রোববার ২৮ নভেম্বর ২০২১ ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

শিরোনাম: টিকাগ্রহীতা সাড়ে ৯ কোটি ছাড়াল    রংপুরে ট্রাকচাপায় নিহত ৪    ‘৮০ শতাংশ বাস মালিক গরিব, দু’একটা বাসে সংসার চলে’    মহাসড়কে টোল আদায়ে বিল পাস    'ইসলামের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কোনো আইন পাস হবে না'    সেনাবাহিনীতে সৈনিক পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি    প্রথমবার বিশ্বকাপে বাংলাদেশের মেয়েরা   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
রামু উপজেলার খুনিয়াপালং ইউনিয়ন নির্বাচন
রাজাকার পুত্রকে নৌকার মনোনয়ন লবিংয়ে কোটি টাকার বাণিজ্যের অভিযোগ!
কক্সবাজার থেকে ফিরে উৎপল দাস
প্রকাশ: শুক্রবার, ৮ অক্টোবর, ২০২১, ৯:৪০ পিএম আপডেট: ০৮.১০.২০২১ ৯:৪১ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বারবারই বলেছে স্থানীয় সরকার নির্বাচন বিশেষ করে ইউনিয়ন পরিষদ পর্যায়ে তৃণমূলের ত্যাগীদের প্রাধান্য দিতে। যারা অর্থের বিনিময়ে অযোগ্য ও অনুপ্রবেশকারীদের নাম পাঠাবে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এ অবস্থায় কক্সবাজারের রামু উপজেলার খুলিয়াপালং ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন বাগিয়ে নিতে এক রাজাকার পুত্র ইতিমধ্যেই কোটি টাকার লেনদেন করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় সূত্র আরো দাবি করেছে, গতবারও টাকার বিনিময়ে চেয়ারম্যান হয়েছিলেন আব্দুল মাবুদ। এবারও কি মোটা অর্থের লেনদেনে আজীবন আওয়ামী বিরোধী আব্দুল মাবুদ নৌকার মনেনয়ন পেয়ে যাবেন? এমন প্রশ্ন তুলেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা। 



তারা বলেন, আব্দুল মাবুদের পিতা নুরুল ইসলাম মেম্বার ১৯৮১ থেকে ৮৭ পর্যন্ত খুনিয়াপালং ইউনিয়ন বিএনপির সহ সভাপতি পদে ছিলেন এবং ১৯৮৭ সাল থেকে ২০০১ পর্যন্ত সভাপতি পদে বহাল ছিলেন।

মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়ে বাংলাদেশের বিরোধিতা করে পাকিস্তানের পক্ষে সরাসরি কাজ করা এই নুরুল ইসলাম ১৯৭৫ সালে স্বপরিবারে বঙ্গবন্ধু নিহত হবার মর্মান্তিক ঘটনায় আনন্দে উৎফুল্ল হয়ে এলাকায় মিষ্টিও বিতরণ করেছিল। তার ছেলে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কোন পদে না থেকেও, ৯৫ সাল পর্যন্ত সরাসরি ছাত্রদলের রাজনীতি করেও গত নির্বাচনে অর্থের বিনিময়ে নৌকার মনোনয়ন কিনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

চেয়ারম্যান থাকাকালীন রেহিঙ্গাদের অর্থের বিনিময়ে হাজার হাজার ভূয়া জন্মসনদ দিয়ে তাদের পাসপোর্ট তৈরীতে অন্যতম ভূমিকা রেখেছে মাবুদ চেয়ারম্যান, এমন অভিযোগের সত্যতা এলাকা ঘুরে মিলেছে।এছাড়াও ইয়াবা চক্রের পৃষ্ঠপোষকতা, করোনাকালীন ত্রাণ চুরি সহ নানা অভিযোগ তার বিরুদ্ধে।

স্থানীয় সাংসদের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত মাবুদ চেয়ারম্যান আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর ধরা ছোয়ার বাইরে অবস্থান করছে বলেও অভিযোগ করেন একলাবাসী। তারা বলেন, এত সব কিছুর পরও যদি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগকে উপেক্ষা করে আব্দুল মাবুদকে নৌকার মনোনয়ন দেওয়া হয়, তবে তৃণমূলের সাথে তা হবে চরম বেঈমানী।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Comp 1_3.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]