সেনা নিয়ে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের বিবৃতি ‘আপত্তিজনক’: আ.লীগ

  • ২৪-Dec-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

একাদশ সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন নিয়ে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে যে বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে তা খুবই ‘আপত্তিজনক ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ বলে দাবি করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

সেনা মোতায়েন নিয়ে কারও উচ্ছ্বসিত হওয়ার কোনও কারণ নেই জানিয়ে দলটির নেতারা বলছেন, সেনাবাহিনী কোনও দল বা কারও পক্ষে কাজ করবে না। তারা নির্বাচনে নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করবে। 

সোমবার (২৪ ডিসেম্বর) নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে সাক্ষাত শেষে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিদলের প্রধান ও দলটির কেন্দ্রীয় নেতা আক্তারুজ্জামান এমন দাবি করেন।

এর আগে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধিদল নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সঙ্গে সাক্ষাত করে দেশের বিভিন্ন স্থানে দলের নেতাকর্মী ও নির্বাচনী কেন্দ্রে হামলার অভিযোগ করেন।

সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের প্রেক্ষাপটে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিবৃতিতের প্রসঙ্গ টেনে আক্তারুজ্জামান বলেন, ‘আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, বিএনপি ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে আমাদের দেশপ্রেমিক, পেশাদার, সুশৃঙ্খল সেনাবাহিনীকে নিয়ে যে বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে তা খুবই আপত্তিজনক ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। তারা কোনও দলের বা পক্ষের নয়। কাজেই সেনাবাহিনীকে নিয়ে কারও এত উচ্ছ্বসিত হওয়ার কোনও কারণ বা সুযোগ নেই।’

উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের পেশাদার সেনাবাহিনীর একটি সার্বজনীন মর্যাদা রয়েছে। এই বাহিনীকে প্রশ্নবিদ্ধ বা বিতর্কিত করতে পারে এমন কোনও বক্তব্য বা বিবৃতি থেকে সবাইকে বিরত থাকতে হবে। সবাই এ ধরনের বক্তব্য দেয়া থেকে বিরত থাকবে বলে আমরা আশা করি।’

সেনা মোতায়েন করার ফলে নির্বাচনের পরিবেশ স্বাভাবিক হবে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সেনাবাহিনী আসছে, আমরা আশা করি পরিবেশ নিশ্চয়ই আগের থেকে আরও ভালো হবে। সুন্দর ‍ও সুষ্ঠু হবে। সকলের সহযোগিতায় ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন অত্যন্ত সফলভাবে সম্পন্ন হবে।’

এর আগে তিনি দেশের বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগের ৫ জন নেতাকর্মী নিহত ও ২৫০ জন আহত হয়েছে দাবি করে এর সঙ্গে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট জড়িত বলে অভিযোগ করেন। এছাড়া তিনি সিলেট, চট্টগ্রাম, কুমিল্লাসহ বেশ কিছু স্থানে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর বিএনপি-জামাত হামলা করেছে দাবি করে দ্রুততার সঙ্গে এর সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের ইসির হস্তক্ষেপ চেয়েছে।

প্রতিনিধিদলে অন্যদের মধ্যে ছিলেন- দলের উপদফতর সম্পদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় নেতা মারুফা আক্তার পপি, রিয়াজুল কবীর কাওছার, নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য ড. সেলিম মাহমুদ, অ্যাডভোকেট নজিবুল্লাহ হিরু, ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পী, শাহাবুদ্দিন ফরাজী, গিয়াস উদ্দিন পলাশ প্রমুখ।

Ads
Ads