গ্রামে গ্রামে ঘুরে “শেখ হাসিনার উন্নয়নের গল্প” প্রচার করছেন ছাত্রনেতা ইশতিয়াক

সিনিয়র প্রতিবেদক

বিশ্বের দীর্ঘতম বালুকাময় সমুদ্র সৈকত বেষ্টিত পর্যটন নগরী কক্সবাজার। এ জেলায় শেখ হাসিনা সরকার কয়েক লক্ষ কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মকান্ড করেছেন। যা অতীতে কোন সরকার করতে পারেনি। 

বিএনপি-জামাতের ভোট ব্যাংক হিসেবে স্বীকৃত কক্সবাজারের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অন্যরকম বাড়তি আগ্রহ রয়েছে। সরকারের বড় বড় সব উন্নয়ন প্রকল্পই কক্সবাজারে হচ্ছে। কি নেই কক্সবাজারে? একে একে এখানকার মানুষের সব চাহিদাই পূরণ করেছে আওয়ামী লীগ সরকার৷ 

আগামী একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ এই জেলার ৪টি আসন ধরে রাখতে নানামুখী পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। 

সে ক্ষেত্রে সবার আগে মাঠে নেমে তৃণমূলের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন তরুণ, মেধাবী ও ক্লিন ইমেজ নিয়ে কক্সবাজার -০৩(সদর-রামু) আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন কার্যক্রম সরাসরি তৃণমূলে পৌছে দিতে ছাত্রলীগ সভাপতির ব্যতিক্রম আয়োজনে সাধারণ মানুষের আগ্রহের কমতি নেই।

১৯ সেপ্টেম্বর কক্সবাজার পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের বৈদ্যঘোনা এলাকার খাজা মঞ্জিল মাঠে 'শেখ হাসিনার উন্নয়নের গল্প' নিয়ে হাজির হন ছাত্রলীগ সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয়। মাঠের চারপাশে বড় বড় ফেস্টুন যেখানে আলোকসজ্জা করে সাজানো হয়েছে সরকারের উন্নয়নমূলক কাজগুলো।
 
হাজারো মানুষ বড় এলইডি টিভিতে  দেখছে শেখ হাসিনার উন্নয়ন চিত্র আর ছাত্রলীগ সভাপতি শুনাচ্ছেন সরকারের
উন্নয়নের গল্প। 

আবার কখনো ছাত্রনেতা ইশতিয়াক সরাসরি দর্শকদের সাথে কথা বলছেন। দর্শক সারিতে থাকা উপস্থিতির মধ্যে কারা সরকারের গৃহিত নানান সুবিধা ভোগ করছেন কিংবা কারা বন্চিত হচ্ছেন  তা নিয়ে কথা বলছেন।অনেকেই বয়স্ক ভাতা/বিধবা ভাতা পাওয়ার কথা জানিয়ে শেখ হাসিনা সরকারের প্রতি সন্তুষ্টি প্রকাশ করছেন।

যেই শিশুরা নতুন বছরের প্রথম দিনে নতুন বই পেয়ে খুশিতে আত্মহারা তারাও জানাচ্ছেন নিজেদের অনুভূতির কথা৷

সন্ধ্যা ঘনিয়ে এসে যখন আধার হলো এলইডি স্ক্রিনে ভেসে ওঠলো “মানবতার মা শেখ হাসিনার” ছবি। অন্যদিকে ছাত্রনেতা জয় মাইক হাতে সাধারণ মানুষের কাছে উন্নত সমৃদ্ধশালী দেশ গড়তে আরো একবার নৌকার জন্য  ভোট প্রার্থনা চাইছেন। তখন হাজার হাজার মানুষ  জয়ের কথায় সম্মতি দেন এবং হাততালি দিয়ে নৌকায় ভোট দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। নির্বাচনী প্রচারণা হলেও এই ধরনের ব্যতিক্রমী আয়োজনে মানুষের আগ্রহটা একটু বেশি লক্ষ্য করা গেছে ।

তাই সকলেই সাধুবাদ জানাচ্ছেন কক্সবাজারে 'শেখ হাসিনার উন্নয়নের গল্প' শীর্ষক অনুষ্ঠানটি র প্রতি। ইশতিয়াক আহমেদ জয় বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গণতান্ত্রিক দল হিসেবে আওয়ামী লীগের অনেক প্রার্থীই মাঠে রয়েছেন। তবে বর্তমান সরকারের আমলে নিজের এলাকায় (সংসদীয় আসন) কি কি উন্নয়ন হয়েছে সেটাও অনেকে  ঠিক মতো তুলে ধরতে পারছেন না। 

এদিক বিবেচনায় সেপ্টেম্বর মাস থেকে কক্সবাজার ৩ (সদর-রামু) আসনের পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ড ও ২১ টি ইউনিয়নে তৃণমূল আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনকে নিয়ে সাধারণ ভোটারদের কাছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের গল্প নিয়ে হাজির হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন ইশতিয়াক আহমেদ জয়। তিনি বলেন, প্রতিটি ইউনিয়ননে আমি সাধারণ ভোটারদের বলতে চাই যে, তার ইউনিয়নের কতজন মানুষ এখন ভিজিএফ সুবিধা পাচ্ছে, কতজন বয়স্ক ভাতা পাচ্ছে, রাস্তাঘাটের কি ধরণের উন্নয়ন আগের চেয়ে বেশী হয়েছে, বিদ্যুৎ ও কর্মসংস্থানের সুযোগ যেভাবে তাদের জীবনযাত্রাকে পরিবর্তন করেছে। 

তাদের সামনে দৃশ্যমান উন্নয়নগুলো মনে করিয়ে দিতেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এলইডি স্ক্রিন ব্যবহার করে সাধারণ ভোটারদের উঠানে উঠানে গিয়ে এ কাজটি করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here