মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১ ৯ কার্তিক ১৪২৮

শিরোনাম: রাজধানীতে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত    দেশে ৬ কোটি ১৪ লাখের বেশি করোনার টিকা প্রয়োগ    স্কটল্যান্ডকে ৬০ রানেই গুঁড়িয়ে দিল আফগানিস্তান    দারিদ্র্য বিমোচনে দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর কাজ করা উচিত: প্রধানমন্ত্রী    ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে কমিটি গঠন    আবাসিক এলাকায় নতুন গ্যাস সংযোগ দিতে হাইকোর্টের রুল    টস জিতে ব্যাটিংয়ে আফগানিস্তান   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
অর্থ সংকটে হালুয়াঘাটের জয়রামকুড়া হাসপাতাল
হালুয়াঘাট প্রতিনিধি
প্রকাশ: বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১, ১০:২১ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

সীমান্তবর্তী উপজেলা ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মাঝেও স্বাস্থ্য সেবা প্রদান অব্যাহত রেখেছে ঐতিহ্যবাহী স্বাস্থ্য সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান জয়রামকুড়া হাসপাতাল। যদিও ফান্ড সংকটে রয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। হাসপাতালটি বেসরকারি ভাবে স্বাস্থ্যসেবায় এগিয়ে থাকলেও অর্থনৈতিক অবস্থা পূর্বের তুলনায় অনেকটাই দুর্বল।হিমশিম খেতে হচ্ছে হাসপাতালটি পরিচালনায়।

এই হাসপাতালে ব্র্যাকের অর্থায়নে পরিচালিত ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স অ্যান্ড মিডওয়াইফারি প্রোগ্রামটি যুক্তরাজ্য সরকারের অর্থিক সহায়তায় দীর্ঘ দিন যাবত চলে আসলেও করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সংকটে এখন ব্র্যাককে আর সহযোগিতা করছে না যুক্তরাজ্য সরকার। ফলে তাদের সঙ্গে ব্র্যাকের ১০ বছর মেয়াদের ৪৫ কোটি পাউন্ডের আর্থিক সহায়তা প্রকল্প বন্ধ হয়ে গেছে। (সূত্রঃ ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য গার্ডিয়ান)।

হাসপাতাল কতৃপক্ষ এ সংকটময় অবস্থায় বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করার চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। করেছে মাস্ক ক্যাম্পেইন ও জনসচেতনা মূলক কার্যক্রম। এখানে রোগীদের ইনডোর সেবা ছাড়াও আউটডোর সেবা অব্যাহত রয়েছে।

জানা যায়, এ হাসপাতালে প্রতিবছর একদল জাপানি বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আসেন। তারা অনেক জটিল অপারেশন স্বল্প ব্যয়ে করে থাকেন। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে জাপানি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদল না আসায় তা আর হয়ে ওঠেনি। বর্তমানে কোন সমস্যা আছে কি না জানতে চাইলে, হাসপাতাল কতৃপক্ষ আক্ষেপ করে বলেন, এক সময় এই হাসপাতালে দাতা সংস্থা সমুহের সহায়তা অব্যাহত ছিলো। সময়ের পরিক্রমায় তা আজ আর নেই। এখন শুধু অভ্যন্তরীণ আয়ের মাধ্যমে হাসপাতালটি টিকে আছে। আমরা হাসপাতালটির জন্য সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন হাসপাতালের নির্বাহী পরিচালক মি.তরুন দারিং, কনসালটেন্ট ডা.লুসি দারিং এবং প্রতিষ্ঠানটির অর্থ ব্যবস্থাপক অংকুর ভৌমিক প্রমুখ। হাসপাতালের নির্বাহী পরিচালক মি.তরুন দারিং এ প্রতিবেদককে জানান, বর্তমানে আমাদের হাসপাতালে ছয়জন ডাক্তার ও দুজন প্যারামেডিকেল নিয়মিত রোগী দেখছেন। তারপরও আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে রোগীদের সেবা প্রদান অব্যাহত রেখেছি।এখানে জিবিসি কতৃক পরিচালিত ডিপ্লোমা ইন মিডওয়াইফারি নামীয় প্রতিষ্ঠান সরকারি নিয়ম মেনে খোলা হলেও করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে বর্তমানে তা বন্ধ রয়েছে। এছাড়াও জিবিসি কতৃক পরিচালিত মাইক্রো ক্রেডিটের গ্রাহক সেবা অব্যাহত আছে।হাসপাতাল কতৃপক্ষ আরও বলেন,একটি মহল বিভিন্ন ভাবে হাসপাতালটির সুনাম ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। তাই সকল ষড়যন্ত্র রুখতে প্রয়োজন সকলের আন্তরিক সহযোগিতা।

হালুয়াঘাট তথা এ অঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবি, সকল প্রতিকূলতার মাঝেও হাসপাতাল কতৃপক্ষ মানুষের মাঝে যেভাবে সেবার দ্বার উন্মোচিত রেখেছেন তা যেন অব্যাহত থাকে।



ভোরের পাতা/পি    



« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Comp 1_3.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]