বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

শিরোনাম: চট্টগ্রাম টেস্টে ড্র মেনে নিল বাংলাদেশ-শ্রীলংকা    আগামী নির্বাচনে আ.লীগ বিজয়ের বন্দরে পৌঁছাবে: কাদের    আবদুল গাফফার চৌধুরীর মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক    আবদুল গাফফার চৌধুরী আর নেই    সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে প্রাণ গেল ৩ শিশুর    মানবতাবিরোধী অপরাধ: মৌলভীবাজারের ৩ আসামির মৃত্যুদণ্ড    রাজধানীতে ভবন থেকে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
তরমুজের দাম পানির থেকেও কম!
গাজী ফারহাদ, নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শুক্রবার, ১৩ মে, ২০২২, ১১:০০ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ডেকে ডেকে তরমুজ বিক্রি হচ্ছে সাতক্ষীরা বড় বাজারে। তবুও ক্রেতা নেই। পানিরও তো একটা দাম আছে। কিন্তু তরমুজের তার চেয়ে দাম কম। পাইকারি দরে ৫ কেজি ওজনের একটি তরমুজ বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা। সুলতানপুর বড় বাজারের খুচরা তরমুজ ব্যবসায়ী মেসার্স সরদার ইন্টার ন্যাশনালের স্বত্ত¡াধিকারী বাচ্চু মোড়ল জানান, প্রতি কেজি তরমুজ বিক্রি করছি ৫ থেকে ১০ টাকা। ডাকলেও এখন তরমুজের ক্রেতা পাওয়া যাচ্ছে না। দাম শুনে চলে যাচ্ছেন ক্রেতারা। 

ব্যাবসায়ীরা বলছে কী করবো ভেবে পাচ্ছি না। এখন হতাশ হয়ে পড়েছি। তরমুজের কোনো দাম নেই। যা খরচ করেছি তার চার ভাগের একভাগও দাম পাচ্ছি না। পাইকারি সবজি ব্যবসায়ী ওমর ফারুক জানান, এখন প্রতিমন তরমুজ বিক্রি করছি ২০০-৩৫০ টাকায়। দাম অনেক কম তবুও ক্রেতা না থাকায় তরমুজ পচে যাচ্ছে ফেলে দিতে হচ্ছে।

পাইকারি ব্যবসায়ীরা বলছে এখন এই সাতক্ষীরা খুলনা যশোর অঞ্চলের এক ‘মহাবিপদের’ নাম তরমুজ। তরমুজের মৌসুমেও বিক্রি করতে না পেরে সহায় সম্বলহীন হয়ে পড়ছে কৃষক। মাঠে তরমুজের ঢল, বাজারমূল্য একেবারেই নেই। এ বছর বাম্পার ফলন হওয়ার পরও বিক্রি করতে না পেরে এখন দুশ্চিন্তায় দিন কাটাচ্ছেন কৃষকরা। রোজার পরে তরমুজের দাম পড়ে গেছে। ক্ষেতে তরমুজের কোনো ক্রেতা নেই। তাই বেচা-বিক্রিও বন্ধ। ক্ষেতে বিক্রি করতে না পারায় কৃষকরা তরমুজ নিয়ে স্থানীয় বাজারে  আসছেন। কিন্তু সেখানেও কাঙ্ক্ষিত দাম মিলছে না। 

সাতক্ষীরা বড় বাজারের কাঁচা মাল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম বাবু জানান, ১০-১৫ দিন আগে প্রতিদিন ৫-৬ ট্রাক তরমুজ বিক্রি হয়েছে। দামও ছিল বেশী। এখন দাম কম তরমুজের আকার হিসেবে ৫ টাকা থেকে ১০-১৫ টাকা। এ বছর তরমুজের ফলন বেশী হওয়ায় বাজারে সরবরাহ বেশী দামও কমেছে। বর্তমানে বাজারে আম আসায় তরমুজের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন ক্রেতারা। সেকারণ দামও পড়ে গেছে।

সাতক্ষীরা বিভিন্ন এলাকায় তরমুজের কেজি ৪০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হলেও তরমুজের কোন মূল্যই বলছে না ব্যাপারিরা। আড়তে নিয়ে ৪/৫ দিন শত শত ক্ষেত মালিক আড়ত মালিকদের সঙ্গে ধর্না দিয়ে সম্পূর্ণ লস করে শূন্য হাতে বাড়ি ফিরছে।



যে তরমুজ রমজানে ১০০ পিস ২৮ থেকে ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে , বর্তমানে তা ১০ থেকে ১২ হাজার টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। যেগুলো ১০০ পিস ১৫ থেকে ১৮ হাজার টাকায় বিক্রি করা হতো, সেগুলো এখন ছয় হাজার টাকা এবং যেগুলো ১০ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়েছিল, সেগুলো এখন তিন হাজার টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।’

অপর খুচরা তরমুজ বিক্রেতা হাবিবুর রহমান বলেন, আগে প্রতি কেজি তরমুজ বিক্রি করেছি ৫০-৬০ টাকা। দিনে কমপক্ষে ৫ মন তরমুজ বিক্রি হতো। এখন প্রতি কেজি ছোট সাইজের ১০ টাকা, বড় সাইজের ১৫ টাকা বিক্রি করছি। দাম কম তবুও দিনে একমন তরমুজও বিক্রি হচ্ছে না, ক্রেতা নেই ।

সাতক্ষীরা জেলা কৃষি ও বিপনন কর্মকর্তা আবু সালেহ মোহাম্মদ মহসিন হোসেন বলেন,  ১০-১২ দিন আগেও রমজান মাসে তরমুজের অনেক চাহিদা ছিল। চাহিদা বেশী থাকা ও বাজারে সরবরাহ কম থাকার কারণে দামও ছিল বেশী। বর্তমানে বাজারে আমও উঠে গেছে সেকারণে তরমুজের ক্রেতা সংকট দেখা দিয়েছে। এছাড়া তরমুজের ফলন খুব বেশী হওয়ায় শেষ মুহূর্তে বাজারে এখন তরমুজের সরবরাহ অনেক বেশী। সরবরাহ বেশী থাকায় মূল্য কমে গেছে। বর্তমানে পাইকারি ও খুচরা বাজারে ৫ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে তরমুজ।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://dailyvorerpata.com/ad/apon.jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
সাউথ ওয়েস্টার্ন মিডিয়া গ্রুপ


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৪১০১০০৮৭, ৪১০১০০৮৬, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৪১০১০০৮৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৪১০১০০৮৫
অনলাইন ইমেইল: [email protected] বার্তা ইমেইল:[email protected] বিজ্ঞাপন ইমেইল:[email protected]