রিহ্যাব মেলার শেষদিনেও দর্শনার্থীদের ভিড়

  • ১১-ফেব্রুয়ারী-২০১৯ ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ
Ads

আনন্দিত প্রদর্শনীতে অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠান আরডিডিএল

:: জিএম রফিক ::

টানা পঞ্চমদিনের আয়োজনের মধ্যে দিয়ে শেষ হলো ‘রিহ্যাব ফেয়ার-২০১৯’। গত ৬ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) শেষ হলো দেশের আবাসন খাত নিয়ে আয়োজিত সব থেকে বৃহৎ এই আয়োজন। আর শেষদিনেও আগ্রহ নিয়ে এসেছেন দর্শনার্থীরা।

রোববার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে চলমান মেলা প্রাঙ্গণে দেখা গেছে, সকাল থেকেই ভিড় করছেন দর্শনার্থীরা। সকাল ৯টায় মেলা শুরু হওয়ার আগে থেকেই মেলা প্রাঙ্গণের বাইরে অপেক্ষা করতে দেখা যায় দর্শনার্থীদের। 

শেষদিনের শুরুতেই দর্শনার্থীদের এমন সাড়া পেয়ে আনন্দিত প্রদর্শনীতে অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠান রূপান্তর ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট লি. (আরডিডিএল)।

আর এই আরডিডিএলের ছিল তিনটি আবাসন প্রকল্প- পদ্মাপাড়ের শহর (মাওয়া), নর্থ পূর্বাচল রূপান্তর লেকসিটি (পুবাইল) ও স্বপ্নপুরী রূপান্তর লেকসিটি (সাভার)। তবে শেষদিনে বিকিকিনির থেকে দর্শনার্থীদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের দিকেই বেশি গুরুত্বারোপ করছে আরডিডিএল।

মেলায় অংশ নেওয়া আরডিডিএল প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী আহসান কাদির সাগর ‘ভোরের পাতা’কে বলেন, ‘এখন পর্যন্ত মেলায় আমরা গ্রাহকদের কাছ থেকে দারুণ সাড়া পেয়েছি। তবে ডিল যা হওয়ার তার বেশিরভাগ গতকালের (শনিবার) মধ্যেই হয়ে গেছে।’ ‘আজ (রোববার) কিছু হবে। তবে আমাদের বর্তমান গ্রাহক এবং আজ  (রোববার) যারা আসবেন তাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখা, নতুন করে সম্পর্ক গড়ার দিকেই জোর দিচ্ছি আমরা।’

প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারপারসন ড. কাজী এরতেজা হাসান সিআইপি বলেন, ‘সুন্দর ও মনোমুগ্ধকর প্রাকৃতিক পরিবেশ, সুখ-স্বাচ্ছন্দ্য এবং নিরাপদ বাসস্থান মানুষের যুগ-যুগান্তরের চাওয়া। সবুজ-শ্যামল প্রকৃতি মানুষের জন্মগত প্রয়োজন। রাজধানী ঢাকা আমাদের প্রিয় শহর। আর এই স্বপ্নের নগরীতে একটি সুখের নীড় গড়তে প্রয়োজন একখণ্ড নিষ্কণ্টক জমি। তাই সবাই চায় নিজের ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের যানজট শব্দ দূষণ, কালো ধোঁয়ার প্রভাবমুক্ত নিরিবিলি সবুজে ঘেরা শান্তির নীড়। আর এ সবকিছুর সমারোহে এক মিলনমেলার আজকের অত্যাধুনিক, সুপরিকল্পিত ও পরিছন্ন নগরী রূপান্তর ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট লি. (আরডিডিএল)। আরডিডিএল- একটি নাম, একটি বিশ্বাস। আর এই বিশ্বাস, আন্তরিকতা ও অঙ্গীকারকে পুঁজি করেই আমাদের যাত্রা শুরু। আরডিডিএলের তিনটি আবাসন প্রকল্প- পদ্মাপাড়ের শহর (মাওয়া), নর্থ পূর্বাচল রূপান্তর লেকসিটি (পুবাইল) ও স্বপ্নপুরী রূপান্তর লেকসিটি (সাভার)। যা আপনার চাহিদা অনুযায়ী সাধ ও সাধ্যের মধ্যে এক একটি নগরী। আর তাই রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব) আয়োজিত পাঁচদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ‘রিহ্যাব ফেয়ার ২০১৯’-মেলায় আমার তিনটি প্রকল্পেরই আশানুরূপ প্লট বুকিং এবং সেল হয়েছে। এজন্য মেলা আয়োজক কমিটি (রিহ্যাব) এমন একটি আয়োজন সুন্দর ও সার্থকভাবে সম্পন্ন করায় কর্তৃপক্ষকে জানাই আমার আন্তরিক অভিনন্দন এবং যারা আমার প্রকল্পের বরাদ্দে বুকিং ও ক্রয় করেছেন তাদের প্রতিও রইল আমার প্রাণঢালা শুভেচ্ছা।’ 

দর্শনার্থীদের এমন অংশগ্রহণে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন প্রদর্শনীর আয়োজক কমিটির সদস্য এবং রিহ্যাব ভাইস চেয়ারম্যান কামাল মাহমুদ। তিনি ‘ভোরের পাতা’কে বলেন, ‘রোববার পর্যন্ত আমাদের মেলায় দর্শনার্থীর সংখ্যা ২০ হাজার ছাড়িয়েছে। এটা শুধু টিকিটের সংখ্যার ওপর বললাম। আরও অনেকেই এসেছেন যারা হয়তো টিকিট নেননি।... তো সব মিলিয়ে আমাদের এবারের আয়োজনে সব থেকে বেশি লোকসমাগম হয়েছে। মেলায় অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো ভালো রিপোর্ট দিয়েছে। সব মিলিয়ে দারুণভাবে সফল এক আয়োজন হলো এবার।’

Ads
Ads