বুধবার ৩ মার্চ ২০২১ ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭

শিরোনাম: সাতছড়িতে বিজিবির অভিযানে ১৮ রকেট লঞ্চার উদ্ধার    যে কারণে বিএনপির অনুষ্ঠানেই উপেক্ষিত খালেদা জিয়া!    জামিন পেলেন কার্টুনিস্ট কিশোর    'নূন্যতম লজ্জাবোধ থাকলে ইসি মাহবুবের সমালোচনা করতেন না সিইসি'    বিএনপি-জামায়াত সম্পর্কে নতুন মোড়!    ইসির মামলায় ডা. সাবরিনার বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন ৫ এপ্রিল    আফগানিস্তানে ৩ নারী সাংবাদিককে গুলি করে হত্যা   
সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলনের সেই টেলিফোনের মতোই আমি!
আশেক খান
প্রকাশ: সোমবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:৪৭ এএম আপডেট: ২২.০২.২০২১ ১:০৩ এএম | অনলাইন সংস্করণ

সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলনের সেই টেলিফোনের মতোই আমি!

সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলনের সেই টেলিফোনের মতোই আমি!

‘আজ একটি ভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে লিখবো৷ ৮০র দশকে আমাদের বাসায় একটি ভিআইপি ল্যান্ডফোন ছিল যার নম্বর ছিল ৪১৩০৬০। ১৯৮২-৯০ সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলনে এই টেলিফোনটি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে৷ সেসময় প্রবল ছাত্র আন্দোলনের কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করলেই জাতীয় ছাত্রলীগের একাধিক নেতা-কর্মী আমাদের গোড়ানের বাসায় চলে আসতেন৷ আম্মা শুধু জিজ্ঞেস করতেন, তোমার দলের কতজন এসেছে? ব্যস, রান্না শুরু হয়ে যেত। যার যতদিন ইচ্ছে থাকতো৷ খাওয়া দাওয়া চলতো।

সে সময় আত্মগোপনে থাকা সকল নেতাদের সাথে যেগাযোগের জন্য টেলিফোনটি রাত-দিন ব্যবহৃত হতো। 

আমাদের বাসাটি সকলের জন্য নিরাপদ আবাস ছিল৷ কারণ আমার বড় ভাই ও সেজ ভাই দুজনই তখন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত মেজর ছিলেন এবং ঢাকাতে গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন৷ ফলে আমাদের বাসায় পুলিশী অভিযানের কোন ভয় ছিলনা৷ অতএব যাদের গ্রেফতার হবার বেশী ভয় ছিল তারাই সেসময় আমাদের বাসায় বেশী থাকতেন৷ 

তাদের মধ্যে তৎকালীন সময়ের জাতীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব নুরুল ফজল বুলবুল এবং জাতীয় ছাত্রলীদের আরেক সাধারণ সম্পাদক এবং বর্তমানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন অন্যতম। যারা দীর্ঘ সময় থাকতেন। আত্মগোপনে থেকে আন্দোলন করে যেতেন।

১৯৮৭ সালের ১০ই নভেম্বর (শহীদ নূর হোসেন দিবসে) আমাকে আন্দোলনরত অবস্থায় গুলি করা হয় এবং ডান পায়ের রগ কেটে দেয়া হয়৷ কিন্তু আমি বেঁচে যাই। দীর্ঘদিন আমি পঙ্গু ছিলাম। ফলে সেসময় আমাকে ঘরের মধ্যে বিছানাতেই থাকতে হতো। এসময় জাতীয় বীর এবং বাকশাল সাধারণ সম্পাদক মরহুম জননেতা আব্দুর রাজ্জাক আমাদের টেলিফোনটি ১৫ দলের ইনফরমেশন সেন্টার হিসেবে ব্যবহার করেন। আমার কাছে ১৫ দলের কর্মসূচীর বিভিন্ন তথ্য আসতো যা আমি আবার আন্দোলনরত অন্যান্য নেতাদের কাছে পৌঁছে দিতাম। প্রায় সকল জাতীয় নেতারাই ফোন করে ১৫ দলের তথ্য জেনে নিতেন। 

এক সময়ের গুরুত্বপূর্ণ এই ফোনটির আজ আর এই মূল্য নেই। ফোনটি আজ শুধুই স্মৃতি। ফোন নম্বরটিও এখন পরিবর্তন হয়ে হয়েছে ৭২১১৬৪৮।  প্রায়ই এর মধ্যে ধুলো পরে যায়।   আমিও দীর্ঘদিন রাজনীতি থেকে দূরে আছি। আমিও অনেকটা আমার টেলিফোনের মত হয়ে গেছি।

লেখক: সাবেক সভাপতি, জাতীয় ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  

সারাদেশ

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]