বুধবার ২৯ জুন ২০২২ ১৪ আষাঢ় ১৪২৯

শিরোনাম: করোনা বাড়ছে, মাস্ক পরা বাধ্যতামূলকসহ জরুরি ৬ নির্দেশনা    পাতাল রেল নির্মাণে জাপানের সঙ্গে ১১ হাজার ৪০০ কোটি টাকার ঋণচুক্তি    ডলারের দাম বাড়লো    পদ্মা সেতুতে দ্বিতীয় দিন টোল আদায় প্রায় ২ কোটি টাকা    স্বেচ্ছাসেবক লীগের ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের সব কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা    দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার বাড়াতে হবে: কাদের    বেড়েছে মৃত্যু, শনাক্ত ২০৮৭   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
খাম্বা লিমিটেডের চেয়ারম্যান সাহেব ঐকিক নিয়মেই দেশ চালাবে
মোহাম্মদ এ. আরাফাত
প্রকাশ: শনিবার, ১১ জুন, ২০২২, ৪:৫৯ পিএম আপডেট: ১১.০৬.২০২২ ৫:১৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

চলুন আমরা ঐকিক নিয়ম শিখি!
**পন্ডিত: মূর্খ ভাই দেখেন, ভূপেন হাজারিকা সেতুর দৈর্ঘ্য ৯.১৫ কিলোমিটার আর পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য ৬.১৫ কিলোমিটার কিন্তু পদ্মা সেতুর খরচ ৩০ গুণ বেশি! এটা কোনো কথা হলো? সহজ অংক! বেঝাই যাচ্ছে চুরি হয়েছে।
*মূর্খ: পন্ডিত ভাই, শুধু ‘দৈর্ঘ্য’ দিয়েই ঐকিক নিয়ম চলে? পদ্মা সেতুর প্রস্থের কি হবে? পদ্মা সেতুর ‘প্রস্থ’ যে ভূপেন হাজারিকা সেতুর প্রায় দ্বিগুণ? 

**পন্ডিত: তো কি হয়েছে? ‘প্রস্থ’ দিয়ে ঐকিক নিয়ম চলে না। খরচ শুধু দৈর্ঘের উপর হয়, প্রস্থের উপর হয় না! 
*মূর্খ: আচ্ছা তাহলে, ভূপেন হাজারিকা সেতুর প্রায় দ্বিগুণ প্রস্থের পদ্মা সেতু তো দুই তলা, মানে এক সেতুর মধ্যে দুইটা সেতু। উপর তলায় গাড়ি চলবে আর নিচের তলায় চলবে ট্রেন। তো, পন্ডিত ভাই আপনার ঐকিক নিয়মে খরচের হিসাব এখানে কি হবে? ‘প্রস্থ’ এবং ‘তলা’ হিসাব করলে তো পদ্মা সেতু ভূপেন হাজারিকা সেতু চার গুণ বড় মনে হচ্ছে।

**পন্ডিত: আপনি তো আসলেই মূর্খ দেখি! ঐকিক নিয়মে শুধু দৈর্ঘের হিসাব চলে। বাকি কিছু চলে না।
*মূর্খ: পন্ডিত ভাই, আরেকটা বিষয়, ভূপেন হাজারিকা সেতুর পাইল লোড capacity মাত্র ৬০ টন আর পদ্মা সেতুর পাইল লোড capacity ৮ হাজার ২০০ টন। শুধু তাই নয়, ভূপেন হাজারিকা সেতুর একেকটি পিলারের ওজন ১২০ টন। আর পদ্মা সেতুর একটি পিলারের ওজন ৫০ হাজার টন। সে হিসেবে ভূপেন হাজারিকা সেতুর চেয়ে পদ্মা সেতু ২৫০ গুণ বেশি ভারী এবং শক্তিশালী। এখানে আপনার ঐকিক নিয়ম কি বলে? তাহলে পদ্মা সেতুর খরচ তো ভূপেন হাজারিকা সেতুর ২৫০ গুণ বেশি হওয়ার কথা, তাই না? 



**পন্ডিত: আমার মনে হচ্ছে আপনি শুধু মূর্খই নন, আপনি নিশ্চয়ই শেখ হাসিনার দালাল! আপনি আমার ‘দৈর্ঘ’ দিয়ে করা ঐকিক নিয়মের সহজ অংকের মধ্যে ‘প্রস্থ’ ঢুকাচ্ছেন, ‘তলা’ ঢুকাচ্ছেন, ‘ভার বা ওজন’ ঢুকাচ্ছেন। সমস্যা কি আপনার? শুনুন মূর্খ ভাই, ঐকিক নিয়মের অংক পরিস্কার: ‘দৈর্ঘ’ বেশি তো খরচ বেশি, ‘দৈর্ঘ’ কম তো খরচ কম। ‘প্রস্থ’, ‘তলা’, ‘ভার বা ওজন’ -এগুলোর কারণে কি খরচ হয়, না খরচ বাড়ে? 
*মূর্খ: তাহলে আরেকটা কথা বলেন, ভূপেন হাজারিকা সেতুতে তো নদী শাসনে খরচই হয় নাই, পদ্মা সেতুতে ১৬ কিলোমিটার পাড় জুড়ে নদী শাসন করতে হয়েছে এবং পদ্মা সেতুর নদী শাসনেই তো ভূপেন হাজারিকা সেতু বানাতে যে খরচ হয়েছে তার চেয়ে ৮ গুণ বেশি খরচ হয়েছে। তো, নদী শাসনের খরচ কি আপনার ঐকিক নিয়মের অংকে আসবে? 

**পন্ডিত: নদী শাসন কি জিনিস? নদীকে আবার শাসন করতে হয় নাকি? ইট, বালি, সিমেন্ট আনবেন, নদীতে ফালাবেন আর সেতু বানায়ে ফেলবেন, ভূপেন হাজারিকা সেতু এমনেই বানিয়েছে। এইভাবে ঐকিক নিয়মে সেতু বানালে খরচ এত হতো না, বুঝলেন? নদী শাসন-টাশন এগুলো সব ভুয়া জিনিস। 
*মূর্খ: পন্ডিত ভাই, আমি বুঝতে পেরেছি আপনারা এই ঐকিক নিয়মেই দেশ চালিয়েছিলেন। ঐকিক নিয়মে তো বিদ্যুতের আগেই খাম্বা বানাতে হয়, তাই না? ঐকিক নিয়মে তো বিদ্যুৎ খাতের ২৩ হাজার কোটি টাকা গায়েব হয়ে যায় এবং বিদ্যুৎ উৎপাদন হয় ‘শূন্য’, তাই না? যাক, আলহামদুলিল্লাহ! আপনাদের ঐকিক নিয়মটা শেখ হাসিনা শিখেন নাই! শেখ হাসিনা তাহলে পদ্মার উপর ভূপেন হাজারিকা সেতু বানিয়ে ফেলতেন! 

**পন্ডিত: আমরা ঐকিক নিয়মে অংক করি, ঐকিক নিয়মে চিন্তা করি, ঐকিক নিয়মে কথা বলি। ভবিষ্যতে ক্ষমতায় আসলে আমাদের খাম্বা লিমিটেডের চেয়ারম্যান সাহেব ঐকিক নিয়মেই দেশ চালাবে। আপনি, আমাদের ঐকিক নিয়ম নিয়ে এত প্রশ্ন তুলেন কেন? আপনি তো দেখছি দেশে মত প্রকাশের স্বাধীনতা দিতে চান না! আপনি নিশ্চয়ই শেখ হাসিনার দালাল!

(লেখাটি মোহাম্মদ এ. আরাফাতের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে সংগৃহীত)

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://dailyvorerpata.com/ad/apon.jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
সাউথ ওয়েস্টার্ন মিডিয়া গ্রুপ


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৪১০১০০৮৭, ৪১০১০০৮৬, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৪১০১০০৮৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৪১০১০০৮৫
অনলাইন ইমেইল: [email protected] বার্তা ইমেইল:[email protected] বিজ্ঞাপন ইমেইল:[email protected]