বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো কে এই ফুয়াদ?

  • ২৪-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

নিজস্ব প্রতিবেদক

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যাকাণ্ড চক্রের সদস্যদোর পর এবার হত্যাকাণ্ড নিয়ে অপপ্রচারমূলক তৎপরতা শুরু করেছে তাদের স্বজনরা। সম্প্রতি বঙ্গবন্ধুর খুনি কর্নেল শাহরিয়ার রশিদের মেয়ে জামাই ফুয়াদ জামান তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে ১৫ আগস্ট ও বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ড নিয়ে ইতিহাস বিকৃত করে একটি নেক্কারজনক মিথ্যাচার প্রচার করতে শুরু করেছে। স্বাধীনতা বিরোধী চক্রের এমন কর্মকাণ্ডে ইতিহাসবিদরা বলছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যায় চক্রান্তকারীদের পরবর্তী প্রজন্মের মিথ্যাচার ও অপপ্রচার রুখে না দিতে পারলে প্রজন্ম যে বিভ্রান্তির মধ্যে পড়বে তা জাতির জন্য ভয়াবহ পরিণতি ডেকে আনতে পারে।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ আগস্ট ফুয়াদ জামান তার ব্যক্তিগত ফেসবুক টাইমলাইনে একটি স্ট্যাটাস দেন। যেখানে তিনি বঙ্গবন্ধু হত্যাকারী চক্রের সদস্যদের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। তিনি লিখেন, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা যারা বঙ্গবন্ধুর হাত থেকে বাংলাদেশকে রক্ষা করেছিল। তিনি তার ওই স্ট্যাটাসে বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িত কর্নেল শাহরিয়ার রশিদ, কর্নেল ফারুক রহমান, কর্নেল মহিউদ্দিন, মেজর বজলুল হুদা, মেজর মহিউদ্দিনের নাম উল্লেখ করে মুক্তিযোদ্ধা বলে সম্বোধন করেন। এবং তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে জান্নতুল ফেরদৌস দান করার জন্য দোয়া করেন।

অথচ, দেশের ইতিহাস ও উইকিপিডিয়া বলছে, কর্নেল সৈয়দ ফারুক রহমান, খন্দকার আবদুর রশীদ, শরীফুল হক (ডালিম), মহিউদ্দিন আহমেদ, এ.কে.এম মহিউদ্দিন আহমেদ, বজলুল হুদা এবং এস.এইচ.এম.বি নূর চৌধুরী বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অভিজ্ঞতাসম্পন্ন মেজর ছিলেন। বিদেশি গোয়েন্দাদের থেকে ইঙ্গিত পেয়ে তাঁরা সরকারকে উৎখাত করে নিজেদের সামরিক সরকারের শাসন প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা করে। শেখ মুজিবের মন্ত্রিপরিষদের আওয়ামী লীগের একজন মন্ত্রী, খন্দকার মোশতাক আহমেদ রাষ্ট্রপতির পদ গ্রহণে সম্মত হন। তবে মোশতাক ও সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স এজেন্সি চক্রান্তে জড়িত ছিল বলে সাংবাদিক লরেন্স লিফশুলজ দাবি করেন। কথিত আছে, তৎকালীন সেনাপ্রধান কে এম শফিউল্লাহ, ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফোর্সেস ইন্টেলিজেন্স এবং এয়ার ভাইস মার্শাল আমিনুল ইসলাম খান মুজিব হত্যার চক্রান্ত সম্পর্কে অবহিত ছিলেন।

রশীদের মেয়ে জামাই ফুয়াদ জামানের মিথ্যাচার প্রচার প্রসঙ্গে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের একজন অধ্যাপক বলেন, স্বভাবতই নিজের স্বজনদের নির্দোষ প্রমাণ করতে এবং ইতিহাস বিকৃত করে জাতিকে বিভ্রান্ত করতে তৎপর থাকবে একটি স্বাধীনতা বিরোধী চক্র। যাদের সমূল উৎপাটন না করতে পারলে এ অপপ্রচার থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে না। তাই ইতিহাস বিকৃত করে উপস্থাপন এবং বঙ্গবন্ধু হত্যাকে জায়েজ বলে প্রচার করা এসব অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সরকারকে আরও সোচ্চার হতে হবে। পাশাপাশি সাধারণ মানুষকেও জাগ্রত হতে হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খন্দকার আবদুর রশীদের মেয়ে জামাই ফুয়াদ জামানের স্থায়ী ঠিকানা- হাউজ- ৬৪ (বি-৫ ফ্ল্যাট) রোড-৯/এ, ধানমন্ডি আ/এ, ঢাকা-১২০৯। অন্যদিকে তার কর্মস্থানের ঠিকানাঃ- (The Solution Centre) ৫/১৪, ব্লক- ই, লালমাটিয়া, ঢাকা।

Ads
Ads