মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১২ আশ্বিন ১৪২৮

শিরোনাম: বারডেম হাসপাতালের কেবিনে বৃদ্ধার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার    দেশে ৪ কোটি ১৩ লাখের বেশি করোনার টিকা প্রয়োগ    বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে সর্বত্র যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মানার নির্দেশ রাষ্ট্রপতির    করোনা টেস্টের টাকা নিয়ে উধাও মেডিকেল টেকনোলজিস্ট    দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র বানানোর ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী    মৃত্যু ও শনাক্ত দুটোই বেড়েছে    কমল ডেঙ্গু রোগী, বাড়ল মৃত্যু   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
সাভারের বেদে ও হিজড়াদের স্বপ্নের ঠিকানা “উত্তরণ পল্লী”
তোফায়েল হোসেন তোফাসানি, সাভার
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৫ জুন, ২০২১, ৯:২৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ভাসমান বেদে ও পিছিয়ে পরা হিজড়া সম্প্রদায়ের স্বপ্নের ঠিকানা “উত্তরণ পল্লী” এখন মুখরিত হয়ে উঠেছে এই জনগোষ্ঠির বসবাসে। বাংলাদেশ পুলিশের ডিআইজি হাবিবুর রহমানের স্বপ্নের উত্তরণ পল্লী এখন আর স্বপ্ন নয়। তা বাস্তবে পরিণত হয়েছে। ৫০টি পরিবারের প্রায় ৩’শ লোক এখন মাথা গোঁজার ঠাই পেয়েছেন এই পল্লীতে। ডেরায় থাকা ভাসমান মানুষগুলো এখন যেন খুঁজে পেয়েছেন স্থায়ী ঠিকানা।

জানা গেছে, মানবিক পুলিশ কর্মকর্তা ডিআইজি হাবিবুর রহমান পিছিয়ে পরা বেদে ও হিজড়া সম্প্রদায়দের জীবন-মান উন্নয়নে নানামূখী প্রকল্প শুরু করেন। এ সময় তিনি অনুভব করেন, যাযাবর বেদে সম্প্রদায় ও হিজড়াদের জন্য স্থায়ী বসবাস গড়ে না তুললে এদের যুগের সাথে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে না। তাই, তিনি ২০১৯ সালে উত্তরণ পল্লীর নামে ঢাকার সাভারের বংশী নদীর তীরে খঞ্জনকাঠি এলাকায় ৩ একর জমি অধিগ্রহণ নেন। সেখানে প্রায় তিন কোটি টাকা ব্যয়ে মাটি ভরাটের কাজ করেন। দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সহযোগীতায় এই খঞ্জনকাঠিতে শুরু হয় ৫০টি দুর্যোগ সহনীয় ঘর নির্মান কাজ। 

২০২১ সালের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের এই ঘর নির্মান শেষে হস্তান্তর করা হয় বেদে ও হিজড়া পরিবারের কাছে। আরো ৫০টি ঘর নির্মান কাজ অব্যাহত আছে। এ বছররেই তা আরো ৫০ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। 
উত্তরণ পল্লীর বেদে সম্প্রদায়ের সাপুড়ে মনু মিয়া (৬৫)। পরিবারের ৭জন সদস্য নিয়ে অনেক কষ্টে দিন যাপন করতেন। বসবাস করতেন সাভারের বংশী নদীর পাড়ে একটি পলিথিনের ছাউনি দেয়া ডেরার ভেতরে। 



মনু মিয়া জানান, ডিআইজি হাবিব স্যারের অবদান বেদে সম্প্রদায় কখনও ভুলবেনা।  তিনি এখন ২ ছেলে এবং ৩ মেয়ে নিয়ে বসবাস করেন উত্তরণ পল্লীতে। স্থায়ী বসবাস হওয়ায় লেখাপড়া ও জীবন-মান উন্নয়নে সুযোগ পাচ্ছে পরিবারের সদস্যরা। এমনিভাবে ৫০টি পরিবার বসবাস করছেন ডিআইজি হাবিবুর রহমানের উত্তরণ পল্লীতে। 

উত্তরণ ফাউন্ডেশনের পরিচালক (অর্থ) ও স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর রমজান আহাম্মেদ দৈনিক ভোরের পাতাকে জানান, উত্তরণ পল্লীতে ৪০টি বেদে ও ১০টি হিজড়া পরিবারের প্রায় ৩’শ লোক বসবাস করছেন। ২ শতাংশ জমির উপর নির্মিত আধাপাকা ঘরের সাথে রয়েছে পায়খানা ও রান্নার ব্যবস্থা। দুর্যোগ সহনীয় এই ঘরগুলো খুবই মজবুত। প্রতিটি ঘর নির্মানে খরচ হয়েছে ২লক্ষ ৫৮হাজার টাকা। এখানে বসবাস করে ফিছিয়ে পরা এ সম্প্রদায় স্বাচ্ছন্দবোধ করছেন। বিদ্যুৎ সংযোগ থাকায় রাতের উত্তরণ পল্লী আলো ঝলমলে পরিবেশে রূপ নেয়। 

বাংলাদেশ পুলিশের ডিআইজি ও উত্তরণ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান দৈনিক ভোরের পাতাকে জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমাদের সকলকে সরকারের সাথে কাজ করতে হবে। পিছিয়ে পরা জনগোষ্ঠিকে স্বাবলম্বী করে তুলতে সারাদেশে উত্তরণ ফাউন্ডেশন কাজ করে যাচ্ছে। উত্তরণ পল্লীতে স্কুল, খেলার মাঠ নির্মান, জীবন-মান উন্নয়নে আরো প্রকল্প গ্রহণ করে দৃষ্টিনন্দন করে গড়ে তোলা হবে। 

ডিআইজি হাবিবুর রহমান আরো জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত আছে তা বিশ্বের বিস্ময়। একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে এই পরিবর্তনের অংশ নিয়ে বেদে ও হিজড়া সম্প্রদায়ের জীবন-মান উন্নয়নে আমি কাজ করে যাচ্ছি।  তাই উত্তরণ পল্লী এখন স্বপ্ন নয়, বাস্তব। 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Comp 1_3.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]