বসানো হলো নবম স্প্যান,পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হলো ১৩৫০মিটার

  • ২২-মার্চ-২০১৯ ০৯:০৬ অপরাহ্ন
Ads

মোঃ জামাল মল্লিক, শরীয়তপুর ব্যুরো:
শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে শুক্রবার সকালে পদ্মা সেতুর নবম স্প্যানটি বসানো হয়েছে। সকাল ৯টার দিকে জাজিরা প্রান্তের ৩৪ ও ৩৫ নম্বর পিলারের উপর এ স্প্যান বসানো হয়। এতে পদ্মা সেতুর ১৩৫০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছে। 

পদ্মা সেতু প্রকল্পের উপ-সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ূন কবির স্প্যান বসানোর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জাজিরা প্রান্তে স্প্যান বসানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়। স্প্যান বহনকারী ক্রেনের নোঙর ছিঁড়ে যাওয়ায় ও নদীর নাব্য সঙ্কটের কারণে পদ্মা সেতুর নবম স্প্যানটি বৃহস্পতিবার বসানো হয়নি। শুক্রবার সকাল ৯টায় সেতুর ৩৪ ও ৩৫ নম্বর পিলারের উপর স্প্যানটি বসানো হয়। 

তিনি আরো বলেন, জাজিরা প্রান্তে এই নিয়ে অষ্টম ও মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়া প্রান্তে আগেএকটি স্প্যান বসানো হয়েছিলো। এর মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতুর মোট নবম স্প্যান বসানো হলো। এরই মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতুর উভয় প্রান্ত মিলিয়ে ১৩৫০ মিটার পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হয়েছে।

স্প্যান বসানোর কার্যক্রম দেখে আনন্দিত পদ্মার পাড়ের মানুষ। স্প্যান বসিয়ে জাজিরা প্রান্তে থেকে মাওয়া প্রান্তের দিকে এগিয়ে নেয়া হচ্ছে।

এর আগে বুধবার সকালে মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে রওয়ানা দিয়ে স্প্যানটি বিকালে জাজিরা প্রান্তে নিয়ে যাওয়া হয়। ধূসর রংয়ের স্প্যানের দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার আর ওজন তিন হাজার ১৪০ টন। তিন হাজার ৬০০ টন ধারণ ক্ষমতার ক্রেন “তিয়ান ই” স্প্যানটি বহন করে জাজিরার নাওডোবা নিয়ে যায়।

এর আগে ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপর প্রথম স্প্যান, ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি ৩৮ ও ৩৯ নম্বর পিলারের ওপর দ্বিতীয় স্প্যান, ১১ মার্চ ৩৯ ও ৪০ নম্বর পিলারের ওপর তৃতীয় স্প্যান, ১৩ মে ৪০ ও ৪১ নম্বর পিলারের ওপর চতুর্থ স্প্যান, ২৯ জুন ৪১ ও ৪২ নম্বর পিলারের ওপর পঞ্চম স্প্যান, ২০১৯ সালের ২৩ জানুয়ারি ৩৬ ও ৩৭ নম্বর পিলারের ওপর ষষ্ঠ স্প্যান ও সবশেষ গত ২০ ফেব্রুয়ারি ৩৫ ও ৩৬ নম্বর পিলারের ওপর সপ্তম স্প্যান বসানো হয়। এছাড়া মাওয়া প্রান্তে ৪ ও ৫ নম্বর পিলারের ওপর একমাত্র স্প্যানটি বসানো হয়।

পুরো সেতুতে মোট ৪২টি পিলারের ওপর স্প্যান বসবে ৪১টি। একেকটি পিলারের দূরত্ব ১৫০ মিটার।

Ads
Ads