মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১২ আশ্বিন ১৪২৮

শিরোনাম: বারডেম হাসপাতালের কেবিনে বৃদ্ধার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার    দেশে ৪ কোটি ১৩ লাখের বেশি করোনার টিকা প্রয়োগ    বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে সর্বত্র যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মানার নির্দেশ রাষ্ট্রপতির    করোনা টেস্টের টাকা নিয়ে উধাও মেডিকেল টেকনোলজিস্ট    দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র বানানোর ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী    মৃত্যু ও শনাক্ত দুটোই বেড়েছে    কমল ডেঙ্গু রোগী, বাড়ল মৃত্যু   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
'করোনার সঙ্গে ডেঙ্গু শঙ্কা, একসাথে হলে আরও ভয়াবহ অবস্থা হবে'
ইমতিয়াজ উদ্দীন
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৩ আগস্ট, ২০২১, ১:৪০ এএম আপডেট: ০৩.০৮.২০২১ ২:৩৭ এএম | অনলাইন সংস্করণ

করোনাকালে উর্ধ্বমূখী সংক্রমণের মধ্যেই রাজধানীতে একদিনে বেড়েছে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা। বর্তমানে ডেঙ্গু একটি আতঙ্কের নাম। ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দিন বেড়েই চলেছে। গত এক সপ্তাহে প্রায় দেড় হাজার ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে দেশে। এর মধ্যে বেশ কয়েকজন মৃত্যুবরণ করেছে। একদিকে করোনা অন্যদিকে ডেঙ্গু ফলে এটি মড়ার উপর খাঁড়ার ঘায়ের মতো বিষয় হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গুর প্রকোপে করণীয় সহ  বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দৈনিক ভোরের পাতা সঙ্গে কথা বলেছেন অধ্যাপক ডা.এ বি এম আব্দুল্লাহ। পাঠকদের জন্য অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ এর সাক্ষাৎকার নিয়েছেন দৈনিক ভোরের পাতার প্রতিবেদক ইমতিয়াজ উদ্দীন।

অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ বলেন, করোনা মোকাবিলা করতেই সরকার যখন ব্যস্ত, ঠিক সেই সময়ে ঢাকা শহরে দেখা গেছে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব।  প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী। করোনা-ডেঙ্গু কারো একসাথে হলে আরও ভয়াবহ অবস্থা হয়। ডেঙ্গুর কারণটা হলো যে, গত কিছুদিন বৃষ্টি হচ্ছে। এপ্রিল থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এমনটা চলবে। এই সময়েই ডেঙ্গু বেড়ে যায়। বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টি বাদল হওয়ার জন্য জমা পানি থাকে। ছাদবাগানের টব থেকে শুরু করে ফ্রিজে জমে থাকা পানিতেও এডিস মশার লার্ভা বিস্তারের আশঙ্কা থাকে। রাস্তাঘাটে পড়ে থাকা  ডাবের খোসা, ক্যান, টায়ার, চিপসের প্যাকেট এরকম যেকোনো পাত্রের মধ্যে যদি পানি জমে এবং এগুলোতে আবার মশা ডিম পাড়ে। ডিম পারলে সেখান থেকে লার্ভা হয় এবং সেখান থেকে বড় হয়। সবগুলো ডেঙ্গু মশা হয়। এগুলো আবার ঘরে যায়। মানুষকে  কামড়ায়। এটা থেকে ডেঙ্গু হচ্ছে। 

অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ বলেন, করোনা ও ডেঙ্গু দুইটাই ভাইরাসজনিত রোগ লক্ষণ কিন্তু প্রায় একইরকম। কারো যদি জ্বর, সর্দি, কাশি এগুলো হয় অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ডেঙ্গু টেস্টও করানো উচিৎ এবং করোনার টেস্টও করানো উচিৎ। যেহেতু  লক্ষণ প্রায় একই রকম। তবে ডেঙ্গুতে শরীর ব্যথা, মাথা ব্যথা, গিরায় ব্যথা বেশি হয়। ডেঙ্গু জ্বরের চার-পাঁচ দিন পরে শরীরে লাল র‍্যাশ হতে পারে। রক্তে প্ল্যাটিলেটের মাত্রা কমে যেতে পারে। নাক বা দাঁত দিয়ে রক্তপাত, কালো পায়খানা, নারীদের মাসিকের অতিরিক্ত রক্তপাত বা হঠাৎ মাসিক এগুলো ডেঙ্গুতে হয়। এগুলো আবার করোনাতে হয়না।



করোনার লক্ষণ প্রসঙ্গে অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ বলেন, জ্বর, সর্দি, কাশি, ঘ্রাণ না পাওয়া-এগুলো হচ্ছে করোনার লক্ষণ। শুকনা কাশি, কাশতে দম বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম করোনার সংক্রমণের সাধারণ লক্ষণ। দেখা যায়  জ্বর, কাশি ,সর্দিতে রোগী মনে করে সাধারণ জ্বর, সাধারণ কাশি।  যখন সিরিয়াস হয় তখন হাসপাতালে যায়। শ্বাসকষ্ট হয়, কাশি হয়, অক্সিজেন কমে যায়। সমস্যা হয়ে যায় বেশি।  তাই শুরু থেকেই সাবধান থাকা উচিত।

করোনা-ডেঙ্গু একসাথে হওয়া প্রসঙ্গে অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ বলেন, কারো কারো দেখা যাচ্ছে করোনা হচ্ছে, সেই সাথে আবার ডেঙ্গুও হচ্ছে। এরকম রোগীও আমরা পাচ্ছি। দেখা যাচ্ছে যে, দুটো একসাথে হচ্ছে। দুটো একসাথে হলে আরও ভয়াবহ অবস্থা হয়। এজন্য জনগণকে খেয়াল রাখতে হবে যে, কারো লক্ষণ দেখা দিলে  নিজে চিকিৎসা না করে  শুরু থেকেই যেন ডাক্তারের পরামর্শ নেই সবাই। পরীক্ষার ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে রোগীকে পরবর্তী চিকিৎসাসেবা প্রদান করবে।  

একই সাথে করোনা প্রতিরোধের জন্য মাস্ক পরা, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও ভ্যাকসিন বা টিকা নেয়া ছাড়া কোনো বিকল্প নেই বলে জানান অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ।

তিনি বলেন, করোনা টিকা নিলে রোগীর জটিলতা অনেক কম হয় এবং রোগী দ্রুত আরোগ্য লাভ করে। 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Comp 1_3.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]