বুধবার ১২ মে ২০২১ ২৯ বৈশাখ ১৪২৮

শিরোনাম: অপ্রতিরোধ্য করোনায়ও প্রতিরোধ গড়েছেন শেখ হাসিনা    চাঁদ দেখা যায়নি সৌদিতে, ঈদ বৃহস্পতিবার    মিতু হত্যা মামলায় স্বামী বাবুল আক্তার গ্রেপ্তার    মালয়েশিয়ায় ঈদ বৃহস্পতিবার    মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল স্থগিত চেয়ে আইনি নোটিশ    ৪৩তম বিসিএসের প্রিলি পরীক্ষার তারিখ পেছাল    মন্ত্রীদের বক্তব্য শুধু অশালীন নয়, অমার্জিত ও অগ্রহণযোগ্য: ফখরুল   
বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণাকে বাস্তবে রূপান্তর করার জন্য মুজিবনগর সরকার গঠিত হয়: গোলাম কুদ্দুছ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৩৫ পিএম আপডেট: ১৭.০৪.২০২১ ১১:৪৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

১৭ এপ্রিল বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে একটি ঐতিহাসিক দিন। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে বাংলাদেশে যে সরকার এই যুদ্ধটা পরিচালনা করেছিল তার অস্তিত্বটা আসলে কি ছিল এটা আমাদের আগে জানতে হবে। অনেকেই মুক্তিযুদ্ধ কে পরিচালনা করেছিল; এইসব বিষয় বলে ইতিহাসকে তারা বিভ্রান্ত করতে চেয়েছিল। আজ ১৭ এপ্রিল, ২০২১। ১৯৭১ সালের এদিনে মেহেরপুরের এক নিভৃত গ্রাম বৈদ্যনাথতলার আমবাগানে স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় যা ১০ এপ্রিলে গঠিত হয়েছিল।

দৈনিক ভোরের পাতার নিয়মিত আয়োজন ভোরের পাতা সংলাপের ৩১২তম পর্বে শনিবার (১৭ এপ্রিল) আলোচক হিসেবে উপস্থিত হয়ে এসব কথা বলেন-  বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সংসদ সদস্য, সাবেক বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী এবং সাবেক বাণিজ্য মন্ত্রী লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান, নিরাপত্তা বিশ্লেষক ও সামরিক গবেষক মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশিদ, লেখক ও গবেষক এবং  সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, জার্মান দূতাবাসে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনারারি কনস্যুলেট, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন জার্মানির প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার হাসনাত মিয়া, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ড. মোহাম্মদ আলী মানিক। দৈনিক ভোরের পাতা সম্পাদক ও প্রকাশক ড. কাজী এরতেজা হাসানের পরিকল্পনা ও নির্দেশনায় অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ভোরের পাতার সিনিয়র রিপোর্টার উৎপল দাস।

গোলাম কুদ্দুছ বলেন, আমি আমার আলোচনার শুরুতেই আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের স্রষ্টা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ আমাদের এই যুদ্ধে যারা অংশগ্রহণ করেছিল এবং এই যুদ্ধে যারা শহীদ হয়েছিল তাদের সবার আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। এই যে মুজিব নগর যেটা গঠন হয়েছিল ১০ই এপ্রিল এবং শপথ গ্রহণ করেছিল ১৭ই এপ্রিল এই যে সরকারের গঠন করা হয়েছিল এর বৈধতাটা কি? তাহলে আমাদের একটু পিছনের দিকে যেতে হবে। ১৯৭০ সালের পাকিস্তান গণপরিষদ নির্বাচনে শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সে নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে। ১৯৭০ সালের ৭ ডিসেম্বর থেকে ১৯৭১ সালের ১৭ জানুয়ারি পর্যন্ত বাংলাদেশে অবাধ নির্বাচনের মাধ্যমে শাসনতন্ত্র রচনার উদ্দেশ্যে প্রতিনিধি নির্বাচিত করা হয় এবং নির্বাচনে বাংলাদেশের জনগণ ১৬৯টি আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ দলীয় ১৬৭ জন প্রতিনিধি নির্বাচিত করে; কিন্তু জেনারেল ইয়াহিয়া খান ১৯৭১ সালের ৩ মার্চ শাসনতন্ত্র রচনার উদ্দেশ্যে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের অধিবেশন আহবান করেও বেআইনিভাবে অনির্দিষ্টকালের জন্য তা বন্ধ ঘোষণা করেন। এই নির্বাচনে একটি বিষয় প্রমাণিত হয়েছে পূর্ব পাকিস্তানের ১৬৯টি আসনে মধ্যে ১৬৭টি আসন পাওয়ার মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু এবং তার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগই পূর্ব বাঙলার জনগণের পক্ষে কথা বলবার বৈধ অধিকার লাভ করে। পাকিস্তানের শাসকগোষ্ঠী সে নির্বাচনের পর বিজয়ী শেখ মুজিবের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরে টালবাহানা করে। এর জের ধরে শুরু হওয়া তীব্র রাজনৈতিক সংকট শেষ পর্যন্ত গড়ায় ২৬শে মার্চে বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা ঘোষণার মধ্য দিয়ে। এবং এটিই হচ্ছে এই সরকারের বৈধতা। বঙ্গবন্ধুর এই ঘোষণাকে বাস্তবে রূপান্তরিত করার জন্য তার অনুসারীরা ১০ই এপ্রিল গণপরিষদের এবং প্রাদেশিক পরিষদের সদস্যরা মিলিত হয়ে তারা সম্মিলিতভাবে মুজিব নগর সরকার গঠন করে।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


আরও সংবাদ   বিষয়:  ভোরের পাতা সংলাপ   গোলাম কুদ্দুছ  







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  

সারাদেশ

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]