হাওলাদারকে সরিয়ে জাপার নতুন মহাসচিব রাঙ্গা

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

মনোনয়ন বাণিজ্যকে কেন্দ্র করে অসন্তুষ্টির জের ধরে এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারকে জাতীয় পার্টির মহাসচিব থেকে সরিয়ে দিয়েছেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তার পরিবর্তে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মশিউর রহমান রাঙ্গাকে মহাসচিবের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সোমবার সকালে পার্টির গঠনতন্ত্রের ক্ষমতাবলে এ সিদ্ধান্ত নেন। বিষয়টি জানিয়ে পার্টির চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে মশিউর রহমান রাঙ্গাকে চিঠিও দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে চিঠি পেয়েছেন জাপার নতুন এই মহাসচিব।

এরশাদের স্বাক্ষরিত চিঠিতে মশিউর রহমান রাঙ্গাকে উদ্দেশ্য করে বলা হয়েছে,- আপনাকে জাতীয় পার্টির মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব প্রদান করা হলো। পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্যের পাশাপাশি আপনি এই অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করবেন।

পার্টির গঠনতন্ত্রের ২০/১/ক ধারা মোতাবেক এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে- যা অবিলম্বে কার্যকর হবে। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, চেয়ারম্যান, জাতীয় পার্টি।

অভিযোগ আছে, জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারের নেতৃত্বে দলের একটি সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে মনোনয়ন বাণিজ্যের ব্যাপক অভিযোগ উঠে। টাকার বিনিময়ে দলের ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে বিতর্কিত বিত্তশালীদের দলে ভিড়িয়ে মনোনয়ন দেওয়ার গুরুতর অভিযোগ উঠে। এ নিয়ে জাতীয় পার্টির তৃণমূল নেতাকর্মীরা মহাসচিবের উপর প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ। শুধু তাই নয়, দলের মহাসচিব হিসেবে মহাজেটের আসন বন্টনে ত্যাগী নেতাদের মনোনয়ন নিশ্চিত না করে তিনি তার স্ত্রী নাসরিন হাওলাদার ও তার সিন্ডিকেটের মনোনয়ন নিশ্চিত করার তদবির করেন।

বিষয়টি জানাজানির পর টেলিফোনে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হাওলাদারের বিরুদ্ধে প্রকাশ্য অভিযোগ তুলেন নেতাকর্মীরা। এমনকি, বিভিন্ন স্থানে নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ বিক্ষোভ করেন। হাওলাদারের বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিলও হয়। এতে পার্টির ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়। সবমিলিয়ে পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ, বিরোধীনেতা রওশন এরশাদ দলের মহাসচিব হিসেবে হাওলাদারের উপর চরম ক্ষুব্ধ হন। এই মনোনয়ন বাণিজ্যের কারণে বিরোধী নেতা রওশন এরশাদের ঘনিষ্ট অনেক নেতাকেও বাদ দেওয়া হয় মহাজোটের কাছে পাঠানো প্রার্থী তালিকায়। দলের ভাবমূর্তি বাঁচাতে বিরোধী নেতা রওশন এরশাদের পরামর্শে শেষ পর্যন্ত পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ দলের মহাসচিবের পদ থেকে হাওলাদারকে সরিয়ে দেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here