সরকারি কৌঁসুলিদের পদত্যাগের আহ্বান আইনমন্ত্রীর

  • ১৪-জানুয়ারী-২০১৯ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

ভোরের পাতা ডেস্ক
অল্প সময়ের মধ্যে অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল থেকে এজিপি পর্যন্ত সব সরকারি কৌঁসুলিকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। 

 রোববার (১৩ জানুয়ারি) বিকালে সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের আলোচনা সভায় তিনি এ আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে সরকারের বেশ কয়েকজন মন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, আমি বলবো, অতি অল্প সময়ের মধ্যে অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল থেকে শুরু করে সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল, পিপি, এপিপি, জিপি, এজিপি সকলকে পদত্যাগ করতে যাতে নতুন করে আমরা নিয়োগ দিতে পারবো।

তিনি বলেন, যারা ত্যাগী তাদেরকেই অগ্রাধিকার দেয়া হবে। এবং হাইব্রিড রাখবো না।

অনুষ্ঠানে বক্তারা স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি যেন রাজনীতিতে পুনর্বাসিত হতে না পারে সেজন্য সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

আলোচনা সভায় আইনজীবী নেতাদের পাশাপাশি নবগঠিত মন্ত্রিপরিষদে আইন পেশার সঙ্গে যুক্ত মন্ত্রীরাও বক্তব্য রাখেন। এসময় মন্ত্রীরা ভোটারদের উন্নয়নের প্রতি আস্থা ধরে রাখতে, আইনজীবীদের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেন, অসমাপ্ত কাজগুলি সমাপ্ত করার জন্য আমাদেরকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এটা আমাদের জন্য অত্যান্ত গুরুত্ব বহন করে। এবং আমরা সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজগুলো করার চেষ্টা করছি, করবো।

রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, একাত্তরের পরাজিত শক্তি যেন বাংলাদেশের রাজনীতিতে আর কখনোই প্রবেশ করতে না পারে। মুক্তিযুদ্ধের প্রশ্নে যারা কোনো বিবাদ বা প্রশ্নাতীতভাবে রাজনীতি করবে তারাই একমাত্র রাজনীতি করার সুযোগ পাবে।

গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, বঙ্গবন্ধু ফিরে না এলে আমাদের বিজয় এবং স্বাধীনতা অর্থবহ হতো না। আর শেখ হাসিনা ফিরে না এলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পুনঃপ্রতিষ্ঠা হতো না।

বর্তমানে শুধু উচ্চ আদালতেই দুই শতাধিক রাষ্ট্রীয় আইন কর্মকর্তা দায়িত্বরত আছেন।
 

Ads
Ads