বিসিবি থেকে সরে দাঁড়িয়েছে রবি!

  • ২৬-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা অনলাইন ::

সোমবার (২৭ আগস্ট) থেকে আসন্ন এশিয়া কাপের জন্য আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি শুরু করবে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। কিন্তু তার আগের দিন রোববারে (২৬ আগস্ট) দুপুর গড়িয়ে বিকেল আসতেই ‘স্পন্সরশূন্য’ হয়ে গেল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। চুক্তির মেয়াদ প্রায় এক বছর (১০ মাস) বাকি থাকতেই সরে দাঁড়িয়েছে বিসিবির স্পন্সর ‘রবি’।

দ্বিতীয় মেয়াদে গত বছরের জুলাই থেকে বিসিবির সঙ্গে চুক্তি ছিল রবির। চুক্তির আওতায় শুধু ছেলেদের জাতীয় দলই নয়, ‘এ’ দল ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের পাশাপাশি ছিল মেয়েদের জাতীয় দলও। তবে চুক্তির বেশ কিছু শর্ত পূরণ করা, না করা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই দুই পক্ষের সম্পর্কে টানাপোড়েন চলছিল বলে জানা গেছে। আলোচনায়ও সুরাহা খুব একটা হয়নি। সেটির ধারাবাহিকতায়ও এল চুক্তি বাতিলের এই সিদ্ধান্ত।

স্পন্সরশিপের চুক্তি বাতিলের ব্যাপারে বিসিবির পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি। তবে মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান রবির পক্ষ থেকে সংবাদ মাধ্যমে নিশ্চিত করা হয়েছে বিসিবির সাথে তাদের চুক্তি বাতিলের বিষয়টি।

'বাংলাদশ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে চলমান পৃষ্ঠপোষকতা বিষয়ক চুক্তিটি প্রাসঙ্গিকতা হারানোয় দেশের ক্রিকেটের গৌরবাজ্জ্বল এই মুহূর্তে ভারাক্রান্ত হৃদয়ে দায়িত্ব থেকে আমরা সরে দাঁড়াচ্ছি। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রতি আমাদের অকুণ্ঠ সমর্থন অব্যাহত থাকবে এবং ভবিষ্যতে ভিন্ন পরিসরে দলের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ পেলে আমরা কৃতার্থ থাকব।'

বিবৃতিতে সুনির্দিষ্ট কারণ না জানালেও বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে, চুক্তির বিভিন্ন শর্ত বিসিবি ঠিকভাবে পালন করতে পারছে না বলে অনেক দিন থেকেই অভিযোগ জানিয়ে আসছিল রবি। তাতে কাজ না হওয়ায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

২০১৫ সালে প্রথম দফায় বিসিবির সঙ্গে স্পন্সরশিপের চুক্তি হয় রবির। টাকার অঙ্ক আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো না হলেও সেটি ৩০ কোটি টাকা বলে জানা গিয়েছিল। গত বছরের মে মাসে আবারও দুই বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয় রবি। এবারও টাকার অঙ্ক জানানো হয়নি। তবে তা আগের বারের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ বলে বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত পূরণ করা গেল না চুক্তির মেয়াদ।

 

অনলাইন/কে 

Ads
Ads