শুদ্ধি অভিযান দিয়ে ছাত্রলীগে রাব্বানীর এ্যাকশন শুরু

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আর্দশে বিশ্বাস করে না এমন অনুপ্রবেশকারীদের জন্য শুদ্ধি অভিযান শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। 

সোমবার সকালে ভোরের পাতার সঙ্গে আলাপকালে গোলাম রাব্বানী দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন,  ইতিমধ্যে যারা ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশ করেছে তাদের জন্য অব্যশই শুদ্ধি অভিযান শুরু হবে। তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে যাচাই বাছাই করে ছাত্রলীগ থেকে তাদের বিদায় করা হবে। 

ছাত্রলীগের আদর্শিক এই সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, বাংলাদেশ এবং বিদেশে ছাত্রলীগের সব কয়টি ইউনিটের কাছেই ভোরের পাতার মাধ্যমে এ বার্তা পৌঁছে দিতে চাই যে, যেসব ইউনিটে ছাত্রদল, শিবির থেকে অনুপ্রবেশ করে ছাত্রলীগের পদ বাগিয়ে নিয়েছে তাদের আর কোনো ছাড় দেয়ার সুযোগ নেই। কারণ সমানেই নির্বাচন। ছাত্রলীগকে বরাবরই অনুপ্রবেশকারীরাই বিতর্কিত করেছে। তাই বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার আদর্শিক রাজনীতিতে বিশ্বাসীদের ছাত্রলীগে ঠাঁই দেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হবে। 

প্রতিটি ইউনিটের কাছে অনুরোধ জানিয়ে কর্মীবান্ধব গোলাম রাব্বানী ভোরের পাতাকে বলেন, যদি কেউ ছাত্রদল, শিবির থেকে উঠে এসে ছাত্রলীগ করতে থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগের যেকোনো কর্মী বা নেতা নিজের নাম ঠিকানা ও পদবী উল্লেখ করে অভিযোগ দিতে পারেন। এক্ষেত্রে যিনি অভিযোগ দিবেন তাকে অবশ্যই এ বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে, রাজনৈতিকভাবে কাউকে হেয় করার জন্য যদি মিথ্যা তথ্য দেয়া হয় সেক্ষেত্রে অভিযোগকারীর বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেবে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। 

অনুপ্রবেশাকারীদের বিরুদ্ধে কিভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে এমন প্রশ্নের জবাবে গোলাম রাব্বানী বলেন, কারো বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের অভিযোগ আসলেই আমরা স্ব স্ব ইউনিট এবং কেন্দ্রের সিনিয়রদের সমন্বয়ে একটি যাচাই বাছাই করার জন্য তদন্ত কমিটি গঠন করবো। তদন্তে সুনির্দিষ্টভাবে কারো বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের অভিযোগ, পারিবারিকভাবে বিএনপি-জামায়াতের সংশ্লিষ্ঠতা পাওয়া গেলে তাকে সরাসরি ছাত্রলীগ থেকে বের করে তার নাম ঠিকানা অনুপ্রবেশকারী হিসাবে একটা রেড জোন (বিশেষ তালিকা) এ দেয়া হবে। ভবিষ্যতে যেন সেই অনুপ্রবেশকারী আর কোনোদিন ছাত্রলীগ করতে না পারে সে জন্যই এই রেড জোনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানান গোলাম রাব্বানী। 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here