বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩ তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে সরিষাবাড়ীতে শোকর‌্যালী অনুষ্ঠিত

  • ১৫-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

জামালপুরের রিষাবাড়ীতে শোক দিবসে বঙ্গবন্ধু’র স্মরণে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানাতে উপজেলা বেসরকারী আধা সরকারী শ্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে সূর্যদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরন এবং সকাল সাড়ে নয়টার দিকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পু®পার্ঘ্য অর্পণ করেন উপজেলা প্রশাসন,সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বাংলাদেশ আওয়ামীলীগে’র অঙ্গসংগঠন সমুহ। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পু®পমাল্য অর্পণ শেষে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন ও মোনাজাত এবং শোক র‌্যালি উপজেলা আ’লীগ দলীয় কার্যালয় থেকে সরিষাবাড়ী শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে এসে শেষ হয়। সরিষাবাড়ী শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় । শিক্ষার্থী ও সকলের কড়তালির মধ্য দিয়ে আলোচনা সভা অব্যাহত থাকে।

পরে আলোচনা সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশা। জেলা আ’লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক জহুরুল ইসলাম মানিকের সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক উপাধ্যক্ষ হারুন অর রশীদ বক্তব্য রাখেন।

জেলা আ’লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য ডাঃ মুরাদ হাসান,উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল গণি,উপজেলা মহিলা ভাইচ চেয়ারম্যান বেগম জোহরা লতিফ,সহকারী কমিশনার ভূমি ফিরোজ আল মামুন,সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মাজেদুর রহমান মাজেদ,ওসি(তদন্ত) মুহাব্বত কবীর,পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান,উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আশরাফুল ইসলাম, ছাত্রলীগের সভাপতি আল- আমিন হোসাইন শিবলু ,উপজেলা জাতীয় পর্টির সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এ সময় ওসি(তদন্ত) মুহাব্বত কবীর,জেলা পরিষদের সদস্য খোরশেদ আলম ,যুবলীগের সাবেক সভাপতি মন্টু লাল তেওয়ারী,যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মনিরুল ইসলাম রনি, উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভা শেষে উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিরে অধীন প্রশিক্ষিত যুবক-যুব মহিলাদের মাঝে বিভিন্ন ট্রেডে’র প্রশিক্ষন সনদ ও ৫লাখ ১৫ হাজার টাকা সহজ শর্তে  ঋনের চেক বিতরন করা হয়।

আলেচনা সভায় বক্তারা বলেন,ঘাতকরা শুধু বঙ্গবন্ধুকেই হত্যা করেনি,তাদের হাতে একে একে প্রাণ হারিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, বঙ্গবন্ধুর সন্তান শেখ কামাল, শেখ জামাল ও শিশু শেখ রাসেলসহ পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজি জামাল। পৃথিবীর এই জঘন্যতম হত্যাকান্ড থেকে বাঁচতে পারেননি বঙ্গবন্ধুর অনুজ শেখ নাসের, ভগ্নিপতি আবদুর রব সেরনিয়াবাত,তার ছেলে আরিফ,মেয়ে বেবি ও সুকান্ত, বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে যুবনেতা ও সাংবাদিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক শেখ ফজলুল হক মণি, তার অন্তঃস্বত্ত্বা স্ত্রী আরজু মনি এবং আবদুল নাঈম খান রিন্টু ও কর্নেল জামিলসহ পরিবারের ১৬ জন সদস্য ও ঘনিষ্ঠজন। এ সময় বঙ্গবন্ধুর দুইকন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা বিদেশে থাকায় প্রাণে রক্ষা পান।        

প্রকাশ থাকে যে, আলোচনা সভা ও শোকর‌্যালির বিষয়টি অধিকাংশ সরিষাবাড়ীর কর্মরত টিভি ও বিভিন্ন পত্রিকার প্রতিনিধিদের উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানায়নি। অতীতের উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ সাংবাদিকদের সাথে সকল অনুষ্ঠানের বিষয়ে অবগত করতেন। কিন্তু তিনি তার মত করে কয়েকজনকে জানিয়েছে। এ নিয়ে তার সাথে পত্রিকার প্রতিনিধিদের দুরুত্ব বেড়েই চলছে।
 

Ads
Ads