" /> ভোরের পাতা

নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ফেসবুক লাইভে প্রচার করে হামলাকারী (ভিডিও)

  • ১৫-মার্চ-২০১৯ ১১:৫৫ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ এলাকার আল নূর মসজিদ ও লিনউড মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার সময় সেই হামলা ফেসবুক লাইভে প্রচার করে হামলাকারী। এঘটনায় জুমার নামাজরত বহু মুসুল্লী হতাহত হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো। প্রাথমিকভাবে ২৭ জন নিহত হয়েছে বলে ধারণা করা হলেও এর সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

১৭ মিনিটের ওই লাইভ ভিডিওটি ইতিমধ্যে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে হামলাকারীকে মসজিদে ঢুকে মুসল্লীদের উপরে নির্বিচারে গুলি করতে দেখা গেছে।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিক অবস্থায় বন্দুকধারী একজন মনে হলেও অন্য একজন ছিল বলে ধারণা করা যাচ্ছে। আর নিউজিল্যান্ডের একটি গণমাধ্যম জানিয়েছে, হামলাকারী একজন অস্ট্রেলিয়ান। তার বন্দুকের মধ্যে ‘ব্রেনটন টেরেন্ট’ লেখা ছিল। হামলাকারীর টুইটার একাউন্টও প্রকাশ করেছে গণমাধ্যমটি।

হ্যাগল পার্কের কাছেই আল নূর মসজিদ এবং লিন উড মসজিদে একই সময় হামলা হয় বলে জানিয়েছে নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় রেডিও।

আল নূর মসজিদ ঘটনাটির পর ১৭ মিনিটের ভিডিও ফুটেজে দেখা যায় কালো পোশাক পড়ে অটোমেটিক রাইফেল নিয়ে হামলা করা ওই হামলাকারী।

হামলা শেষে হামলাকারী একটি গাড়িতে করে চলে যায়, এবং ‘পিউডাইপাই’ নামে একটি চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করার কথা বলে লাইভ শেষ করে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক হতে পারে এবং অনেকের মৃত্যুর আশঙ্কা রয়েছে। পুলিশ বন্দুকধারীকে প্রতিহত করার চেষ্টা চালিয়েছে।

মোহন ইব্রাহিম নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, প্রথমে আমরা ভেবেছিলাম হয়তো বৈদ্যুতিক কোন শক হবে। কিন্তু এরপরেই সেখানকার মানুষজনকে প্রাণপণে ছুটতে দেখি।

লিন পেনেহা নামের আরেকজন জানান, তারা কালো পোশাকধারী একজনকে বন্দুক হাতে সেখানে ঢুকতে দেখেছে। সে অনেকটা সামরিক সজ্জায় ছিল। স্থানীয় সময় বেলা ১টা ৩০ মিনিটে নামাজ শুরু হওয়ার ঠিক দশ মিনিট পর একজন বন্দুকধারী সিজদায় থাকা মুসল্লিদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এরপর জানালার কাচ ভেঙে হামলাকারী পালিয়ে যায়। হামলাকারীর হাতে অটোমেটিক রাইফেল ছিল।

হ্যাগলি ওভাল মাঠের কাছেই ওই মসজিদটিতে জুম্মার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন কিউই সফরে থাকা বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা।তারা সবাই নিরাপদে আছেন বলে জানিয়েছেন দলের সঙ্গে থাকা ম্যানেজার খালেদ মাসুদ পাইলট।

Ads
Ads