ঢাবির ফজলুল হক হলের প্রভোস্ট মিজানুর রহমানের পদত্যাগ

  • ৯-মার্চ-২০১৯ ০২:৪১ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমানের ছেলে হলের আবাসিক এক শিক্ষার্থীকে ‘দুই টাকার ছাত্র’ বলেছে। এমন অভিযোগে বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার (৮ মার্চ) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

ওই প্রভোস্টের পদত্যাগ দাবিতে হল অফিস প্রায় দুই ঘণ্টা অবরোধ করে রাখেন তারা। এসময় ছেলেসহ ওই প্রভোস্ট অবরুদ্ধ ছিলেন। পরে পদত্যাগ পত্র হাতে নিয়ে অধ্যাপক মিজানুর রহমান প্রক্টরিয়াল টিমের সাহায্যে হল ত্যাগ করেন।

হলের একজন আবাসিক শিক্ষক এসব তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এসময় ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকও উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মিজানুর রহমানের ছেলে শুক্রবারে জুমার নামাজ পড়তে যান। সামনের কাতারে যেতে গিয়ে তিনি রায়হান নামে এক ছাত্রের মাথায় পা লাগান। পরে নামাজ পড়া শেষে শিক্ষার্থী রায়হান তার পরিচয় জানতে চান। এসময় হল প্রভোস্টের ছেলে তার বাবাকে ডেকে আনেন। বাবার উপস্থিতিতেই ওই ছাত্রকে তিনি বলেন ‘দুই টাকার ছাত্র হয়ে আমার পরিচয় জানতে চাচ্ছে।’

এ কথায় ক্ষুব্ধ হয়ে হলের সব শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে হল প্রভোস্ট ও তার ছেলেকে হল অফিসে আটকে বিক্ষোভ করতে থাকেন। শিক্ষার্থীরা আজকের মধ্যেই তার পদত্যাগ দাবি করেন। এসময় তিনি পদত্যাগ করার ঘোষণা দেন। একটি পদত্যাগ পত্র লিখে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসায় গেছেন বলেও নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এ বিষয়ে জানতে হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমানকে ফোন দিলে তার মেয়ে পরিচয়ে একজন ফোন ধরেন। তিনি বলেন, ‘বাবা এইমাত্র বাসায় ফিরেছেন। সারাদিন তিনি খাওয়া-দাওয়া করেননি। পরে তিনি অবশ্যই আপনাকে কল ব্যাক করবেন।’

Ads
Ads