আগামী সপ্তাহ থেকেই ডিএনসিসিতে উচ্ছেদ অভিযান: মেয়র আতিকুল

  • ১৩-মার্চ-২০১৯ ০২:৫৭ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, তুরাগ, বুড়িগঙ্গা তীরে যেভাবে অভিযান পরিচালিত হচ্ছে ঠিক সেভাবে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন এলাকায় খাল, পানি প্রবাহের স্থান যারা দখল করে আছে অথবা অন্য কোনোভাবে অবৈধ স্থাপনা আছে সেগুলো দখলমুক্ত করতে আগামী সপ্তাহ থেকে আমাদের অভিযান শুরু হবে। এই অভিযানে অবৈধ দখলকারী কেউ ছাড় পাবে না।

মঙ্গলবার (১২ মার্চ) রাজধানীর উত্তর বাড্ডা-সংলগ্ন সুতি খাল পরিদর্শনে এসে এসব কথা বলেন মেয়র।

মেয়র বলেন, আমি নগরবাসীর সেবায় সব প্রোটোকল ভেঙে সর্বাত্মক কাজ করতে চাই। ওয়াসার এমডিকে আমি নিজে কল করে জলবদ্ধতা নিরসনে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছি। আজ খাল পরিদর্শনে আসার সময় ওয়াসা থেকে প্রধান প্রকৌশলী আমাদের সঙ্গে এসেছেন। আমরা সবাই মিলে চেষ্টা করছি জলবদ্ধতা থেকে কিছুটা হলেও নগরবাসীকে মুক্তি দিতে। যদিও বর্ষা মৌসুম প্রায় চলে এসেছে, এই অল্প সময়ের মধ্যে শর্ট টার্মে কী কী করা যায় তা নিয়ে আমরা আলোচনার মাধ্যমে কাজ করছি।

তিনি বলেন, ‘খাল পরিদর্শনে এসে দেখতে পেলাম পানি প্রবাহের জায়গায় ময়লা, আবর্জনা, প্লাস্টিকসহ বিভিন্ন জিনিসের স্তুপ জমে হয়ে আছে। এগুলো পানির প্রবাহকে নষ্ট করছে। বর্ষার আগেই আমরা এগুলো পরিষ্কার করার পাশাপাশি খনন করে গভীরতা সৃষ্টি করব যেন পানি প্রবাহ ঠিক থাকে। পাশাপাশি আশপাশে যেসব দোকান আছে সেগুলোতে একটি মিনি বিন (ময়লার পাত্র) রাখা বাধ্যতামূলক করা হবে। যাতে করে কেউ এসব ময়লা খালে, ড্রেন না ফেলে।’

আগামী ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। যাতে করে সবাই সচেতন হয়ে নিজের আশপাশে পরিচ্ছন্ন রাখে। সবাই সচেতন হলে একটি পরিচ্ছন্ন সুন্দর নগরী গড়ে তোলা সম্ভব বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, আমরা কাজ করছি, করবো। আপনারা সবসময় আমাদের সঙ্গে ছিলেন। আমি আহ্বান জানাচ্ছি যেন আপনারা আগামীতেও আমাদের সঙ্গে থাকেন। ভালো কিছু করতে হলে জনমত গঠন করতে হবে। জনমতের সামনে কোনো কিছু টিকবে না। আর জনমত গঠনে গণমাধ্যমের বিকল্প কিছু নেই।

এদিন শুরুতে উত্তরার শায়েস্তা খান এভিনিউয়ের একটি খাল পরিদর্শনের মাধ্যমে মাঠ পর্যায়ের পরিদর্শন শুরু করেন মেয়র আতিকুল ইসলাম।  এসময় সেখানে ডিএনসিসি, ওয়াসা, পিডিবি, রেলওয়েসহ বিভিন্ন সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে খাল সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান।

ওয়াসার এক কর্মকর্তাকে উদ্দেশ্য করে মেয়র প্রশ্ন করেন, ‘খাল উদ্ধার করতে পারবেন আপনারা?’ কর্মকর্তা বলেন, ‘পারবো’। মেয়র প্রশ্ন করেন, ‘এজন্য কী আমাকে তাঁবু গেঁড়ে বসতে হবে?’। কর্মকর্তা বলেন, ‘না স্যার। দ্রুত খাল উদ্ধার হবে’। পাল্টা প্রশ্নে মেয়র বলেন, ‘কবে উদ্ধার হবে? আমাকে নির্দিষ্ট সময় বলেন। আমি টাইমলাইনে বিশ্বাসী’। তখন ঐ কর্মকর্তা বলেন, ‘এপ্রিলের মধ্যেই খাল উদ্ধার হবে’।

Ads
Ads