যে ছিলেন গ্লোবাল টেলিভিশনের সিইও সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, জাতীয় প্রেস ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সাংবাদিক শাহনাজ আক্তার পলি, সিনিয়র সাংবাদিক শাহ নেওয়াজ দুলাল, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শুকুর আলী শুভ, যুগবার্তার সম্পাদক, রফিকুল ইসলাম সুজন ও  বিবার্তা২৪ডটনেটের সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসি।
 
এছাড়াও অনুষ্ঠানে ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের বিশেষ সহকারী গুলশাহানা ঊর্মি, গৌরব’৭১ এর সভাপতি এসএম মনিরুল ইসলাম মনি, মওলানা দেলাওয়ার হোসেন সাঈফি, কবি ও চলচ্চিত্র নির্মাতা টোকন ঠাকুর, বাংলা জার্নালের প্রকাশক ও বিবার্তা২৪ডটনেটের বার্তা সম্পাদক হাবিবুর রহমান রোমেল, আগামী প্রকাশনীর প্রকাশক ওসমান গণি, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব পুলক রাহা, কবি ও আবৃত্তিশিল্পী আহমেদ শিপলু, গৌরব’৭১ এর  সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম রুপম প্রমুখ।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


আরও সংবাদ   বিষয়:  জাগরণ টিভি  







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://dailyvorerpata.com/ad/apon.jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
সাউথ ওয়েস্টার্ন মিডিয়া গ্রুপ


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৪১০১০০৮৭, ৪১০১০০৮৬, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৪১০১০০৮৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৪১০১০০৮৫
অনলাইন ইমেইল: [email protected] বার্তা ইমেইল:[email protected] বিজ্ঞাপন ইমেইল:[email protected]