জামাত তাড়াতে যেসব কঠোর মনোভাব নিয়েছে বিএনপি!

  • ২০-ফেব্রুয়ারী-২০১৯ ০৬:৪০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

এবার ২০ দলীয় জোট থেকে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীকে তাড়াতে কঠোর অবস্থান নিয়েছে বিএনপি। ইতিমধ্যে বিএনপির একটি প্রভাবশালী গ্রুপ ঐক্যমতে পৌঁছেছে যে কোন মূল্যেই হোক জামাতের সাথে সর্ম্পক ছিন্ন করবে বিএনপি। বিষয়টি ইতিমধ্যে লন্ডনে অবস্থানরত তারেক রহমানের কাছে তুলে ধরেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল রাতে বিএনপি মহাসচিব লন্ডন থেকে দেশে ফিরেছেন। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের তরফ থেকেও জামাত বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা জানানো হয়েছে বিএনপিকে।

এদিকে জোটের শরিকরা বলছেন, জাতীয় নির্বাচনের পর ২০ দলীয় জোটের রাজনীতিতে স্থবিরতা বিরাজ করছে। মাঠের রাজনীতিতে জোটটি খুব বেশি ভূমিকা পালন করতে পারছে না। ঐক্যফ্রন্টের রাজনীতিতে বিএনপি ব্যস্ত থাকায় ২০ দলীয় জোটের সঙ্গে তাদের দূরত্ব বাড়ছে। এ কারণে একে অপরের প্রতি অবিশ্বাস বাড়ছে এবং জোটের মতাদর্শের ভাঙন লক্ষণীয়। ২০ দলীয় জোট নেতারাও বর্তমানে জামাতকে আপদ মনে করছেন। তাদের মতে, ভোটের রাজনীতিতে আগের মত জামাত আর ফ্যাক্টর নয়।  ২০ দলীয় জোটের আরেক শরিক দল বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ মনে করেন, সবার ঐক্য বিএনপির সঙ্গে। জামায়াত থাকা না থাকায় জোটে খুব একটা প্রভাব ফেলবে না বলে তিনি মনে করেন।

বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, খালেদা জিয়া জেলে যাওয়ার পর থেকেই জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির দূরত্ব তৈরি হয়। কারণ, জামায়াত কৌশলে মামলা-হামলা থেকে বাঁচতে খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে বলেও বিএনপির রাজনীতিতে গুঞ্জন চলছে। এছাড়াও সিটি কর্পোরেশন, জাতীয় নির্বাচনের মতো আসন্ন স্থানীয় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও বিএনপির নির্দেশনা অমান্য করেছে জামায়াত। জামায়াত উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী দেয়ার পরিকল্পনা করছে বলেও বিএনপির কাছে খবর আছে। এসব বিবেচনা থেকেই ২০ দলীয় জোটে না রাখার পক্ষপাতী বিএনপি। তাছাড়া জামায়াতের বিরুদ্ধে ক্রমাগত অভিযোগের কারণে দলটির প্রতি মন বিষিয়ে উঠেছে বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের অন্যান্য শরিকদের।

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান এক সাক্ষাৎকারে বলেন, বিএনপি জামায়াতকে ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিলে বরং ভালোই হবে। আমি সব সময়ই মনে করি, জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির জোট থাকা উচিত না। বিএনপির রাজনৈতিক ক্ষতি হয়েছে জামায়াতের সঙ্গে থেকে। জামায়াতের অতীত অপকর্মের কারণে বিএনপির যাবতীয় অর্জন ম্লান হয়ে গেছে। জামায়াতের পাপের ভাগ নিয়ে বিএনপি দেশে ও বিদেশে কলঙ্কিত হয়েছে। এই পাপের বোঝা আর বইতে চাই না আমরা। জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ করলে বিএনপি কিছুটা হলেও জনগণের আস্থা ফিরে পেতে পারে। বিএনপি অতীতে ভুল-ত্রুটি থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন রূপে রাজনীতিতে ফিরতে চায়। নিছক সহযোগিতা পাওয়ার মিথ্যে আশ্বাসে ভরসা করার মতো আর বড় ধরনের ভুল করবে না বিএনপি।

সূত্র: বাংলা ইনসাইডার

Ads
Ads