ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে জিতবেন কারা?

  • ৭-মার্চ-২০১৯ ১১:৪১ পূর্বাহ্ণ
Ads

উৎপল দাস

দীর্ঘ ২৮ বছর পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ নির্বাচন আগামী ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষ্যে সব ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ। এ নির্বাচনকে ঘিরে সবচে সরব রয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। আসন্ন ডাকসু নির্বাচনে ২৫ সদস্যের কেন্দ্রীয় প্যানেলও ঘোষণা করেছে। প্রচারণায় অন্যান্যদের চেয়ে কয়েকগুণ এগিয়ে রয়েছেন ছাত্রলীগের প্রার্থীরা। 

সাধারণ শিক্ষার্থী ও ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগের পূর্ণ প্যানেলই বিপুল ভোটে জিতে আসতে পারে। তবে দুই একটি পদে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাসও পাওয়া গেছে। 

এক্ষেত্রে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে সহ-সভাপতি (ভিপি) পদে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী কমপক্ষে ৭ থেকে ১০ হাজার ভোটের ব্যবধানে এ নির্বাচনী জয়ী হবেন বলে আভাস পাওয়া গেছে। তবে সবচে বেশি ভোটের ব্যবধানে জিততে পারেন ডাকসুতে ছাত্রলীগের প্যানেলের সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) পদের প্রার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। ছাত্রলীগের ২৫ জনের প্যানেলে সবচে ক্লিন ইমেজ নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থী ও ভোটারদের মধ্যে তুমুল জনপ্রিয় মিষ্টভাষী সাদ্দাম কমপক্ষে ১২ হাজার ভোটের ব্যবধানে জিতবেন বলে আভাস পাওয়া গেছে। 

সম্পাদকীয় পদগুলোতে সবচে বেশি ভোটের ব্যবধানে জয়ী হতে পারেন সমাজসেবা সম্পাদক আজিজুল হক সরকার। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক গ্রহণযোগ্য ও ক্লিন ইমেজের কারণে আজিজুলের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীরা তেমনভাবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতে পারবেন না বলেই জানা গেছে।
তারপরই রয়েছেন সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসিফ তালুকদার। ছাত্রলীগের হল শাখার নেতা হিসাবে এবং কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব প্রতিরোধে দারুণ কাজ করার জন্য সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে আসিফ তালুকদারের। মুক্তিযুদ্ধ সম্পাদক সাদ বিন কাদের, ক্রীড়া সম্পাদক শাকিল আহামদ তানভীরও জিতে আসতে পারেন বিপুল ভোটের ব্যবধানে। 

সম্পাদকীয় পদে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে কমনরুম ও ক্যাফেটরিয়া সম্পাদক বিএম লিপি আক্তারকে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখোমুখি হতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে। একই পদে ছাত্রদলের প্রার্থী কানেতা ইয়ালাম লাম তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন বলে আভাস পাওয়া গেছে। এছাড়া, ছাত্রলীগের প্যানেলের আঞ্চলিকতার দোহায় দিয়ে পরবর্তীতে ঠাঁই পাওয়া ছাত্র পরিবহণ সম্পাদক শাসম ই নোমানও তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখোমুখি হতে পারেন। ছাত্রদলের ছাত্র পরিবহন বিষয়ক সম্পাদক মাহফুজুর রহমান চৌধুরীও এ পদে ব্যাপক ভোট কাটতে পারেন বলে জানা গেছে।
সদস্যদের মধ্য থেকে সবচে বেশি ভোট পেতে পারেন চিবল সাংমা। এরপর তিলোত্তমা শিকদার, নজরুল ইসলাম, রাকিবুল হাসান, রাকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য, তানভীর হাসান সৈকত, , সাবরিনা ইতি, নিপু ইসলাম তন্বী, ফরিদা পারভীন, রাইসা নাসের এবং মাহমুদুল হাসান।
 

Ads
Ads