তা হল- আদা

আদা আমাদের সবার পরিচিত একটি মসলা। আসলে এটি একটি রুপান্তরিত কান্ড, কারণ এটি মাটির নীচে হয়ে থাকে। আমরা মূলত একে রান্নার কাজে ব্যবহৃত করে থাকি। এটি আমাদের রান্নার স্বাদ এবং ঘ্রাণ বাড়িয়ে থাকে। আদা কিন্তু শুধুই রান্নার স্বাদ বাড়িয়ে থাকে তা নয়, বরং এটি আমাদের স্বাস্থ্যেরও অনেক উপকার করে থাকে। সেই প্রাচীনকাল থেকেই মানুষ  তার নানা রোগের চিকিৎসায় আদা ব্যাবহৃত করে আসছে। এতে প্রচুর পরিমাণে আছে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপাটিজ, উপকারি ফ্যাটি অ্যাসিড, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম, ফসফরাস সহ নানারকম উপকারি উপাদান যা আমাদের জন্য ভীষণ উপকারি। বিশেষ করে আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমাতে আদা সবচেয়ে ভালো প্রাকৃতিক সমাধান। আসুন জেনে নিই আদা কিভাবে আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমিয়ে থাকে।

আদা যেভাবে আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমায়ঃ

আদা কিন্তু একটি মসলা নয়, এটি নানাভাবে আমাদের অনেক উপকার করে থাকে। বিশেষ করে আমাদের আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমাতে এটি দারূন কার্যকরী। আসলে আদায় আছে প্রচুর পরিমাণে প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক এবং অ্যান্টিহিস্টামাইন নামের ভীষণ উপকারি দুটি উপাদান। যা আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমাতে সবচেয়ে ভালো ভুমিকা পালন করে। একই সাথে আদার অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান আমাদের এ সমস্যা দূর করতে বিশেষ ভাবে কার্যকরী।

যেভাবে খাবেনঃ

আপনি যদি গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভুগে থাকেন তাহলে আদা হতে পারে আপনার সবথেকে কার্যকরী প্রাকৃতিক ওষুধ। এজন্য প্রতিদিন ২ কাপ পানিতে এক টুকরো আদা দিয়ে ভালোভাবে ফুটিয়ে চায়ের মতো বানিয়ে পান করুন। এতে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা একদম দূর হয় যাবে। এছাড়াও আদা কুচি লবন দিয়ে খেলেও অনেক উপকার হয়ে থাকে। এছাড়াও আদা চা খেলেও অনেক উপকার হয়।

 

/কে 

" /> ভোরের পাতা

গ্যাস্টিকের সমস্যা সমাধানে আদা

  • ১২-ফেব্রুয়ারী-২০১৯ ০৮:৫৩ অপরাহ্ন
Ads

আমরা যতো কাজকর্ম করি তার প্রধান উদ্দেশ্য কিন্তু খাওয়াই থাকে। কিন্তু অনেকেই আছেন এই কাজের ব্যস্ততায় খাওয়ার কথা ভুলে বসে থাকেন। সকালে তাড়াহুড়ো করে বের হতে গিয়ে সকালের নাস্তা না করা বা দুপুরে কাজের ব্যস্ততায় বিকেল গড়িয়ে খাবার খাওয়ার মতো কাজ অনেকেই অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন। এই অভ্যাসের পরিণতি গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা। খাওয়ার সময় এবং খাবার একটু এদিক সেদিক হলেই প্রচণ্ড ব্যথা হতে থাকে যাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা রয়েছে।

এই বিষয়টি মোটেও অবহেলা করার মতো নয়। কারণ অবহেলার কারণেই সাধারণ গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা মারাত্মক আলসারের আকার ধারণ করে। তাই গ্যাস্ট্রিকের সমস্যাকে অবহেলা নয়। নিয়ম মেনে চলে এবং ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়ে সমস্যার সমাধান করা উচিত। তবে গ্যাস্ট্রিকের সাধারণ ব্যথা সমস্যার সমাধান কিন্তু আপনি ঘরেই করে নিতে পারেন। 

তা হল- আদা

আদা আমাদের সবার পরিচিত একটি মসলা। আসলে এটি একটি রুপান্তরিত কান্ড, কারণ এটি মাটির নীচে হয়ে থাকে। আমরা মূলত একে রান্নার কাজে ব্যবহৃত করে থাকি। এটি আমাদের রান্নার স্বাদ এবং ঘ্রাণ বাড়িয়ে থাকে। আদা কিন্তু শুধুই রান্নার স্বাদ বাড়িয়ে থাকে তা নয়, বরং এটি আমাদের স্বাস্থ্যেরও অনেক উপকার করে থাকে। সেই প্রাচীনকাল থেকেই মানুষ  তার নানা রোগের চিকিৎসায় আদা ব্যাবহৃত করে আসছে। এতে প্রচুর পরিমাণে আছে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপাটিজ, উপকারি ফ্যাটি অ্যাসিড, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম, ফসফরাস সহ নানারকম উপকারি উপাদান যা আমাদের জন্য ভীষণ উপকারি। বিশেষ করে আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমাতে আদা সবচেয়ে ভালো প্রাকৃতিক সমাধান। আসুন জেনে নিই আদা কিভাবে আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমিয়ে থাকে।

আদা যেভাবে আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমায়ঃ

আদা কিন্তু একটি মসলা নয়, এটি নানাভাবে আমাদের অনেক উপকার করে থাকে। বিশেষ করে আমাদের আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমাতে এটি দারূন কার্যকরী। আসলে আদায় আছে প্রচুর পরিমাণে প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক এবং অ্যান্টিহিস্টামাইন নামের ভীষণ উপকারি দুটি উপাদান। যা আমাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমাতে সবচেয়ে ভালো ভুমিকা পালন করে। একই সাথে আদার অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান আমাদের এ সমস্যা দূর করতে বিশেষ ভাবে কার্যকরী।

যেভাবে খাবেনঃ

আপনি যদি গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভুগে থাকেন তাহলে আদা হতে পারে আপনার সবথেকে কার্যকরী প্রাকৃতিক ওষুধ। এজন্য প্রতিদিন ২ কাপ পানিতে এক টুকরো আদা দিয়ে ভালোভাবে ফুটিয়ে চায়ের মতো বানিয়ে পান করুন। এতে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা একদম দূর হয় যাবে। এছাড়াও আদা কুচি লবন দিয়ে খেলেও অনেক উপকার হয়ে থাকে। এছাড়াও আদা চা খেলেও অনেক উপকার হয়।

 

/কে 

Ads
Ads