জনসভা থেকে বিএনপির ৭ দফা, ১২ লক্ষ্য, ২ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা

  • ৩০-Sep-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক :

আগামী ৩ অক্টোবর দেশের জেলায় জেলায় সমাবেশ, জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান এবং ৪ অক্টোবর মহানগরগুলোতে সমাবেশ ও বিভাগীয় কমিশনার বরাবর স্মারকলিপি দেওয়ার কর্মসূচি দিয়েছে বিএনপি।

রবিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকালে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) আয়োজিত জনসভায় এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

খালেদা জিয়ার মুক্তি, তারেক রহমানের মামলা প্রত্যাহার, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবিতে এসব কর্মসূচি দেওয়া হয়। বিএনপির মহাসচিব জানান, পর্যায়ক্রমে আরও কর্মসূচি আসবে। জনসভায় ৭ দফা ও ১২টি লক্ষ্যও ঘোষণা করা হয়।

সাত দফা দাবি হলো:

১. খালেদা জিয়ার মুক্তি

২. জাতীয় সংসদ বাতিল করা

৩. সরকারের পদত্যাগ ও সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠন করা

৪. সুষ্ঠু নির্বাচনে স্বার্থে ভোটকেন্দ্রে বিচারিক ক্ষমতাসহ সশস্ত্রবাহিনী নিয়োগ

৫. নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার না করা

৬. নির্বাচনে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক নিয়োগ এবং তাদের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ না করা

৭. ক. বিরোধী রাজনৈতিক নেতা-কর্মীর মুক্তি, সাজা বাতিল ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার

খ. তফসিল ঘোষণার দিন থেকে ফলাফল ঘোষণা পর্যন্ত রাজনৈতিক মামলা স্থগিত ও নতুন মামলা না দেওয়া

গ. পুরোনো মামলায় কাউকে গ্রেপ্তার না করা

ঘ. কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারীদের এবং সাংবাদিকদের আন্দোলন ও মত প্রকাশের কারণে দেওয়া মামলা প্রত্যাহার ও গ্রেপ্তারকৃতদের মুক্তি দেওয়া।

আজ বেলা দুইটায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এই জনসভা শুরু হয়। বেলা দুইটায় আনুষ্ঠানিকভাবে সভা শুরু হলেও দুপুর ১২টা থেকে জনসভাস্থলে ছোট-ছোট মিছিল নিয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীরা আসতে শুরু করেন। বেলা দুইটা পর্যন্ত কয়েক হাজার নেতা-কর্মী সেখানে জড়ো হয়েছেন।

বিএনপির আজকের জনভার প্রধান অতিথি ছিলেন দলটির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। প্রধান বক্তা দলটির স্থায়ী কমিটির জ্যেষ্ঠ সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন। আর এতে সভাপতির ভাষণ দেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

খালেদা জিয়ার মুক্তি, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ সব নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে থাকা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং নির্দলীয় সরকারের অধীনে একাদশ সংসদ নির্বাচনের দাবিতে এই জনসভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সরকারবিরোধী একটি বৃহত্তর ঐক্য প্রক্রিয়ার মধ্যেই বিএনপি এই জনসভা করছে। দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ পয়লা অক্টোবর থেকে নেতা-কর্মীদের আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতে বলেছেন।

ড. কামাল হোসেনের জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সমাবেশে বিএনপির মহাসচিবসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত থাকলেও বিএনপির সমাবেশে অন্য কোনো দলকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। এই জনসভা বিএনপি একাই করছে।

/ই

Ads
Ads